ক্যামোমাইল চা - এর উপকারিতা ও গুণ (Benefits and Side Effects of Chamomile Tea In Bengali)

ক্যামোমাইল চা - এর উপকারিতা ও গুণ (Benefits and Side Effects of Chamomile Tea In Bengali)

আমি বহু দিন নাইট শিফটে কাজ করেছি। তো তার জন্য বাড়ি ফিরতে রাত সাড়ে তিনটে বেজে যেত। তার পরে ঘুমোতো ঘুমোতে ভোর হয়ে যেত। আর প্রায় দিনই এটা হতো বলে আমার বায়োলজিক্যাল ক্লকটাও বদলে গিয়েছিল। এমনকি ছুটির দিনগুলোয় আগে ঘুমোনোর চেষ্টা করেও ঘুমোতে (Sleep) পারতাম না। এ ভাবে চলতে চলতে ইনসমনিয়ার (Insomnia) রুগি হয়ে গিয়েছিলাম। ঘুম (Sleep) কিছুতেই আসতে চাইত না। এ ভাবে চলতে চলতে মাঝেমধ্যেই বিভিন্ন রকম শরীর খারাপ হতো। শেষে আমারই এক বন্ধু ক্যামোমাইল টি (Chamomile Tea) এর কথা বলল। আমি তো প্রথমে বিশ্বাসই করিনি। খাওয়ার পর বুঝতে পারলাম যে, ইনসমনিয়া থেকে মুক্তি পেতে ক্যামোমাইল চা এর (Chamomile Tea) জুড়ি নেই!


এমনিতে তো আমরা কমবেশি ভেষজ চা বা হার্বাল টি-র বিষয়ে শুনেই আসছি। ক্যামোমাইল টি-ও (Chamomile Tea) এই হার্বাল টি-র মধ্যে রয়েছে। ক্যামোমাইলের ফুল (Dried Chamomile Flower) শুকিয়ে ব্যবহার করে বানানো। ক্যাফিন ছাড়া এই চা (Chamomile Tea) আপনার শরীরের (Health) পক্ষে অত্যন্ত ভাল। শুধু তা-ই নয়, স্কিন ও হেয়ার কেয়ারে (Hair And Skin Care) এর গুরুত্ব আসাধারণ। মূলত দু’ধরনের ক্যামোমাইল চা এর (Chamomile Tea) ব্যবহার দারুণ - রোমান ক্যামোমাইল আর জার্মান ক্যামোমাইল। আর প্রাচীন আয়ুর্বেদেও এই ক্যামোমাইল টি-র গুণাগুণের বর্ণনা রয়েছে। তবে উপকারিতার সঙ্গে সঙ্গে এর কিছু সাইড এফেক্টসও (Side Effects) রয়েছে। যেমন ধরুন, প্রেগন্যান্সিতে (Pregnancy) এই চা না খাওয়াই উচিত। আসুন জেনে নিন, কী ভাবে বানাবেন ক্যামোমাইল চা (Chamomile Tea) আর এর উপকারিতা (Benefits) ও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াও (Side Effects)।


আরো পড়ুনঃ নয়নতারা ফুলের নানা উপকারিতা


ক্যামোমাইল চা এর উপকারিতা


ক্যামোমাইল চা এর সাইড এফেক্টস


কী ভাবে বানাবেন ক্যামোমাইল চা? - How To Make Chamomile Tea In Bengali


আগে দেখে নিন, কী ভাবে রাখতে হবে। কোনও স্টোর থেকে ক্যামোমাইল টি (Chamomile Tea) কেনার পরে সেগুলোকে এয়ারটাইট জারে ভরে শুকনো কোনও জায়গায় রাখতে হবে। আর লক্ষ্য রাখবেন, সূর্যালোক থেকে যেন দূরে রাখা থাকে। ক্যামোমাইল চা (Chamomile Tea) বানাতে প্রয়োজন-


