পিলাটিস: এই নতুন ধরনের এক্সারসাইজ করলে ওজন কমবে তরতরিয়ে!

পিলাটিস: এই নতুন ধরনের এক্সারসাইজ করলে ওজন কমবে তরতরিয়ে!

ওজন কমাতে চান? জিমে যান, ঘাম ঝরান, সঙ্গে ডায়েটিংটাও ধরে ফেলুন! তবেই না ওজন কমবে! কিন্তু আমরা বলছি যে, অত সব দরকার নেই। স্রেফ একখানা যোগা ম্য়াট কিনুন আর শুরু করুন পিলাটিস (pilates), হালফিলের সবচেয়ে হ্য়াপেনিং এক্সারসাইজ ফর্ম। বিশেষজ্ঞদের মতে, নিয়মিত যদি এই বিশেষ ধরনের শরীরচর্চা করা যায়, তা হলে মেদ তো ঝরেই, সেই সঙ্গে শরীরের প্রতিটি পেশির ক্ষমতা এতটাই বেড়ে যায় যে ছোট-বড় কোনও রোগই ধারেকাছে ঘেঁষতে পারে না (Health Benefits of Pilates Exercise)।


পিলাটিস এক্সারসাইজ আসলে ঠিক কী?


h-1 final


জার্মানির বিখ্যাত জিমন্যাস্ট জোসেফ পিলাটিস এই বিশেষ ধরনের শরীরচর্চাটির উদ্ভাবক। তাই তাঁর নাম অনুসারে এই এক্সারসাইজ ফর্মটির নাম রাখা হয়েছে পিলাটিস। এই ধরনের শরীরচর্চার মূল লক্ষ্য হল শরীরের কোর স্ট্রেংথ বাড়িয়ে তোলা। সেই সঙ্গে শরীরের গঠন ঠিক রাখতে এবং ক্ষমতা বাড়াতেও এই এক্সারসাইজের জবাব নেই (benefits of pilates exercise)। যোগাসনের মতো পিলাটিসের ক্ষেত্রেও শরীর এবং মন একই সঙ্গে কাজ করে। এই এক্সারসাইজ অনেকটা যোগাসনেরই মতো, তাই একবার শিখে নিলে যে-কারও পক্ষে বাড়িতেই নিয়মিত এই শরীরচর্চা করা সম্ভব।


সকলেই করতে পারেন পিলাটিস:


h-2
আট থেকে আশি, যে কোনও বয়সের মানুষই পিলাটিস করতে পারেন। তবে, যদি আপনার শরীরে কোনও চোট থাকে অথবা চিকিৎসক যদি কোনও বিশেষ ধরনের শরীরচর্চা করতে আপনাকে বারণ করে থাকেন, তা হলে পিলাটিস না করাই ভাল। গর্ভবতী মহিলারাও নির্দ্বিধায় পিলাটিস করতে পারেন। রিসার্চ বলছে, গর্ভবতী মহিলারা যদি নিয়মিত এই শরীরচর্চা করেন, তা হলে প্রসবের সময় অনেক ধরনের জটিলতার হাত থেকে নাকি রেহাই পাওয়া সম্ভব। এই সময় যাঁরা নিতম্ব এবং লোয়ার ব্যাক মাসলের জোর বাড়াতে চান, তাঁরা পিলাটিসে মন দিন। তবে গর্ভাবস্থায় যে-কোনও নতুন শরীরচর্চা শুরু করার আগে একবার অবশ্য়ই চিকিৎসকের সঙ্গে আলোচনা করে নেবেন।


মনে রাখুন


যারা আগে কোনওদিন কোনওরকম এক্সারসাইজ করেননি, তাঁরা প্রথমেই অনেকক্ষণ ধরে পিলাটিস করবেন না। বরং প্রথম কয়েকদিন এক-একটা ব্যায়াম ৩০ সেকেন্ড করে করুন। যত দিন যাবে, আস্তে-আস্তে সময় বাড়িয়ে প্রতিটি আসন এক মিনিট পর্যন্ত করতে পারেন। আর হ্য়াঁ, পিলাটিস শুরু করার আগে কিছুক্ষণ ওয়র্ম আপ করে নিতে ভুলবেন না যেন!


