ট্যানের (tan) ভয়ে রোদে বেরোবেন কী করে ভাবছেন? ঘরেই রয়েছে টোটকা

ট্যানের (tan) ভয়ে রোদে বেরোবেন কী করে ভাবছেন? ঘরেই রয়েছে টোটকা

মুখের স্কিনের রঙের সঙ্গে হাত-পায়ের স্কিনের রং মিলছে না। স্কিন ট্যানের (tan) এই সমস্যার ভুক্তভোগী বহু মানুষই। ফলে রোদে বেরোতেও ভয় পাচ্ছেন। কিন্তু কতক্ষণই বা বাড়িতে বসে থাকবেন। অফিসের কাজ বা বাড়ির কাজে বাইরে বেরোতেই হবে। আর সানস্ক্রিন মেখেও কাজ হয় না। ট্যানের সমস্যা যায়ই না! তবে অনেকেই মনে করেন যে, গরমে ট্যানের (tan) সমস্যা বেশি হয়। কিন্তু আপনাদের ধারণা ভুল! এই সমস্যা শীতকালের রোদেও হয়। তবে হ্যাঁ, গরমের দিনে ট্যানের (tan) সমস্যা বেড়ে যায়। বড়জোর আর এক মাস! তার পরেই বিদায় নেবে শীত। শুরু হয়ে যাবে গরমের চোখরাঙানি। আর তার সঙ্গেই আসবে স্কিনের হাজারো প্রবলেম। রোদে পুড়ে আপনার শরীরে উন্মুক্ত অংশ- মুখ, হাত আর পায়ের পাতা সব থেকে বেশি কালচে হয়ে যায়। তাই অনেকেই পরামর্শ দেন যে, ট্যান (tan) যাতে না হয়, তার জন্য হাত-পা ঢাকা পোশাক পরতে হবে। কিন্তু সব সময় তো আর ঢাকা পোশাক পরা সম্ভব নয়। তাই ঘরোয়া উপায়েই দূর করুন ট্যান (tan)।


আরো পড়ুনঃ ত্বক ও চুলের যত্নে টোম্যাটোর গুণ


লেবুর রস (lime juice)


lemon slice


স্কিন-চুলের জন্য লেবু (lemon) যে কতটা গুরুত্বপূর্ণ, সেটা আমরা সকলেই জানি। তাই একটু লেবু কেটে নিন। এ বার লেবুর টুকরোটাকে আপনার ট্যান পড়া জায়গার উপর ঘষুন। লেবুর রসটা (lime juice) যাতে আপনার স্কিনে বসে যায়, তার জন্য কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন। তার পরে ঠান্ডা জলে ধুয়ে ফেলুন।


শসা, লেবু, গোলাপ জল


cucumber


এক চামচ করে শসার (cucumber) রস, লেবুর রস (lime juice) আর গোলাপ জল (rose water) নিয়ে একটি পাত্রে মিশিয়ে নিন। এ বার আপনার স্কিনের ট্যানের (tan) উপর লাগিয়ে নিন। কিছুক্ষণ পরে ধুয়ে ফেলুন।


বেসন, হলুদ


turmeric


দু’টেবিল চামচ বেসনের মধ্যে অল্প একটু হলুদ গুঁড়ো (turmeric powder) মিশিয়ে নিন। তার মধ্যে দু’ টেবিল চামচ দুধ আর এক টেবিল চামচ গোলাপ জল (rose water) দিয়ে প্যাক তৈরি করুন। এ বার ট্যানের (tan) জায়গায় লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তার পরে ধুয়ে ফেলুন।


মুসুর ডাল, টোম্যাটো আর অ্য়ালোভেরা


tomato


aloe vera


প্রথমে এক টেবিল চামচ মুসুর ডাল ভিজিয়ে রাখুন। এর পরে সেটা বেটে নিন। এ বার বাটা ডালের মধ্য়ে এক টেবিল চামচ টোম্যাটো (tomato) পেস্ট আর অ্যালো ভেরা মিশিয়ে নিন। মুখের ট্যান (tan) পড়া জায়গাটার উপর লাগিয়ে রাখুন। ৩০ মিনিট এই প্যাকটা মেখে অপেক্ষা করুন। তার পরে ঠান্ডা জলে মুখ ধুয়ে ফেলুন।


পাকা পেঁপে-মধু


papaya


honey


আধ কাপ পেঁপে (papaya) পেস্ট করে নিন। তার মধ্যে এক টেবিল চামচ মধু (honey) মিশিয়ে দেবেন। ট্যান (tan) হওয়া জায়গাটার উপর ওই প্যাক লাগিয়ে নিন। ৩০ মিনিট রেখে ঠান্ডা জলে ধুয়ে নিন।


ওটমিল-ছানা


oatmeal


তিন টেবিলচামচ ছানা ও দুই টেবিলচামচ ওটমিল মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। ট্যান (tan) হওয়া জায়গার উপর প্যাকটি লাগিয়ে কিছুক্ষণ রাখুন। তার পরে ধুয়ে ফেলুন।


টক দই-টোম্যাটোর রস


curd


এক টেবিলচামচ করে টক দই আর টোম্যাটোর (tomato) রস নিয়ে মিশিয়ে নিন। এ বার স্কিনের সেই সব অংশে প্যাকটি লাগিয়ে রাখুন। আধ ঘণ্টা পরে ঠান্ডা জলে মুখ ধুয়ে নিন।


আলুর রস-লেবুর রস


একটা মাঝারি আলু নিয়ে সেটা কেটে রস করে নিন। তার মধ্যে এক টেবিল চামচ লেবুর রস (lime juice) মিশিয়ে নিন। ৩০ মিনিট এই প্যাক লাগিয়ে রেখে ঠান্ডা জলে ধুয়ে নিন।


চন্দন বাটা


sandalwood paste


এটা সব থেকে সহজ পদ্ধতি। রোজ রাতে শুতে যাওয়ার আগে চন্দন বাটা লাগিয়ে নিন। ঘুম থেকে উঠে ধুয়ে ফেলুন। এ ছাড়াও এক টেবিলচামচ চন্দন বাটার সঙ্গে ডাবের জল মিশিয়ে ট্যানের জায়গায় লাগিয়ে রাখুন। কয়েক মিনিট রাখার পরে ঠান্ডা জলে ধুয়ে নিন।


হলুদ-দুধ


দুধের মধ্য অল্প পরিমাণে হলুদ গুঁড়ো (turmeric powder) মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে নিন। প্যাকটা শুকিয়ে গেলে মুখ ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন, ট্যান (tan) গায়েব আর স্কিনও গ্লো করছে।


গাজর


একটা গাজর নিয়ে পেস্ট করে নিন। এ বার মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর শুকিয়ে গেলে মুখ ধুয়ে ফেলুন। কারণ এই মুখের ট্যান (tan) দূর করতে গাজরের পেস্ট খুবই কার্যকরী। মুখের ত্বককেও উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে।


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি এবং বাংলাতেও!