২ টেবিল চামচ শুকনো ক্য়ামোমাইল ফুল


২ কাপ জল


কয়েক টুকরো আপেল


২ চা-চামচ মধু বা চিনি (অপশনাল)


chamomile tea cup


প্রথমে জল ফুটিয়ে নিন। ভাল করে ফুটলে নামিয়ে নিন। তার মধ্যে কাঠের চামচের দিয়ে আপেলের টুকরোগুলোকে একটু পেস্ট মতো করে নিয়ে ফুটন্ত জলে দিন। এ বার তার মধ্যে শুকনো ক্যামোমাইল ফুলগুলো (Dried Chamomile Flower) দিয়ে নিন। কাঠের চামচ দিয়ে এ বার মিশ্রণটাকে ভাল করে নেড়ে নিন। এ বার সেটাকে ছেঁকে কাপে নিয়ে নিন। আর চাইলে মধু বা চিনি যোগ করতে পারেন। স্বাদের জন্য লেবুর রসও দেওয়া যেতে পারে। ব্যস, আপনার ক্যামোমাইল চা (Chamomile Tea) রেডি! এ বার দেখে নেব, কী কী উপকারিতা রয়েছে এর।


আরও পড়ুনঃ হার্টের রোগকে দূরে রাখতে লাল চায়ের উপকারিতা


ক্যামোমাইল চা এর উপকারিতা - Chamomile Tea Benefits In Bengali


স্কিনের জন্য - Chamomile Tea Benefits For Skin


১। ন্যাচারাল ক্লিনজার


২। ন্যাচারাল স্কিন ব্লিচ


৩। স্কিনের চুলকানি-জ্বালা দূর করে


৪। অ্যান্টি-অ্যাকনে


৫। ড্যামেজ থেকে রক্ষা করে


৬। চোখের তলায় ফোলাভাব দূর করে


৭। ন্যাচারাল ফেস স্ক্রাব


৮। স্কিন ময়েশ্চারাইজার


৯। ডার্ক সার্কলস দূর করে


চুলের জন্য - Chamomile Tea Benefits For Hair


১। হেয়ার কালার এনরিচ করে


২। খুশকি দূর করে


স্বাস্থ্যের জন্য - Chamomile Tea Benefits For Health


১। পেশির ব্যথা কমায়


২। পিরিয়ডসের সময় পেটের ব্যথা দূর করে


৩। আলসারের ব্যথা দূর করে


৪। ইমিউনিটি বাড়ায়


৫। শরীরে glucose level নিয়ন্ত্রণ করে


৬। অ্যালার্জি প্রতিরোধ করে


৭। মাইগ্রেনের ব্যথা দূর করে


৮। ঘুমে সাহায্য করে


স্কিন কেয়ার - Skin Care


১। ন্যাচারাল ক্লিনজার হিসেবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ক্যামোমাইল চা। কারণ এর মধ্যে রয়েছে দারুণ অ্যান্টি অক্সিড্যান্টস, ক্লিনজিং, ময়েশ্চারাইজিং আর হিলিং প্রপার্টিজ। তাই স্কিন (Skin) কেয়ারের জরুরি উপাদান ক্যামোমাইল চা (Chamomile Tea)। স্কিনে (Skin) কোনও ক্ষত তৈরি হয়েছে, যা অনায়াসে সারিয়ে তুলবে ক্যামোমাইল চা (Chamomile Tea)। প্রাচীন কালে স্কিনের ক্ষত সারাতে ক্যামোমাইল চা ব্যবহার করতেন গ্রিক, মিশরীয় এবং রোমানেরা।


২। ন্যাচারাল স্কিন ব্লিচ হিসেবেও কাজ করে ক্যামোমাইল চা। আপনার কমপ্লেকশনকে লাইট করে ও স্কিনে একটা ন্যাচারাল গ্লো এনে দেয়। স্কিনের দাগ-ছোপ দূর করতেও অত্যন্ত কার্যকর এই ক্যামোমাইল চা (Chamomile Tea)।


৩। মাঝেমধ্যে কি আপনার স্কিনে Rash বের হয়? বা জ্বালা করে? তা হলে ব্যবহার করে দেখুন ক্যামোমাইল টি। যে হেতু এর মধ্যে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টস রয়েছে, তাই আপনার স্কিনের ইরিটেশন নিমেষে দূর করবে। এমনকি একজিমার মতো রোগও অনায়াসে সারিয়ে তোলে ক্যামোমাইল চা। কারণ এর মধ্যে রয়েছে অ্যান্টি-সেপটিক প্রপার্টিও।


৪। ব্রণর (Acne) সমস্যা দেখা দিলে তো জীবনই দুর্বিষহ হয়ে ওঠে। আর কোনও অনুষ্ঠান বা প্রেজেন্টেশনের আগে হলে তো আত্মবিশ্বাস ভেঙেই যায়। তাই ব্রণর (Acne) মতো সমস্যা সারাতে ব্যবহার করতে হবে ক্যামোমাইল চা (Chamomile Tea)। কারণ এর মধ্যে থাকা অ্যান্টি-অক্সিড্যান্টসই দূর করবে আপনার ব্রণ। আর ব্রণ চলে গেলেও ব্রণর দাগ কিন্তু থেকেই যায়। সেটা দূর করতেও সেই ক্যামোমাইল টি-ই!


