জেনে নিন কী কী খাবার খেয়ে উপোস ভাঙা উচিত?

জেনে নিন কী কী খাবার খেয়ে উপোস ভাঙা উচিত?

নানা পুজো-পার্বণে আমরা উপোস করে থাকি। সারা দিন কিছু না খেয়ে চলে দেব-দেবীদের প্রার্থনা। দিনের শেষে উপোস ভাঙে সরবত নয়তো খাবার খেয়ে। একই নিয়ম মানেন মুসলমানরাও। রোজা রা সময় তাঁরা সারা দিন কিছু খান না। বিকেলে নামাজ পরে উপোস ভাঙেন। সে সময়ই শুরু হয় খানা-পিনা। কিন্তু প্রশ্ন হল, কোন ধরনের খাওয়ার খেয়ে উপোস ভাঙা উচিত, সে সম্পর্কে কোনও ধারণা আছে কি? কারণ সারাদিন উপোসের পরে ঠিক ঠিক খাবার না খেলে শরীরের মারাত্মক ক্ষতি হয়ে যায়। এমনকী অসুস্থ হয়ে পড়ার আশঙ্কাও থাকে। তাই সাবধান হওয়াটা জরুরি (What Foods Are Best to Eat After Fasting)।


উপোস ভাঙুন এই খাবারগুলি খেয়ে


১. ফল


fasting-1
সারাদিন উপোস করার কারণে স্বাভাবিকভাবেই শরীরে এনার্জির ঘাটতি দেখা দেয়। তখন শরীর, তার skeletal muscle বা বিশেষ কিছু পেশিকে ভেঙে সেই এনার্জির চাহিদা পূরণ করে। তাই তো ফল খেয়ে উপোস ভাঙার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা। এক্ষেত্রে তরমুজ, আঙুর অথবা আপেলের মত ফল খেতে হবে। কারণ এইসব ফলগুলি শরীরের ভিতরে জল এবং পুষ্টির ঘাটতি দূর করে। ফলে দেহের কোনও ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা আর থাকে না। সঙ্গে হজম ক্ষমতারও উন্নতি ঘটে।


আরও উপকার পেতে উপোস ভাঙুন এক গ্লাস ফলের রস খেয়ে। মনে রাখবেন উপোস ভেঙেই লেবুর মতো সিট্রাস জাতীয় ফল খাবেন না যেন। কারণ এই সব ফল অ্যাসিডিক। খেলে গ্য়াস-অম্বল হতে পারে।


আরও পড়ুন: জেনে নিন, কাটা ফল (fruits) কী ভাবে ফ্রেশ রাখবেন


২. এক বাটি সেদ্ধ সবজি


পালং, লেটুস অথবা বিটের রস খেয়ে যেমন উপোস ভাঙতে পারেন, তেমনি পছন্দের কোনও সবজি সেদ্ধ করে খেলেও কিন্তু বেশ উপকার মেলে। কারণ সবুজ সবজিতে রয়েছে প্রচুর মাত্রায় ভিটামিন, মিনারেল, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ফাইটোনিউট্রিয়েন্ট, যা নিমেষে পুষ্টির ঘাটতি দূর করে। এমনকী শরীরের গঠনেও বিশেষ ভূমিকা নেয়। অন্যদিকে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শরীরকে বিষমুক্ত করে। ফলে ভিতর এবং বাইরে যেতে শরীরে বেশ চাঙ্গা হয়ে ওঠে। ক্লান্তিও দূর হয়। একই উপকার পাওয়া যায় ২-৩ রকমের সবজি দিয়ে তৈরি স্যালাড খেলেও। মোট কথা উপসের পরে সবুজ শাক-সবজি খাওয়া মাস্ট!


৩. বাদাম


হাতের কাছে কিছু না থাকলে কাঠবাদাম (Almonds) খেয়েও উপোস ভাঙতে পারেন। এতে উপস্থিত উপকারী ফ্যাট, শরীরের গঠনে বিশেষ ভূমিকা নেয়। খিদেও মেটে নিমেষে। এমনকী ক্লান্তিও দূর হয়। এই কারণেই তো ইফতারের সময় কাঁচা বাদাম খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়।


কেমন ধরনের পানীয় খাওয়া চলতে পারে?


