ক্যালসিয়াম ডেফিসিয়েন্সিতে ভুগছো না তো? (best Home Remedies For Calcium Deficiency)

ক্যালসিয়াম ডেফিসিয়েন্সিতে ভুগছো না তো? (best Home Remedies For Calcium Deficiency)

আজ নারী দিবস। সারা দুনিয়া জেগে উঠেছে মেয়েদের জয়গান গাইতে। কিন্তু ওই ব্যাস একদিনই। কারণ আজকের সমাজ মেয়েদের কথা মনে রাখতে চায় না। তাই তো দুদিন পরেই দেখবে সব ঠান্ডা হয়ে গেছে। কিন্তু তাই বলে মেয়েরা নিজেদের খেয়াল রাখবে না, তা কেমন করে হয় বলো! তাই তো আজ নিজেকে কথা দাও যে শরীরের খেয়াল রাখবে, খেয়াল রাখবে মনেরও। কারণ শরীর যদি ভিতর থেকে শক্তিশালী হয়ে না ওঠে, তা হলে মনও যে দুর্বল হয়ে পড়বে। আর এমনটা হলে নারী শক্তির বিজয় রথ যে মাঝ পথেই থেমে যাবে, তাই না!


শরীরকে ভিতর থেকে মজবুত করে তুলতে প্রথমেই দেখে নিতে হবে ক্যালসিয়াম (calcium) ডেফিসিয়েন্সি হয়নি তো। কারণ আমেরিকান জার্নাল অব ক্লিনিকাল নিউট্রিশনের রিপোর্ট অনুসারে আজ সারা বিশ্বেই মহিলাদের মধ্যে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি দেখা দেওয়ার মতো ঘটনা চোখে পড়ার মতো বৃদ্ধি পয়েছে। পিছিয়ে নেই ভারতও। ২০১৭ সালে প্রকাশিত এক রিপোর্ট অনুসারে ভারতীয় মহিলাদের সিংহভাগেরই শরীরে দৈনিক ৪০০ এমজি ক্যালসিয়ামেরও প্রবেশ ঘটে না, যেখানে একজন প্রাপ্তবয়স্ক মহিলাকে প্রতিদিন কম করে ১০০০-১৩০০ এমজি ক্যালসিয়াম গ্রহণ করা উচিত।


এত পরিমাণে ক্যালসিয়ামের ঘটতি হলে স্বাভাবিকভাবেই হাড় তো দুর্বল হয়ে পরেই, সেই সঙ্গে শরীরের ক্ষমতাও কমতে শুরু করে। তাই সময় থাকতে থাকতে সাবধান হওয়াটা জরুরি। না হলে বিপদ যে বাড়বে, তা আর বলার আপেক্ষা রাখে না! এখন প্রশ্ন হল ক্যালসিয়ামের ঘাটতি মেটাতে কী কী করণীয় (best Home Remedies For Calcium Deficiency)?


১. নিয়মিত খেতে হবে আমলকি:


calcium-1
এই ফলটির শরীরে মজুত রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ক্যালসিয়াম, যা শরীরে প্রবেশ করা মাত্র দেহের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে যেমন শক্তিশালী করে তোলে, তেমনি হাড়ের যাতে কোনও ধরনের ক্ষতি না হয়, সেদিকেও খেয়াল রাখে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই নানাবিধ রোগ-ব্যাধিতে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা প্রায় থাকে না বললেই চলে (home remedies)। আর শরীর যখন রোগমুক্ত হয়ে ওঠে তখনই তো প্রকৃত অর্থে নারী শক্তির বিজয় ঘটে, কি তাই না!


২. তিল:


calcium-2
ক্যালসিয়ামের ঘাটতি দূর করতে এই প্রাকৃতিক উপাদানটির কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে (calcium rich food)। কারণ এক চামচ তিল খেলে প্রায় ৮৮ এমজি ক্যালসিয়ামের প্রবেশ ঘটে শরীরে। তাই তো নিয়মিত কয়েক চামচ তিল খাওয়া শুরু করলে যে বেজায় উপকার মেলে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। এক্ষেত্রে পরিমাণ মতো তিল নিয়ে তা গুঁড়ো করে স্যুপে অথবা স্যালাডে মিশিয়েও খেতে পারো। ইচ্ছা হলে সরাসরি খাওয়াও চলতে পারে।


৩. দুধ:


calcium-3
এক গ্লাস দুধে ১ চামচ তিলের গুঁড়ো মিশিয়ে খাওয়া শুরু করলে দারুন উপকার পাওয়া যায়। আর যদি দিনে তিন গ্লাস দুধ খেতে পারো, তাহলে তো কথাই নেই! কারণ এমনটা করলে শরীরে ক্যালসিয়ামের ঘটতি দেখা দেওয়ার আশঙ্কা যেমন কেম, তেমনি নানাবিধ হাড়ের রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাও আর থাকে না।


৪. জিরা:


calcium-4
একেবারে ঠিক শুনেছো! বাস্তবিকই ক্যালসিয়ামের চাহিদা মেটাতে এই প্রাকৃতিক উপাদানটি বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। এক্ষেত্রে এক গ্লাস জল ফুটিয়ে নিয়ে তাতে ১ চামচ জিরা মিশিয়ে সেই জল পান করলে দারুন উপকার পাওয়া যায়। আর যদি সপ্তাহে ২-৩ বার এই বিশেষ পানীয়টি পান করতে পারো, তাহলে তো আর কোনও চিন্তাই থাকবে না। কারণ সেক্ষেত্রে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি দেখা দেওয়ার আশঙ্কা যাবে কমে।


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!