জানা আছে কি বাড়ির কোন দেওয়ালে ঝোলাতে হবে ঘড়ি? - Wall Clock Vastu Tips In Bengali

জানা আছে কি বাড়ির কোন দেওয়ালে ঝোলাতে হবে ঘড়ি? - Wall Clock Vastu Tips In Bengali

প্রথমে একটা জুতসই জায়গা খুঁজে নেওয়া। তারপর পেরেক ঠুকেই ঝুলিয়ে দেওয়া! এই ভাবেই বাঙালি বাড়িতে মূলত দেওয়াল ঘড়ির (Wall Clock) আগমন ঘটে থাকে। আর টেবিল ক্লক তো যাযাবর। কখনও সে শোয়ার ঘরে অ্যালার্ম বাজাচ্ছে, তো কখনও খাবার টেবিলে অপ্রাসঙ্গিক হয়ে পড়ে রয়েছে। আসলে আমরা ঘড়ি নামক যন্ত্রটিকে নিয়ে বড়ই উদাসীন। কিন্তু আদতে এমনটা হওয়া একেবারেই উচিত নয়। কারণ বাস্তুশাস্ত্র অনুসারে বাড়ির ঠিক ঠিক জায়গায় যদি ঘড়ি রাখা না হয়, তাহলে নাকি মহা বিপদ!


আসলে বাস্তুশাস্ত্রে উল্লেখিত নিয়ম মেনে ঠিক ঠিক জায়গায়া ঘড়ি না রাখলে বাড়ির বাস্তু যায় বিগড়ে। আর বাস্তু দোষ দেখা দিলে স্বাভাবিকভাবেই টাকা-পয়সা সংক্রান্ত ঝামেলা তো মাথা চাড়া দিয়ে ওঠেই। সেই সঙ্গে লেজুড় হয় আরও হাজার রকমের ঝামেলা। ফলে অশান্তিতে ভরে ওঠে জীবন। তাই তো বলি বন্ধু, এমন সব ঝামেলার খপ্পরে যদি পড়তে না হয়, তাহলে কতগুলি নিয়ম আছে যেগুলি মেনে দেওয়ালে ঘড়ি রাখতে হবে, সেগুলি হল...


দেওয়ালে ঘড়ি রাখার কিছু বাস্তু টিপস - Wall Clock Direction As Per Vastu In Bengali


দক্ষিণের দেওয়াল:


 Capture


বাস্তু বিশেষজ্ঞদের মতে বাড়ির দক্ষিণ দিকের দেওয়ালে ভুলেও ঘড়ি টাঙানো উচিত নয়। কারণ এমনটা করলে গৃহস্থে খারাপ শক্তির প্রভাব বাড়তে শুরু করে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই নানাবিধ ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা যায় বেড়ে। তাহলে এখন প্রশ্ন হল, কোথায় রাখতে হবে দেওয়াল ঘড়ি? বাস্তুশাস্ত্র অনুসারে বাড়ির পূর্ব অথবা উত্তর দিকের দেওয়ালে ঘড়ি রাখলে (Best Position Of Wall Clock In Room According To Vastu) সবথেকে বেশি উপকার পাওয়া যায়। কারণ সেক্ষেত্রে অর্থনৈতিক উন্নতি তো ঘটেই, সেই সঙ্গে পজেটিভ শক্তির প্রভাব বেড়ে যাওয়ার কারণে কোনও ধরনের বিপদ ঘটার আশঙ্কাও আর থাকে না।


শোয়ার ঘরের ঘড়ি:


clock-bed room


বাড়ির এই বিশেষ অংশে ঘড়ি রাখতে হবে উত্তর দিকে (Wall Clock Position As Per Vastu)। আর শুতে যাওয়ার সময় মাথা রাখতে হবে দক্ষিণ দিকে। এমনটা করলে স্বাভাবিকভাবেই সকালে ঘুম থেকে ওঠা মাত্র চোখ যাবে সামনে রাখা ঘড়ির দিকে, যা আদতে শুভ লক্ষণ হিসেবে বিবেচিত হয়ে থাকে বাস্তুশাস্ত্রে।


দরজার উপরে ভুলেও নয়:


clock-door


এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে কোনও দরজার উপর যদি ঘড়ি রাখা হয়, তাহলে নাকি পরিবারের কোনও সদস্যের হঠাৎ করে কোনও বিপদ ঘটার আশঙ্কা যায় বেড়ে। সেই সঙ্গে পারিবারিক সুখ-শান্তিও দূরে পালায়। ফলে জীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠতে সময় লাগে না। প্রসঙ্গত, একই ঘটনা ঘটে সদর দরজার দিকে মুখ করে ঘড়ি রাখলেও। তাই তো বলি বন্ধু, বাকি জীবনটা যদি সুখে-শান্তিতে কাটাতে হয়, তাহলে এই নিয়মগুলি মেনে চলতে ভুলো না যেন!


বন্ধ ঘড়ি নৈব নৈব চ:


clock-stopped-watec


বাস্তুশাস্ত্র মতে বন্ধ ঘড়ি বাড়িতে রাখা একেবারেই উচিত নয়। কারণ এটা যেমন অশুভ লক্ষণ, তেমনি এমনটাও বিশ্বাস করা হয় যে বন্ধ ঘড়ি বাড়িতে থাকলে নাকি মারাত্মক অর্থনৈতিক ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা থাকে। সেই সঙ্গে ধার-দেনার খপ্পরে পরার পথও প্রশস্ত হয়।


সময়ের থেকে যেন পিছিয়ে না থাকে:


clock-running-behind


বাড়িতে থাকা কোনও ঘড়ি যেন নির্দিষ্ট সময়ের থেকে পিছিয়ে না থাকে। কারণ এমনটা হলে নাকি নানাবিধ বিপদ ঘটার আশঙ্কা যায় বেড়ে। প্রসঙ্গত, এক্ষেত্রে আরেকটি বিষয় মাথায় রাখা একান্ত প্রয়োজন। তা হল, বাড়িতে সুখ-শান্তি বজায় থাকুক, এমনটা যদি চাও, তাহলে ঘড়ির কাঁচে যেন কখনও ময়লা না জমে!


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!