১. মধু এবং লেবুর রস


এক গ্লাস গরম জলে ২ চামচ করে মধু এবং লেবুর রস মিশিয়ে নিন। উপোসের পরে এই পানীয় শরীরে প্রবেশ করলে টক্সিক উপাদানগুলি বেরিয়ে যাবে। সেই সঙ্গে জলের ঘাটতিও মিটবে। বাড়বে লিভারের ক্ষমতাও।


২. তরমুজের রস


fasting-3
এই গরমে উপোস করাটা সহজ কাজ নয়। তাই উপোস ভাঙার পরেই এমন পানীয় গ্রহণ করতে হবে , যাতে নিমেষে জলের ঘাটতি দূরে হয়। না হলে হিট স্ট্রোক হওয়ার আশঙ্কা বাড়বে। আর ঠিক এই কারণেই তরমুজের রস পান করে উপোস ভাঙার পরামর্শ দেওয়া হয়ে থাকে। এই ফল জলে ভরা। তাই তো পান করা মাত্রই শরীরে জলের চাহিদা মিটতে সময় লাগে না। আর যদি তরমুজের রসে কয়েকটা পুদিনা পাতা ফেলে দিতে পারেন, তাহলে তো কথাই নেই! কিন্তু ভুলেও এই রসে চিনি মেশাবেন না যেন!


৩. ডাবের জল


এতে রয়েছে ইলেকট্রোলাইটস। রয়েছে আরও অনেক খনিজ এবং ভিটামিন, যা নিমেষে ক্লান্তি দূর করে, শরীরে পুষ্টিকর উপাদানের ঘাটতি মেটায় এবং দেহের ভিতরে জলের চাহিদা পূরণ করে। ফলে সারাদিন উপোসের কারণে শরীর খারাপ হয়ে যাওয়া আশঙ্কা আর থাকে না।


৪. খেজুর এবং দুধ দিয়ে তৈরি স্মুদি


fasting-5
ইফতারের সময় এই পানীয়টি খাওয়া মাস্ট! কারণ খেজুরে রয়েছে প্রচুর মাত্রায় ফাইবার, ভিটামিন এবং মিনারেল। আর পুষ্টিগুণে দুধও কোনও অংশে কম নয়। তাই তো এই পানীয়টি খাওয়া মাত্র শরীর চাঙ্গা হয়ে ওঠে। মেলে আরও অনেক উপকার।


পানীয়টি বানাতে প্রয়োজন পড়বে এক গ্লাস দুধ এবং ৪-৫ টা খেজুরের। এই দুটি উপাদান মিক্সিতে ফেলে ভাল করে মিশিয়ে নিন। তারপর ঝটপট খেয়ে ফেলুন। দেখবেন, ভালো লাগবে।


আরও পড়ুন: সকাল সকাল লেবু জল খাওয়া মাস্ট!


আরও যে যে বিষয় মাথায় রাখতে হবে


যে দিন উপোস করবেন তার আগের রাতে কব্জি ঢুবিয়ে না খাওয়াই উচিত। তাতে পরের দিন কষ্ট হতে পারে। ওই রাতে রুটি বা ভাতের সঙ্গে বেশি করে সবজি খেতে হবে। খেতে পারেন সেদ্ধ আলু বা বিনস দিয়ে তৈরি কোনও পদও। ইচ্ছা হলে অল্প করে মাংস খেতে পারেন। কিন্তু বেশি মাত্রায় নয়! এমন খাবার খেলে শরীরে পুষ্টির ঘাটতি দূর হবে। মিলবে আরও উপকার।


অর্ধেক দিন উপোস করুন কী সারাদিন, উপোস ভাঙার পরে ফাইবার এবং ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবার বেশি করে খেতে হবে। উপকারী ফ্যাট রয়েছে এমন খাবারও খেতে হবে। তাতে ক্লান্তি দূর হবে এবং ভেঙে যাওয়া পেশির গঠন ঠিক মতো হওয়ার সুযোগ পাবে। অল্প করে মাছ-মাংসও চলতে পারে। তবে বেশি খেলে কিন্তু মুশকিল। আর যদি ওই দিন আমিষ খাবার খেতে না পারেন, তাহলে এক বাটি ডাল, নয়তো বাদাম খেতে পারেন। তোফু খেলেও চলবে। তাতে শরীরে প্রোটিনের ঘাটতি মিটবে।


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!


আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!