৫। ঘুম থেকে উঠলেই চোখের নীচে ফোলাভাব দেখা দেয়। বা ঘুম সে ভাবে ভাল করে না হলে চোখে ক্লান্তির একটা ছাপ পড়ে। তাই ক্লান্তি দূর করতে চোখের নীচে ঠান্ডা ক্যামোমাইল টি-ব্যাগ ধরুন। দেখবেন, এই সমস্যাটা একেবারে দূর হয়ে গিয়েছে।


৬। ন্যাচারাল ফেসিয়াল স্ক্রাব হিসেবেও ব্যবহার করা যায় এই ক্যামোমাইল টি (Chamomile Tea)। গুঁড়ো দুধের সঙ্গে ক্যামামোইল চা ব্লেন্ড করে নিয়ে মুখে স্ক্রাব হিসেবে ব্যবহার করুন। এমনকি বডিস্ক্রাব হিসেবেও ব্যবহার করা যাবে। এটা আপনার স্কিনের শুকনো ও মৃত স্কিন দূর করবে।


৭। রোজ নিয়ম করে খান ক্যামোমাইল চা। স্কিন থাকবে দারুণ। এর মধ্যে রয়েছে দারুণ ময়েশ্চারাইজিং প্রপার্টি। স্কিনের গভীরে গিয়ে ময়েশ্চারাইজ করে ক্যামোমাইল চা (Chamomile Tea)।


৮। ছোট ছোট প্যাকেটে ক্যামোমাইল চা নিন। অথবা আইস ট্রে-র মধ্যে ক্যামোমাইল টি নিয়ে বরফ আকারে জমিয়ে নিতে হবে। এ বার ওই প্যাকেটের বা আইসকিউবের ক্যামোমাইল টি আপনার চোখের তলায় ঘষতে থাকুন। পাঁচ মিনিট পরে ঠান্ডা জল দিয়ে চোখ ধুয়ে ফেলুন। যা আপনার ডার্ক সার্কলস দূর করবে অনায়াসেই।


৯। রোদে বেরোলেই স্কিনে (Skin) নানা রকম সমস্যা দেখা দেয়? সূর্যের ক্ষতিকর আলট্রা-ভায়োলেট রশ্মিই তার জন্য দায়ী। যে হেতু ক্যামোমাইল চা-এর মধ্যে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি অক্সিড্যান্টস রয়েছে। এ ছাড়া সুদিং ও অ্যান্টি ইনফ্ল্য়ামেটরি প্রপার্টি রয়েছে, তাই ক্যামোমাইল চা (Chamomile Tea) বানিয়ে সেটা ঠান্ডা করে তার মধ্যে একটা পরিষ্কার তোয়ালে ডুবিয়ে নিয়ে রোদে পুড়ে যাওয়া স্কিনে লাগাতে থাকুন। সমস্যা অনেকটাই দূর হবে।


হেয়ার-কেয়ার - Hair Care


১। ব্লন্ড হেয়ার (Hair) ক্যামোমাইল চা (Chamomile Tea) দিয়ে ধুয়ে নিলে আরও উজ্জ্বল হয়ে উঠবে। আর সঙ্গে সঙ্গেই এর প্রভাবটা দেখা যাবে। আর হেনার সঙ্গে মিশিয়ে ব্যবহার করলে ডার্ক চুলে ন্যাচারাল হাইলাইট হিসেবে কাজ করে ক্যামোমাইল টি। আর ব্রাউন হেয়ারের ক্ষেত্রে যদি ক্যামোমাইল চা দিয়ে চুল ধুয়ে নেন, তা হলে চুলে একটা সোনালি আভা দেখতে পাবেন। এমনিতে শ্যাম্পু করার পরে চুল ক্যামোমাইল চা দিয়ে ধুলে একটা আলাদাই শাইন দেখা যাবে।


