সুস্থ থাকতে চাও তো নিতেই হবে ১০,০০০ স্টেপ! (10000 Daily Steps Leads to Lifetime Health)

সুস্থ থাকতে চাও তো নিতেই হবে ১০,০০০ স্টেপ! (10000 Daily Steps Leads to Lifetime Health)

আগেকার দিনের ডাক্তারেরা বলতেন সকাল-বিকাল মর্নিং ওয়াক (walking) করো, তাতেই শরীর থাকবে চাঙ্গা, মন থাকবে ফুরফুরে! তাই তো আজ থেকে কয়েক বছর আগেও স্টেপ গুনে গুনে কেউ হাঁটতো বলে তো মনে হয় না! কিন্তু এখন সময় বদলেছে। সেই সঙ্গে বিজ্ঞানও বেজায় উন্নতি করেছে। আর তার উপর তো স্মার্ট ওয়াচ নামক যন্ত্রটি আছেই। তাই সব দিক বিবেচনা করে এখনকার চিকিৎসকেরা বলছেন শুধু হাঁটলেই চলবে না, গুনে গুনে হাঁটতে হবে। মানে দিনে কম করে ১০০০০ স্টেপ (10000 steps) নিতে হবে, তবেই মিলবে উপকার!


দিনে ১০০০০ স্টেপ নেওয়াটা যে এমন কিছুই নয়, তার প্রমাণ মেলে বেশ কিছু আর্বান স্টাডির দিকে নজর ফেরালেই। এই যেমন এক স্টাডিতে দেখা গেছে কোনও মহিলা যদি সারাদিন অল্পবিস্তর বাড়ির কাজ করে। সেই সঙ্গে দোকান-বাজারে দৌড়াদৌড়ি এবং ৩০ মিনিট মর্নিং বা ইভিনিং ওয়াক করলেই টার্গেট অ্যাচিভ হয়ে যায়। আর এমনটা করতে পারলে শরীর বাবাজিকে নিয়ে আর কোনও চিন্তাই থাকবে না। কারণ একাধিক গবেষণায় একথা প্রমাণিত হয়ে গেছে যে প্রতিদিন ১০০০০ স্টেপ (10000 Daily Steps Leads to Lifetime Health) নিলে কোনও জটিল রোগ যেমন ধারে কাছে ঘেঁষতে পারে না, তেমনি একাধিক শারীরিক উপকার মেলে। যেমন ধরো...


১. হার্টের ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে:


steps-heart
আইরিশ বিজ্ঞানীদের করা এক গবেষণা অনুসারে যারা দিনের বেশিরভাগ সময় বসে কাজ করে, তারা যদি নিয়মিত একটু হাঁটাহাঁটি করে, তাহলে হার্টের কোন ধরনের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা যায় কমে। সেই সঙ্গে হঠাৎ করে স্ট্রোক বা হার্ট অ্যাটাক হওয়ার আশঙ্কাও আর থাকে না। প্রসঙ্গত, আমেরিকান জেরিয়াট্রিক সোসাইটির প্রকাশ করা এক রিপোর্ট অনুসারে নিয়মিত ১০০০০ স্টেপ নিলে আয়ু বৃদ্ধি পায় চোখে পড়ার মতো। তাই তো বলি বন্ধু, দীর্ঘদিন সুস্থভাবে বাঁচার স্বপ্ন যদি দেখে থাকো, তাহলে আজই একটা স্মার্ট ওয়ার্চ কিনে নাও। আর শুরু করে দাও হাঁটাহাঁটি (walking)!


২. ওজন কমবে তরতরিয়ে:


steps-weight
অতিরিক্ত ওজনের কারণে কি চিন্তায় রয়েছো? তাহলে আজ থেকেই নির্দিষ্ট ডায়েট মেনে খাওয়া-দাওয়া শুরু করে দাও। সেই সঙ্গে দৈনিক ১০০০০ স্টেপ (10000 steps a day weight loss) নেওয়াটাও কিন্তু জরুরি! কারণ আমেরিকান বিজ্ঞানীদের করা এক পরীক্ষায় দেখা গেছে টানা ৮ সপ্তাহ নিয়মিত হাঁটলে ওজন কমতে সময়ই লাগে না। সেই সঙ্গে ওবেসিটির সঙ্গে যে সব রোগের যোগ রয়েছে, সেই সব ডিজিজে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা প্রায় ৫০ শতাংশ কমে যায়। তাই এবার থেকে সকাল-বিকাল হাঁটার পাশাপাশি লিফ্টের পরিবর্তে সিঁড়ি নেওয়া শুরু করো, দেখবে ১০০০০ স্টেপ নেওয়ার টার্গেট পূরণ হতে সময় লাগবে না। আর নিয়মিত এই লক্ষে পৌছালে ফল মিলবে একেবারে হাতে-নাতে!


৩. ক্যান্সারের মতো মারণ রোগ দূরে থাকবে:


steps-cancer
আমেরিকান ক্যান্সার সোসাইটির করা এক স্টাডিতে একথা প্রমাণিত হয়ে গেছে যে দিনের বেশিরভাগ সময় যারা বসে কাজ করে, তাদের ক্যান্সারের মতো মারণ রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকে বেশি। তাই তো বলি বন্ধু, শরীরকে চাঙ্গা রাখতে এবং এমন সব রোগের খপ্পর থেকে বেঁচে থাকতে নিয়মিত হাঁটাহাঁটি করা মাস্ট! কারণ এমনটা করলে সারা শরীরে অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্তের প্রবাহ বেড়ে যায়। ফলে শরীরের প্রতিটি অঙ্গের ক্ষমতা যেমন বৃদ্ধি পায়, তেমনি ক্যান্সার সেল জন্ম নেওয়ার আশঙ্কাও কমে। বিশেষত ব্রেস্ট ক্যান্সার দূরে থাকতে বাধ্য হয়, যদি নিয়মিত ১০০০০ স্টেপ নেওয়া হয় তো!


৪.ব্রেন পাওয়া বৃদ্ধি পায়:


steps-brain
চিকিৎসকেদের মতে নিয়মিত হাঁটলে মস্তিষ্কে অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্তের সরবরাহ বেড়ে যায়। ফলে স্বাভাবিকভাবেই ব্রেনের বিশেষ কিছু অংশ এতটাই অ্যাকটিভ হয়ে ওঠে যে মস্তিষ্কের ক্ষমতা বৃদ্ধি পেতে সময় লাগে না। আর একবার ব্রেন পাওয়ার বেড়ে গেলে স্বাভাবিকভাবেই স্মৃতিশক্তি এবং মনোযোগ ক্ষমতার উন্নতি ঘটে চোখে পড়ার মতো। এতক্ষণে নিশ্চয় বুঝতে পেরেছো বন্ধু, নিয়মিত ১০০০০ স্টেপ নেওয়ার প্রয়োজন কতটা!


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!