দামি ফেসিয়াল ছাড়াই তৈলাক্ত ত্বক থেকে মুক্তি পান এই ফেসপ্যাকগুলির সাহায্যে

দামি ফেসিয়াল ছাড়াই তৈলাক্ত ত্বক থেকে মুক্তি পান এই ফেসপ্যাকগুলির সাহায্যে

সামনেই একের পর এক অনুষ্ঠান। ফলে বেশ জমিয়ে সাজগোজের প্ল্যান। কিন্তু আচমকাই এক দিন সকালে উঠে দেখলেন গালের উপর দিব্যি জ্বলজ্বল করছে একটা ছোট্ট ব্রণ (acne)। ব্য়স, মাথায় বাজ! সাজগোজের সব প্ল্যান জলে! এ বার ওই ব্রণ তাড়াতে ছুটলেন পার্লারে। কিন্তু সেই দাগ কী আর সহজে ঢাকে? তাই কোনও রকমে মেক আপে (make up) ঢেকেই গেলেন বিয়েবাড়ি। মনে কিন্তু খুঁতখুঁতুনিটা থেকেই গেল। কখনও কি ভেবে দেখেছেন, কেন মাঝে মাঝেই ব্রণ হচ্ছে? আসলে ব্রণ হওয়ার মূল কারণ হল তৈলাক্ত ত্বক (oily skin)। কারণ তৈলাক্ত ত্বকের উপরিভাগে খুব সহজেই ময়লা জমে। আর তা সহজেই ব্রণর আক্রমণের শিকার হয়। হাজারো দামি ফেসিয়াল (facial) করে, দামি ফেসওয়াশ (face wash) ব্যবহার করেও এই সমস্যা থেকে রেহাই মেলে না। তাই এ বার তৈলাক্ত ত্বককে গুডবাই বলুন ঘরে বসেই!



১। শসা আর লেবুর রস (cucumber-lime): তেলতেলে ত্বককে (oily skin) দূর করতে শসা আর লেবু অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। প্রথমে শসা কেটে রসটা বার করে নিতে হবে। ১ টেবিল চামচ শসার রসের সঙ্গে ১ টেবিল চামচ লেবুর রস মিশিয়ে নিতে হবে। এর পর একটি তুলোর বলের সাহায্যে এই মিশ্রণটি পুরো মুখে লাগিয়ে নিতে হবে। ৩০ মিনিট পরে ঠান্ডা জলে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। সপ্তাহে অন্তত দু’-তিন বার ব্যবহার করলে ভাল ফল পাওয়া যাবে।



২। মুলতানি মাটি আর গোলাপ জল: প্রথমে ২ টেবিল চামচ মুলতানি মাটি নিয়ে পরিমাণ মতো গোলাপজল (rose water) নিয়ে একটি মিশ্রণ বানাতে হবে। লক্ষ্য রাখতে হবে, মিশ্রণটি যেন পাতলা না হয়ে যায়। এর পর মিশ্রণটি একটি ব্রাশের সাহায্যে মুখে লাগাতে হবে। ১৫-২০ মিনিট পরে ইষদুষ্ণ গরম (lukewarm) জলে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। সপ্তাহে ২-৩ বার এই মাস্ক লাগালে তৈলাক্ত ত্বক (oily skin) থেকে পুরোপুরি মুক্তি মিলবে।



৩। টমেটো: তৈলাক্ত ত্বক (oily skin) দূর করার সব থেকে সহজ উপায় হল টমেটো (tomato)। বাড়িতে টমেটো সেদ্ধ করে ছেঁকে বীজ বার করে পিউরি বানিয়ে নিতে হবে। তুলোর বল দিয়ে তা লাগিয়ে ৫-৭ মিনিট রেখে জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। আরও ভাল ফল পেতে মধুই ব্যবহার করা যেতে পারে। রোজ যদি এটা ব্যবহার করা যায়, তা হলেই খুব শীঘ্রই সমস্যার সমাধান হবে।