২। খুশকির সমস্যায় জেরবার? চুল জৌলুস হারাচ্ছে? রোজ শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুলেও স্ক্যাল্পে চুলকানি হচ্ছে? তা হলে ব্যবহার করুন ক্যামোমাইল স্প্রে। এর জন্য একটা প্যান জল ফুটিয়ে নিন। ফুটন্ত জলের মধ্যে এক মুঠো ক্যামোমাইল ফুল ফেলে দিন। এর পর জল ফুটতে শুরু করলে ধীরে ধীরে জলের কালার চেঞ্জ হবে। এ বার এই সিরামটা ঠান্ডা করে নিন। একটা পরিষ্কার স্প্রে বোতলে ভরে ফ্রিজে রেখে দিতে হবে। যখনই স্ক্য়াল্প চুলকোবে, তখনই স্প্রে করে নিন ক্যামোমাইল স্প্রে। সঙ্গে সঙ্গেই দূর হবে চুলকানির সমস্যা।


chamomile flower1


হেল্থ কেয়ার - Health Care


১। ক্যামোমাইলের মধ্যে রয়েছে অ্যান্টিস্প্যাসমোডিক ও অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি প্রপার্টিজ। যা পেটের ও অন্ত্রের ক্র্যাম্পস সারাতে খুবই কার্যকর। পেটের সমস্যা, কোষ্ঠকাঠিন্য, গ্যাস, পেট ফোলা কমাতেও গুরুত্বপূর্ণ ক্যামোমাইল। তাই দিনে অন্তত ২ বার করে ক্যামোমাইল চা (Chamomile Tea) খেলে এই সব সমস্যা দূরে পালাবে।


২। পিরিয়ডসের সময় ক্র্যাম্পস প্রায় সব মেয়েরই হয়। তারও একটাই সলিউশন ক্যামোমাইল টি। এটি ইউটেরাসের পেশিকে শিথিল করে এবং গ্লাইসিন লেভেল বাড়িয়ে দেয়। যা ক্র্যাম্পস দূর করতে সাহায্য করে।


৩। নিয়মিত ক্যামোমাইল চা পান করলে আলসারের ব্যথা সারবে। তা ছাড়া ধরুন, কিছু দিন আগেই আপনার স্টমাক স্টোন অপারেশন হয়েছে। সে ক্ষেত্রে ক্যামোমাইল চা খেলে উপকার পাবেন। আবার স্টোন তৈরি হওয়ার সম্ভাবনাও দূর হবে।


৪। খুব ঠান্ডা লাগার সমস্যায় ভোগেন? আর ঠান্ডা লাগলেই সর্দি-কাশি-জ্বর হচ্ছে। ব্যাকটেরিয়াঘটিত সংক্রমণ হলে ক্যামোমাইল চা (Chamomile Tea) খেতে হবে। কারণ ক্যামোমাইলের মধ্যে রয়েছে অ্যান্টি-ব্যাক্টেরিয়াল প্রপার্টিজ। আর নাক দিয়ে জল পড়া, গলা ব্যথা ঠেকাতে ক্যামোমাইল চায়ের ভেপার নিন। এই সব সমস্যা সঙ্গে সঙ্গে দূর হবে।


৫। অ্যালার্জি বা স্কিন Rash-এর ক্ষেত্রে কার্যকর ক্যামোমাইল টি (Chamomile Tea)। ঠান্ডা ক্যামোমাইল চায়ে একটা তুলোর বল ভিজিয়ে নিয়ে যেখানে যেখানে অ্যালার্জি হয় বা rash বের হয়, সেখানে লাগাতে থাকুন। সমস্যা দূর হবে। আর যদি ভিতর থেকে অ্যালার্জির সমস্যা সারাতে চান, সে ক্ষেত্রে ক্যামোমাইল চা পান করতে হবে।


৬। মাইগ্রেনের ব্যথায় কষ্ট পাচ্ছেন? তা হলে খেয়ে নিন এক কাপ গরম গরম ক্যামোমাইল টি। আসলে মাইগ্রেনের একটা অন্যতম কারণ হচ্ছে, টেনশন। ক্যামোমাইল টি সেটা দূর করে আপনাকে মাইগ্রেনের ব্যথা থেকে মুক্তি দেয়।


৭। ইনসমনিয়া বা অনিদ্রার সমস্যায় ভুগলে নিয়মিত খান ক্যামোমাইল টি। এটা আপনার ঘুমে সাহায্য করবে। অনেক সময় তাড়াতাড়ি ঘুমোতে যাবেন ভেবে বিছানায় চলে যান। অথচ ঘুম আসতে চায় না। সে ক্ষেত্রেও ক্যামোমাইল চা খুবই কার্যকর।


