রানি পেলেন রাজা চন্দ - Tollywood Director Raja Chanda Got Married in Bengali | POPxo

রানি পেলেন রাজা চন্দ

রানি পেলেন রাজা চন্দ

পরিচালক রাজা চন্দ এবার সাত পাকে বাঁধা পড়লেন। বহুদিনের বান্ধবী পিয়ান সরকার হলেন রাজার ঘরণী। এর আগে রাজারই পরিচালিত দুটি ছবি ‘তুমি রবে নীরবে’ এবং ‘লাভ এক্সপ্রেস’ এ কাজ করেছেন পিয়ান।সাদা ফুল পিয়ান ও রাজা দুজনেরই পছন্দের তালিকায় আগে থেকে ছিল। তাই নবদম্পতির পছন্দ অনুযায়ী সাদা ফুল দিয়েই সাজানো হয়েছিল বউভাতের মণ্ডপ।শ্রীরামপুর রাজবাড়িতে বিয়ের দিন বাঙালি প্রথা মেনে লাল বেনারসিতেই দেখা যায় পিয়ানকে। তবে বউভাতে পরিবেশের সঙ্গে তাল মিলিয়ে অফ হোয়াইট ও পিচ রঙের পোশাক পরেছিলেন তিনি। সঙ্গে কালো শেরওয়ানিতে যোগ্য সঙ্গত দিচ্ছিলেন রাজা।


কারা এলেন 


টলিউডের অন্যতম সফল পরিচালকের বিয়ে বলে কথা। তাই তার বিয়েতে চাঁদের হাট বসবেনা তা কি হয়? রাজাকে শুভেচ্ছা জানাতে তড়িঘড়ি বিয়েবাড়ি উপস্থিত হন বুম্বাদা অর্থাৎ প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। ভোরবেলা দুবাইয়ের ফ্লাইট ধরার তাড়া আছে তার। সেইজন্যই এই জলদি আগমন।তবে ‘উড়ু উড়ু’ মনের রাজা যে এতদিনে থিতু হয়েছেন তাতে বেশ খুশি বুম্বাদা।একসাথে এলেন রাজ ও শুভশ্রী। রাজের শুটিং থাকায় তাদের দেরি হয়েছে বলে জানালেন শুভশ্রী। হাল্কা হলুদ রঙের সিকোয়েনের কাজ করা শাড়িতে ভারি মিষ্টি লাগছিল তাকে। বিয়েবাড়িতে উপস্থিত অতিথিদের বার বার নজর যাচ্ছিল শুভশ্রীর সুন্দর দুলের দিকে। রাজকে যদিও বেশ ক্লান্ত দেখাচ্ছিল। বললেন, সারাদিন শুটিং করেছেন তাই অনেক ধকল গেছে, জ্যাকেটটাও পরার সময়য় পাইনি। ওটা নিয়ে শুভশ্রী অনেকক্ষণ অপেক্ষা করেছে গাড়িতে। সবচেয়ে বড় চমক দিয়েছেন সুপারস্টার দেব।দেব মুম্বাইতে আছেন বলে আসতে পারবেন না জানিয়েছিলেন রাজা ও পিয়ানকে। দুজনেরই যখন বেজায় মন খারাপ, সেইসময় দেব ও রুক্মিণী একসাথে এসে সারপ্রাইজ দেন নতুন বর বউকে।সামান্য কিছুক্ষণের জন্য এসেছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। জানালেন বিয়েবাড়িতে বাজতে থাকা মিষ্টি লোকসঙ্গীত আর আলোর কাজ তার ভালো লেগেছে। তবে অনেক চেষ্টা করেও আসতে পারেননি রাজার বহু হিট ছবির নায়িকা কোয়েল মল্লিক।যদিও খোশমেজাজে দেখা গেল সোহম ও সায়ন্তিকাকে।


খাওয়া দাওয়া 


পিয়ান যেহেতু একজন মডেল তাই তাকে যথেষ্ট মেপেজুপে খাওয়া দাওয়া করতে হয়।কিন্তু রাজা নিজে একজন বড় খাদ্যরসিক। তাই মেনু ছিল জমজমাট। ফুলকো লুচি, বেগুনভাজা, পেয়ারি কাবাব, ডাব চিংড়ি, মাটন ডাকবাংলো, ফিশ ফ্রাই, বেকড রসগোল্লা সব ছিল মেনুতে। অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা সরকার তো লুচি বেগুনভাজা দেখে লোভ সামলাতেই পারলেন না। ডায়েটের চক্কর থেকে বেরিয়ে সোজা লুচি-বেগুনভাজার দিকে হাত বাড়ালেন তিনি। আপাতত বিয়ের পর মধুচন্দ্রিমায় যাওয়ার সময় নেই রাজার। কারণ বউভাতের পরেই তিনি তার দল নিয়ে উড়ে গেছেন মালেশিয়া। সেখানে চলছে রাজার আগামী ছবির শুটিং। আগামী দিনে শুটিং থাকবে টিটাগড় ও থাইল্যান্ডে। ফলে একদমই সময় নেই ব্যস্ত পরিচালকের হাতে। রাজার কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত পিয়ান থাকবেন তার বাবা মার সঙ্গে। সব কাজ শেষ করে তবেই পিয়ানের সঙ্গে বসে মধুচন্দ্রিমায় কোথায় যাওয়া হবে সেটা ঠিক করবেন রাজা।


এত সুন্দর অনুষ্ঠানের মধ্যেও কোথাও যেন একটু তাল কাটল। সামান্য একটু ছন্দপতন। যদিও সেটা ইন্ডাস্ট্রির কারও চোখ এড়ায়নি। আর সেটা হল রাজার বিশেষ ঘনিষ্ঠ বন্ধু জিতের অনুপস্থিতি।জিতের উপহার নিয়ে রাজার সঙ্গে দেখা করতে আসে তার ভাই। নিন্দুকেরা বলছেন, রাজার আগামী ছবি দেবের সঙ্গে বলে নাকি একটু বিরক্ত হয়েছেন জিৎ। যদিও তার দাবী ব্যস্ততার কারণেই তিনি আসতে পারেননি।           

Read More from Wedding
Load More Wedding Stories