ত্বকের যত্নে অলিভ অয়েল! (benefits of olive oil for skin)

ত্বকের যত্নে অলিভ অয়েল! (benefits of olive oil for skin)

এই তেলটিকে যদি রান্নার কাজে লাগানো হয়, তাহলে যেমন ক্যান্সারের মতো রোগ দূরে পালাতে বাধ্য হয়, তেমনি ডায়াবেটিস, ডিপ্রেশন, হাই কোলেস্টেরল এবং কনস্টিপেশনের মতো সমস্যাও আর ধারে কাছে ঘেঁষতে পারে না। আর যদি ত্বকের পরচির্যায় অলিভ অয়েলের সাহায্য নেওয়া হয়, তাহলে তো কথাই নেই। কারণ এই তেলটি নিয়মিত মুখে এবং সারা শরীরে লাগিয়ে যদি ৫-১০ মিনিট মাসাজ করা যায় (olive oil for face massage benefits), তাহলে ত্বকের সৌন্দর্য তো বৃদ্ধি পায়ই, সেই সঙ্গে আরও একাধিক উপকার মেলে। যেমন ধরো...


১. ত্বকের আর্দ্রতা বজায় থাকে:


olive-oil-dry
নিয়মিত অলিভ অয়েল মাসাজ করলে ত্বকের ভিতরে ভিটামিন ই-এর মাত্রা বাড়তে শুরু করে, যে কারণে সূর্যের অতি বেগুনী রশ্মির প্রভাবে স্কিনের কোনও ধরনের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা যেমন দূর হয়, তেমনি ত্বকের হারিয়ে যাওয়া আর্দ্রতা ফিরে আসতেও সময় লাগে না। এমন উপকার পেতে স্নান করার পর এমনভাবে গা মুছতে হবে যাতে অল্প জল থেকে যায়। এমন অবস্থায় পরিমাণ মতো অলিভ অয়েল নিয়ে সারা শরীরে এবং মুখে লাগিয়ে কিছুক্ষণ মাসাজ করতে হবে, যাতে ত্বকের ভিতর পর্যন্ত পৌঁছে যেতে পারে তেলটা (olive oil)। এই ভাবে প্রতিদিন ত্বকের পরিচর্যা করলে দেখবে ফল মিলবে একেবারে হাতে-নাতে! 


২. ত্বকের জেল্লা বাড়বে:


olive-oil-brightness
অল্প সময়েই স্কিন টোনের উন্নতি ঘটুক এমনটা যদি চাও, তাহলে নিয়মিত অলিভ অয়েল মাসাজ মাস্ট! কারণ এমনটা করলে ত্বকের ভিতরে ভিটামিন ই এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সহ এমন কিছু উপাদানের মাত্রা বাড়তে শুরু করে, যার প্রভাবে স্কিনের প্রদাহ বা ইনফ্লেমেশন তো কমেই, সেই সঙ্গে ত্বকের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটে চোখে পড়ার মতো। ফলে স্বাভাবিকভাবেই স্কিনের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পেতে সময় লাগে না। শুধু তাই নয়, ব্রণ এবং সোরিয়াসিসের মতো ত্বকের সমস্যাও ধারে কাছে ঘেঁষার সুযোগ পায় না।


এখন প্রশ্ন হল এত সব উপকার পেতে কীভাবে কাজে লাগাতে অলিভ অয়েলকে (how to use olive oil for face glow)? এক্ষেত্রে হাফ কাপ দই নিয়ে তাতে পরিমাণ মতো মধু এবং ২ চামচ অলিভ অয়েল মিশিয়ে নিতে হবে। তারপর সেই মিশ্রনটা মুখে লাগিয়ে কম করে ২০ মিনিট অপেক্ষা করতে হবে। সময় হয়ে গেলে হালকা গরম জল দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে মুখটা। সপ্তাহে একবার এইভাবে ত্বকের দেখভাল করলেই ফল মিলতে শুরু করবে।


৩. ত্বকের বয়স কমবে:


olive-oil-lips
২ চামচ অলিভ অয়েলের সঙ্গে ১ চামচ লেবুর রস এবং এক চিমটে সৈন্ধব লবণ মিশিয়ে সেই মিশ্রনটি সারা মুখে লাগিয়ে ধীরে ধীরে মাসাজ করতে হবে। এমনটা করলে একদিকে যেমন বলিরেখা সব উধাও হয়ে যাবে, তেমনি ত্বকের শুষ্কতাও দূর হবে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই ত্বক সুন্দর হয়ে উঠবে। সেই সঙ্গে ত্বকের বয়সও কমবে চোখে পড়ার মতো (olive oil for face wrinkles)!


৪. ঠোঁটের যত্নে অলিভ অয়েল:


olive-oil-skin-age
সারা বছর ঠোঁট থাকুক তুলতুলে নরম, এমনটা যদি চাও, তাহলে কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েলের সঙ্গে অল্প করে লেবুর রস এবং ব্রাউন সুগার মিশিয়ে সেটি ঠোঁটে লাগিয়ে কম করে ৫ মিনিট মাসাজ করতে ভুলো না যেন (olive oil for lips)! প্রসঙ্গত, নিয়মিত এমনটা করলে লিপসের উপরে জমে থাকা মৃত কোষের স্তর যেমন সরে যাবে, তেমনি ঠোঁটের আর্দ্রতা বাড়বে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই লিপসের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পেতে দেখবে সময়ই লাগবে না।


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!


এগুলোও আপনি পড়তে পারেন


সুন্দর চুলের যত্নে ব্যবহার করুন ক্যাস্টর ওয়েল বা রেড়ির তেল