শাড়ি পরুন, কিন্তু কায়দা করে, সক্কলকে চমকে দিয়ে! রইল কয়েকটি ড্রেপিংয়ের সন্ধান

শাড়ি পরুন, কিন্তু কায়দা করে, সক্কলকে চমকে দিয়ে! রইল কয়েকটি ড্রেপিংয়ের সন্ধান

গত কয়েক বছরে মেয়েদের ফ্যাশনে আমূল পরিবর্তন এসেছে। নিত্য নতুন স্টাইলিশ পোশাক পরতে আজ বাঙালি আধুনিকারও কম যান না। তবুও হালফিলের এই ফ্যাশন ঝড়ের মাঝেও শাড়ির প্রতি মেয়েদের টান কিন্তু একটু কমেনি। তাই তো সুযোগ পেলেই মায়ের থেকে শাড়ি ধার করে পরে থাকেন অনেকেই। কিন্তু প্রশ্ন হল, ওয়েস্টার্ন পোশাকের ক্ষেত্রে যে বৈচিত্র এনেছেন, শড়ির পরার স্টাইলে সেই বৈচিত্র নেই কেন? বলবেন, আরও যে স্টাইল আছে সে তো মাথাতেই ছিল না। তাই তো আজ এই প্রতিবেদনে এদেশের জনপ্রিয় কিছু শাড়ির স্টাইল নিয়ে আলোচনা করা হবে। তাই এবার থেকে শাড়ি পরার সময় এই গাইড লাইনটা চোখের সামনে থাকা মাস্ট (ways to drape a saree differently)!


১. বাঙালি স্টাইল


জানেন কি, এখন বাঙালি মেয়েরা যেভাবে সাধারণত শাড়ি পরেন, তা শুরু করেছিলেন ঠাকুরবাড়ির মেয়েরা? তাঁরাই প্রথম ব্লাউজের সঙ্গে শাড়ি পরা শুরু করেন। পরে তা আস্তে-আস্তে জনপ্রিয় হয় এবং শেষকালে এটাই বাঙালি মেয়েদের শাড়ি ড্রেপিংয়ের মূল স্টাইল হয়ে দাঁড়ায়! এই গরমে হালকা রঙের সুতির, তাঁতের বা লিনেনের শাড়ি পরতে পারেন। এবার প্রশ্ন হল ড্রেপ করবেন কী করে?


সাধারণভাবে


ways to drape a saree 3


picture courtesy: instagram


সাধারণ ভাবে শাড়ি পরা আর শেখাচ্ছি না আমরা। ওটা সকলেই জানেন। তবে এক্ষেত্রে আঁচল দেওয়ার ধরনে একটু এক্সপেরিমেন্ট করতে পারেন। সরু করে প্লিট করুন, আঁচল ছেড়ে রাখুন, গলা দিয়ে একবার আঁচল ঘুরিয়ে ব্যাপারটাকে স্কার্ফের মতো করে রাখুন, আপনার ইচ্ছে। ক্যারি করতে পারলে, সব স্টাইলই ভাল লাগবে।


আটপৌরে ধরনে


Ways to drape a saree 2


picture courtesy: instagram 


গোদা বাংলায় বলতে গেলে, আমার-আপনার ঠাকুরমা-দিদিমারা যেভাবে পরতেন, সেভাবে! এটাই এককালে একমাত্র স্টাইল ছিল! কারণ, তখন বাঙালি মেয়েরা বিদেশি কেতায় ব্লাউজ পরতেন না! তাই এমনভাবে শাড়ি পরা হত, যাতে একটুও শরীর দেখা না যায়।


কীভাবে পরবেন: এক্ষেত্রে যেভাবে সাধারণত শাড়ি পরা হয়, সেভাবে একপাক ঘুরিয়ে পরে নিন। তারপর কুঁচি করে নিন। এবার আঁচলটা যেভাবে প্লিট করা হয়, সেভাবেই করে নিন। তারপর পিছনের লম্বা বড় অংশটা ডান হাতের পিছন দিয়ে ঘুরিয়ে, ডান কাঁধের সামনে আনুন। সবশেষে আঁচলে একটা পিন মেরে নিন, যাতে তা পড়ে না যায়।


বলিউডি বাঙালি


বাঙালিদের নিয়ে তৈরি বেশ কিছু হিন্দি ছবিতে বাঙালি স্টাইলের নামে এমন কিছু শড়ি পরার স্টাইল দেখানো হয়েছে, যা আদৌ বাঙালি নয়। কিন্তু বেশ স্টাইলিশ। শড়ি পরার স্টাইলে বৈচিত্র আনতে এমন বলিউডি কায়দায় শাড়ি পরতেই পারেন। এক্ষেত্রে শাড়ির কুঁচিটা হবে একেবারে সামনে। আর ছোট-ছোট কুঁচি করবেন। আঁচল হবে সরু প্লিট করে। এমন স্টাইলে শাড়ি পরলে ব্লাউজের স্টাইলও যেন হয় কেতাদুরস্ত। না হলে বেমানান দেখাবে। এক্ষেত্রে স্লিভলেস বা কেপ ডিজাইনের ব্লাউজ পরতে পারেন। এমব্রয়ডারি ব্লাউজও এমন স্টাইলের সঙ্গে মানানসই। আবার বোট নেক ব্লাউজও মন্দ লাগবে না।


আরও পড়ুন: যে কোনও অনুষ্ঠানে সকলের নজর কাড়বে রাফলড শাড়ি 


২. গুজরাতি, মরাঠি কিংবা তামিল...