৮। কয়েক ধরনের ক্যান্সারও প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে ক্যামোমাইল চা। কারণ এর মধ্যে রয়েছে অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট এপিজেনিন। কিছু গবেষণায় দেখা গিয়েছে, এপিজেনিন ব্রেস্ট, স্কিন, প্রস্টেট, ইউটেরাসের ক্যান্সার সেলের সঙ্গে লড়াই করে। অন্য একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে, প্রতি সপ্তাহে যাঁরা অন্তত ২-৬ বার ক্যামোমাইল চা (Chamomile Tea) পান করেছেন, তাঁদের থাইরয়েড ক্যান্সার হয়নি।


৯। ডায়াবেটিকদের জন্যও অত্যন্ত উপকারী (Benefits) ক্যামোমাইল চা। ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এটি।


chamomile-water


ক্যামোমাইল চা (Chamomile Tea) আপনার স্কিন, চুল আর স্বাস্থ্য়ের জন্য তো দারুণ। কিন্তু বাচ্চাদের জন্য কি এটা নিরাপদ? অবশ্যই। ক্যামোমাইল টি বা ক্যামোমাইলের জল খাওয়ালে বাচ্চাদের উপকারই হবে।


দাঁতের ব্যথা - Tooth Pain Relief


বাচ্চার যখন দাঁত ওঠে, তখন ব্যথায় কষ্ট পায় ওরা। সেই সময় ঘ্যানঘ্যান করতে থাকে। সে ক্ষেত্রে ক্যামোমাইল চায়ে ভেজানো একটা পরিষ্কার কাপড় ওদের হাতে দিয়ে চিবোতে দিন। এতে ব্যথা অনেকটাই কমে আরাম হবে ওদের।


ঘুমপাড়ানি - Cure Sleep Deprivation


আপনার বাচ্চার ঘুম (Sleep) পুরো হচ্ছে তো? না হলেই ওরা ঘ্যানঘ্যান করবে। মুড খিটখিটে হয়ে থাকবে। সে ক্ষেত্রেও ক্যামোমাইল টি কার্যকর। ঠিক আপনাকে যেমন ইনসমনিয়া (Insomnia) থেকে দূরে রাখে, সে রকম ভাবেই আপনার বাচ্চাকেও ঘুমোতে সাহায্য করে। ঘুমোতে যাওয়ার আগে অল্প পরিমাণে ক্যামোমাইল চা (Chamomile tea) নিজের বাচ্চাকে দিন। এতে ওরা ভাল করে ঘুমোতে (Sleep) পারবে।


পেট ব্যথা আর হজমে - Stomach Pain And Indigestion


বাচ্চারা হামেশাই পেটের নানা অসুখে ভোগে। ডায়েরিয়া, কনস্টিপেশন, গ্যাসের মতো সমস্যায় ভোগে। মাঝেমধ্যে পেটের ব্যথা হয়। এই ধরনের সমস্যায় বাচ্চাদের অল্প করে ক্যামোমাইল চা দিন। এর মধ্যেকার অ্যান্টি-ব্যাক্টেরিয়াল ও অ্য়ান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি প্রপার্টি রয়েছে। যা পেটের সমস্যাকে দূরে রাখে আর বাচ্চাদের ইমিউনিটি সিস্টেমকেও হেলদি করে।


chamomile tea and benefits edited


ক্যামোমাইল চা এর সাইড এফেক্টস - Chamomile Tea Side Effects In Bengali


এ তো নয় গেল ক্যামোমাইল চায়ের গুণাগুণ আর উপকারিতা (Benefits)। তবে এর কিছু কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া ও (Side Effects) রয়েছে। যেমন-


  • বেশি পরিমাণে আবার ক্যামোমাইল চা (Chamomile Tea) খেলে অ্যালার্জিক রিঅ্যাকশন দেখা দিতে পারে। এমনকি স্কিনে-চোখে চুলকানি-জ্বালা হতে পারে।

  • অতিরিক্ত ক্যামোমাইল টি পান করলে বমি হওয়ার সম্ভাবনাও থাকে।

  • প্রেগন্যান্সির (Pregnancy) সময়েও এড়িয়ে চলতে হবে ক্যামোমাইল চা। কারণ মিসক্যারেজ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। অনেক সময় প্রিম্যাচিওর ডেলিভারিও হয়ে যায়।


ছবি সৌজন্যে: পিন্টরেস্ট


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি এবং বাংলাতেও!