চশমা পরেন বলে কি Eye Makeup-এ বাধা আছে?

চশমা পরেন বলে কি Eye Makeup-এ বাধা আছে?

বিয়েবাড়ি কিম্বা পার্টিতে যাবার আগে সুন্দর করে চুল বাঁধলেন, দারুণ একটা মানানসই জামা পরলেন, তার সাথে সামঞ্জস্য রেখে মেকআপও করলেন, বিশেষ করে আপনার “স্মোকি আইস” আজ একদম নিখুঁত হয়েছিল, কিন্তু এতোকিছু করার পরে সেই চশমা গলিয়ে নিলেন! ব্যস, হয়ে গেল! এতো কষ্ট করে ধৈর্য ধরে যে চোখের মেকআপ করলেন, কেউই দেখতে পেলনা। এরকম পরিস্থিতিতে কার না মন খারাপ হয় বলুন? কিন্তু আপনি আবার লেন্সও পরতে পারেন না। তাহলে উপায়? আরে বাবা, বলে দিচ্ছি তো কীভাবে চশমা পরেও Gorgeous Eye Makeup ‘শো অফ’ করা যায় –


১। চশমার সঠিক ফ্রেম বাছাটা কিন্তু খুব জরুরি


অনেকেই আছেন যারা নিজেদের মুখের শেপ অনুযায়ী চশমা পরেন না এবং তার ফলে তাদের লুকটাই অনেক বদলে যায়। যেমন যাদের মুখ গোলাকার তাদের জন্য একরকম ফ্রেম, আবার যাদের মুখ চৌকো তাদের জন্য অন্য শেপের ফ্রেম পাওয়া যায়। নিজের মুখের আদল দেখে তারপরেই চশমা বাছা উচিত। ধরুন আপনার মুখের আকার গোল আর আপনি চশমাও পরলেন গোল ফ্রেমের, তাহলে আপনার মুখটা আরও বেশি গোল দেখাবে, আপনার উচিত আয়তাকার কিম্বা বাটারফ্লাই ফ্রেম পরা, তাতে মুখের সাথে বেশ মানিয়ে যাবে।


২। সঠিক কারেক্টর এবং কন্সিলার ব্যবহার করুন


eye-makeup-tips-for-those-wear-glasses 02যারা নিয়মিত চশমা পরেন তাদের নাকের পাশে ফ্রেমের দাগ হয়ে যায়। যখন চোখের মেকআপ (eye makeup) করবেন মনে করে কন্সিলার দিয়ে ওই দাগটা ঢেকে দিতে ভুলবেন না। আজকাল স্ট্রেস, দূষণ, ঠিক করে ঘুম না হওয়া, খাওয়া-দাওয়ার অনিয়ম এবং লিভারের সমস্যা থেকেও অনেকের চোখের নিচে কালি পড়ে যাকে আমরা ডার্ক সার্কেল বলি। যারা চশমা পরেন, তাদের মধ্যে অনেকেই চোখের মেকআপ করার সময় ডার্ক সার্কেল ঢাকেন না, কারন তারা ভাবেন যে চশমা তো পরাই আছে, ডার্ক সার্কেল দেখা যাবে না। এটা কিন্তু ভীষণ ভুল ধারনা। চশমা পরেলও চোখের মেকআপ করার সময় সঠিক কন্সিলার এবং কারেক্টর ব্যবহার করুন, এতে আপনার চোখ বেশ হাইলাইটেডও হবে।


আপনি চাইলে ববি ব্রাউনের ক্রিমই কন্সিলার কিট ব্যবহার করতে পারেন। 


৩। একটু রঙ নিয়ে খেলতে পারেন


eye-makeup-tips-for-those-wear-glasses 03সব সময় সেই কালো আইলাইনার না লাগিয়ে অন্য কোন রঙের আইলাইনার ব্যবহার করতে পারেন। ইলেকট্রিক ব্লু, টারকোইস, ওয়ার্ম ব্রাউন এইসব রঙ লাগান। এমনিতেই চশমা পরেন বলে চোখ বিশেষ একটা দেখা যায় না, তার ওপর যদি ডার্ক মেকআপ করেন, তাহলে তো আরোই বোঝা যাবে না এবং দেখতেও খুব একটা ভালো লাগবে না। আর ওয়ার্ম কালারের আইলাইনার লাগানোর সুবিধে হল যে কোন কমপ্লেক্সনে এই রঙগুলি খুব মানিয়ে যায়। চাইলে উইংড কিম্বা ক্যাট আই স্টাইলে আইলাইনার লাগাতে পারেন।


আপনি চাইলে ল্যাকমে করিনা কাপুর খান অ্যাবসল্যুট আই ডিফাইনার ব্যবহার করতে পারেন।


৪। আইশ্যাডো খুব ইম্পরট্যান্ট


eye-makeup-tips-for-those-wear-glasses 04ঠিক যেমন আইলাইনারের ক্ষেত্রে বললাম, আইশ্যাডোর ক্ষেত্রেও গাঢ় শেডের প্যালেট বাছবেন না, তার চেয়ে বরং একটু সফট প্যালেট বাছুন। সফট পিঙ্ক কিম্বা ন্যুড অথবা প্যাস্টেল শেড থেকে যেকোনো একটা কিম্বা একাধিক রঙ বেছে নিয়ে সুন্দর করে ব্লেন্ড করুন। যদি আপনি দুটি কিম্বা তার বেশি রঙ বাছেন আইশ্যাডোর ক্ষেত্রে, তাহলে মনে রাখবেন যেন সবকটি রঙ একই কালার ফ্যামিলির হয়; অর্থাৎ যদি একটা রঙ গোলাপি হয় তাহলে যেন বাকি শেডগুলিও গোলাপিঘেঁষাই হয়। হ্যাঁ, কিছু কিছু অনুষ্ঠানে একটু চিকমিকে আইশ্যাডো লাগাতে হয় ঠিকই, সেক্ষেত্রে খুব ভালো করে ব্লেন্ড করতে ভুলবেন না।


আপনি চাইলে "এল এ গার্ল বিউটি ব্রিক আইশ্যাডো - ন্যুডস" প্যালেট ব্যাবহার করতে পারেন।


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!


এগুলোও আপনি পড়তে পারেন


কিভাবে করবেন কাট ক্রিজ আই মেকআপ