৪। ওটমিল: তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে ওটমিল (ground oatmeal) খুবই জরুরি। কারণ ত্বকের অতিরিক্ত তেল শুষে নেয় ওটমিল। সাধারণত মধু ও দইয়ের সঙ্গে মিশিয়ে মিশ্রণ বানিয়ে ব্যবহার করা হয়। তা ছাড়াও কলা, আপেল, পেঁপের সঙ্গে মিশিয়েও ব্যবহার করা যায়। তবে সহজেই যে প্যাকটা বানানো যায়, সেটা হল- প্রথমে আধ কাপ গুঁড়ো করা ওটস নিয়ে তাতে গরম জল মিশিয়ে একটা মিশ্রণ বানাতে হবে। এর পর তাতে ১ টেবিল চামচ মধু (honey) মেশাতে হবে। ব্যস! প্যাক (facepack) তৈরি। এ বার মুখে লাগিয়ে ১০-১৫ মিনিট রেখে ইষদুষ্ণ গরম (lukewarm) জলে ধুয়ে ফেলতে হবে।



৫। ডিমের সাদা অংশ আর পাতিলেবু: তৈলাক্ত ত্বক (oily skin) দূর করার অন্যতম উপায় হল ডিমের সাদা অংশ (egg white) আর লেবু (lime)। লেবুতে থাকা সাইট্রিক  (citric acid) ত্বকের অতিরিক্ত তেল শুষে নেয়। মাস্ক (mask) বানাতে একটি পাত্রে একটি ডিমের সাদা অংশ নিয়ে তাতে ১ টেবিল চামচ লেবুর রস মিশিয়ে নিতে হবে। তার পরে মুখে ওই মাস্ক লাগিয়ে পুরোপুরি শুকিয়ে নিতে হবে। এর পর উষ্ণ গরম জলে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। তবে ডিমে যাঁদের অ্যালার্জি (allergy), এই মাস্ক তাঁদের ব্যবহার না করাই ভাল।



৬। অ্যালোভেরা: তৈলাক্ত ত্বক থেকে মুক্তি পেতে অ্যালোভেরাও (aloe vera) খুব উপকারী। রাতে শুতে যাওয়ার আগে অ্যালোভেরার একটা পাতলা আস্তরণ মুখে লাগাতে হবে। সারা রাত সেটি রেখে দিতে হবে। সকালে ঘুম থেকে উঠে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। তবে সেনসিটিভি ত্বকে (sensitive skin) অনেক সময় অ্যালোভেরা থেকে অ্যালার্জি হতে পারে। তাই মুখে লাগানোর আগে কনুইয়ে অল্প করে অ্যালোভেরা লাগিয়ে দেখে নিতে হবে। ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে যদি কোনও সমস্যা না-হয়, তা হলে অনায়াসে ব্যবহার করা যেতে পারে।



৭। নুন: আর একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ জিনিস হল নুন (salt)। এক গ্লাস জলে এক টেবিল চামচ নুন মিশিয়ে নিতে হবে। সেটিকে একটি স্প্রে বোতলে রেখে মুখে স্প্রে করে নিতে হবে। প্রতিদিন দু’- তিন বার করে মুখে স্প্রে (spray) করলে মুখের তৈলাক্ত ভাব কেটে যাবে।



৮। ভুট্টার গুঁড়ো: ত্বকের তৈলাক্ত ভাব (oily skin) দূর করতে ভুট্টার গুঁড়ো (corn) খুবই জরুরি। গরম জলে ভুট্টার গুঁড়ো মিশিয়ে ঘন একটি মিশ্রণ তৈরি করে নিতে হবে। তার পর পুরো মুখে ওই মিশ্রণ লাগিয়ে নিতে হবে। শুকিয়ে গেলে ইষদুষ্ণ গরম জলে (lukewarm water) মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। ভাল ফল পেতে প্রতিদিন ব্য়বহার করতে হবে।



৯। লেবুর রস, গোলাপ জল, গ্লিসারিন: সমান মাপে লেবুর রস, গোলাপ জল ও গ্লিসারিন (glycerine) মিশিয়ে নিয়ে মুখে মেখে ফেলতে হবে। তার পরে ধুয়ে নিতে হবে। এই মিশ্রণ ব্রণ, দাগের মতো তৈলাক্ত ত্বকের (oily skin) নানা  সমস্যা দূর করতে খুবই কার্যকর।



১০। কফির গুঁড়ো ও মধু: কফির গুঁড়োর (coffee) মধ্যে খানিকটা মধু (honey) মিশিয়ে একটি স্ক্রাব (scrub) তৈরি করে সেটি মুখে লাগাতে হবে। শুকিয়ে গেলে হালকা গরম জলে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। এই স্ক্রাব তৈলাক্ত ত্বক (oily skin) দূর করতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ।


 


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি এবং বাংলাতেও!