মেখলা চাদর, অসম


এই saree দেখতে যেমন সুন্দর, তেমনই স্টাইলিশ। মেখলার দুটো ভাগ। একটা নীচের অংশ, যা সেলাই করা থাকে। পরার পরে শুধু কুঁচি করে নিতে হয়। এর পরে ব্লাউজের উপরে মেখলা শাড়ির সঙ্গে আসা চাদর বা ওড়না, আঁচলের মতো করে নিয়ে বাঁ দিকে গুঁজে নিতে হয়।


নওয়ারি বা কষ্টি, মহারাষ্ট্র


স্টাইলিশ ভাবে শাড়ি পরতে চাইলে, মরাঠি স্টাইলে পারতে পারেন। এক্ষেত্রে ধুতির মতো করে শাড়ি পরতে হবে। তাই একটু বড় মাপের শাড়ি না হলে কিন্তু চলবে না। কম করে ৯ মিটার হতে হবে শাড়ির মাপ। আর-একটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে। তা হল,মহারাষ্ট্রীয় স্টাইলে শাড়ি পরলে আঁচল সরু করে প্লিট করতে হবে। তবেই কিন্তু দেখতে সুন্দর লাগবে।


সিধা পল্লু, গুজরাত


এই স্টাইলকে অনেকে সিধা পাল্লু (Seedha pallu) নামে ডেকে থাকেন। এমনভাবে শাড়ি পরলে অনেকটা লহেঙ্গার মতো দেখতে লাগে। শুধু ওড়নার জায়গায় থাকবে শাড়ির আঁচল। গুজরাতি স্টাইলে শাড়ি পরলে আর-একটা সুবিধেও আছে। এক্ষেত্রে শাড়ির ড্রেপিং এমন ভাবে হয় যে ভারী শাড়ি পরলেও হাঁটাচলা করতে একেবারেই অসুবিধা হয় না। আর সামনে আঁচল করে পরার কারণে দেখতেও বেশ লাগে। আঁচল যেহেতু সামনের দিকে থাকে, তাই এমন শাড়ি বেছে নেবেন, যার আঁচলে ভারী কাজ রয়েছে। তাতে আপনার লুক এক অন্য মাত্রা পাবে।


কুর্গি স্টাইল, কর্নাটক


থ্রি-কোয়ার্টার বা ফুল স্লিভ ব্লাউজের সঙ্গে এমন স্টাইলে শাড়ি পরলে দারুণ দেখতে লাগে। এক্ষেত্রে শাড়ির প্লিট করা হয় পিছনের দিকে। আর শাড়ির শেষ অংশটা বাঁ হাতের তলা দিয়ে নিয়ে এসে ডান কাঁধের উপর পিন আপ করে দেওয়া হয়। অনেক সময় পিন না করে বিশেষ এক ধরনের গিঁট মারা হয়, যাকে মোলাকাটটু (molakattu) নামে ডাকা হয়ে থাকে। 


আরও পড়ুন: এই দু’রকম ভাবে পরে নিতে পারেন ঘাগরা স্টাইল শাড়ি 


৩. ফিউশন শাড়ি স্টাইল


ways to drape a saree 1


picture courtesy: instagram


প্যান্ট ড্রেপিং


পার্টির জন্য এই লুক একদম মানানসই। এক্ষেত্রে প্যান্টের সঙ্গে শাড়ি পরতে হবে। সঙ্গে টপ বা ডিজাইনার কুর্তি পরলেও বেশ মানাবে। তবে একটা কথা মাথায় রাখবেন, এমন স্টাইল করার সময় স্কিন টাইট লেগিংস অথবা ডেনিম পরতে হবে। তাতে স্টাইলে আরও বৈচিত্র আসবে।


বাটারফ্লাই ড্রেপিং 


ব্লাউজের পরিবর্তে সাধারণ টপ বা ক্রপ টপের সঙ্গে শাড়ি পরতে হবে। তাতেই আসবে এমন ফিউশন লুক। ইচ্ছে হলে ফুল বা হাফ স্লিভ ডিজাইনার কুর্তিও পরতে পারেন।


আরও পড়ুন: স্টিরিওটাইপ ভেঙে সাদা শাড়িতেই (white saree) নজর কাড়ুন


শাড়ির সঙ্গে বেল্ট


মোটা পাড়ের শাড়ির সঙ্গে টপ, নয়তো কুর্তি। সঙ্গে কোমরে একটা মানানসই বেল্ট। সব মিলিয়ে আপনার লুক যে একেবারেই হটকে হবে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। তবে খেয়াল রাখবেন, এমন স্টাইলে শাড়ি পরলে খুব বেশি জুয়েলারি পরবেন না। আপনার লুক যত ক্যাজুয়াল হবে, ততই কিন্তু দেখতে সুন্দর লাগবে।


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!


আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!