পিলাটিস-এর উপকারিতা


১. শরীরের ক্ষমতা বৃদ্ধি:


h3
শরীরের কোনও বিশেষ অংশের নয়, নিয়মিত পিলাটিস করলে শরীরের প্রতিটি পেশির ক্ষমতা বাড়তে শুরু করে। আর পিলাটিস করার সময় যেহেতু শরীর এবং মস্তিষ্ক এক সঙ্গে কাজ করে, ফলে শরীরের প্রতিটি অংশ চনমনে হয়ে ওঠে (benefits of pilates)।


২. ফ্লেক্সিবিলিটি বাড়ে:


h-4
বয়স বাড়লেও শরীরের নমনীয়তা যাতে না কমে, তা সুনিশ্চিত করতে নিয়মিত এই এক্সারসাইজ করুন। আসলে পিলাটিস রুটিনে এমন কিছু আসন আছে, যা হাত, পা, কোমরসহ শরীরের বিশেষ কিছু পেশির ক্ষমতা অনেকটা বাড়িয়ে দেয়। ফলে স্বাভাবিকভাবেই ফ্লেক্সিবিলিটি বাড়তে বেশি সময় লাগে না।


৩. বডি পশ্চারের উন্নতি:


h-5
একটু ভেবে দেখুন, আমাদের সকলেরই কিন্তু শরীরের গঠন এবং নিজেকে ক্য়ারি করার ধরনে কিছু না-কিছু খামতি আছে। আমরা কেউ কোলকুঁজো, কেউ সোজা হয়ে হাঁটতে পারি না, কারও ঘাড় বেশিক্ষণ সোজা রাখা যায় না ইত্য়াদি ইত্য়াদি। পিলাটিস এই সব রকমের দোষ কাটিয়ে দেওয়ার ক্ষমতা রাখে (advantages of pilates)।


৪. ওজন কমে:


h-6
ক্যালরি মেপে খাবার খাওয়ার পাশাপাশি নিয়মিত যদি পিলাটিস করা যায়, তা হলে পেটের মেদ তো ঝরেই, সেই সঙ্গে শরীরের ইতি-উতি জমে থাকা সব চর্বিও ঝরে যায় (benefits of pilates for weight loss)। শুধু তাই নয়, হজম ক্ষমতার উন্নতি ঘটার কারণে মেদ জমার আশঙ্কাও আর থাকে না।


৫. এনার্জির ঘাটতি দূর হয়:


h-7
যোগাসনের মতই পিলাটিস করার সময় শ্বাস-প্রশ্বাসের উপর বিশেষ নজর দিতে হয়। ফলে স্বাভাবিকভাবেই প্রচুর মাত্রায় অক্সিজেনের প্রবেশ ঘটে শরীরে, যার প্রভাবে এনার্জির ঘাটতি দূর হতে সময় লাগে না। সেই সঙ্গে স্ট্রেস এবং অ্যাংজাইটির প্রকোপও কমে।


বাড়িতে কি পিলাটিস করা সম্ভব?


H-8


নিশ্চয়ই! যোগাসনের মতোই সহজ এই শরীরচর্চা। তাই ইচ্ছে হলে পিলাটিস-এর উপর ইউটিউবে যে সব ভিডিও রয়েছে, তা দেখে বাড়িতেই শুরু করে দিতে পারেন এই শরীরচর্চা। তবে ভিডিও ডাউনলোড করবেন সতর্ক হয়ে, ইন্স্ট্রাক্টরের বিশ্বাসযোগ্য়তা যাচাই করে নিন তাঁর চ্য়ানেলের সাবস্ক্রাইবার সংখ্য়া বা ভিউজ দেখে।


কলকাতায় কোথায় শেখানো হয় পিলাটিস?


কলকাতায় বেশ কয়েকটি পিলাটিস ফিটনেস সেন্টার রয়েছে। যেমন ধরুন-


১. মাসল হাসল
ঠিকানা: পূর্বাঞ্চল, কলকাতা-৭০০০৯৭। ফোন নং- ৯১৫২৮৬৪৭১৪।


২. হ্যালিক্স লাইফস্টাইল
ঠিকানা: ১/১, মিহির অ্যাপার্টমেন্ট, গ্রাউন্ড ফ্লোর, বাগুইআটি, কলকাতা-৭০০০৫৯। ফোন নং- ৯১৫২১০১৭১৫।


৩. হ্যাপি ফিট
ঠিকানা: বি জে ১৭, সেক্টর ২, সেচ ভবন, বি জে মার্কেটের কাছে, কলকাতা-৭০০০৯১। ফোন নং: ৯১৫২৩৮৪৮৫৯।


৪. রাশ ফিটনেস
ঠিকানা: ৩ এ, রামমোহন মল্লিক গার্ডেন লেন, বেলেঘাটা, কলকাতা-৭০০০১০, সল্ট লেক স্টেডিয়ামের উল্টোদিকে। ফোন নং: ৯৮৩৬৭৫৬২০০/৭৬০৩০৩৯৯৭১।


ছবির কৃতজ্ঞতা স্বীকার: wikipedia, instagram


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!