ফেলে না দিয়ে রূপচর্চায় কাজে লাগান 'চাল ধোওয়া জল'

ফেলে না দিয়ে রূপচর্চায় কাজে লাগান 'চাল ধোওয়া জল'

রূপচর্চা (beauty) করতে আমরা না জানি কত কী ব্যবহার করি। কখনও কসমেটিক্স আবার কখনও আয়ুর্বেদিক প্রোডাক্ট। এই শ্যাম্পু, সেই কন্ডিশনার, অমুক বডি লোশন, তমুক মুখে মাখার ক্রিম – তাতে কখনও-কখনও তো বেশ ভালই কাজ দেয়, কিন্তু অনেকসময়েই সব প্রোডাক্ট সকলের সহ্য হয় না। তাছাড়া বাজারচলতি প্রোডাক্টগুলো বেশ দামিও। যদি এমন কোনও উপায় থাকত, যাতে বাড়িতে বসেই রান্নাঘরের কোনও উপকরণ দিয়ে রূপচর্চা করা যেত? বেশ ভাল হত, তাই না! সেরকম উপকরণ কিন্তু আছে, আর প্রতিটি বাঙালি বাড়িতেই আছে! প্রতিটি বাঙালি বাড়িতেই ভাত রান্না হয় এবং ভাত রান্নার আগে চাল ধোওয়া জলটা আমরা ফেলে দিই। ওই জল আপনার রূপচর্চায় কত কাজে লাগতে পারে আপনি জানেন?

ত্বকের যত্নে চাল ধোওয়া জল

শাটারস্টক

আমাদের এক-এক জনের ত্বক এক-এক রকমের হয়। কিন্তু মজার বিষয় হল, এই মিরাক্যাল ওয়াটার যে-কোনও ধরনের ত্বকের জন্যই ভাল। দেখে নিন, ত্বকের যত্নে ঠিক কীভাবে উপকারী চাল ধোওয়া জল।

১। ন্যাচারাল অ্যান্টি এজিং সলিউশন

Rice Water ত্বকের টেক্সচার সঠিক করে এবং যদি কোনও কারণে ত্বক আগে থেকেই ড্যামেজ হয়ে থাকে, তা ঠিক করে। এছাড়া ত্বকের বয়স বাড়তে দেয় না এবং ত্বকের ইল্যাস্টিসিটি বজায় রাখে ফলে চামড়া ঝুলে যাওয়ার সমস্যা থাকে না। চাল ধোওয়া জলে ভিটামিন এ, সি এবং ই রয়েছে যা ত্বকের যত্নে খুবই কার্যকরী।

২। ত্বকের জেল্লা বাড়াতে জুড়ি মেলা ভার

জেল্লাদার ত্বক (skin) আমরা কে না চাই? কিন্তু চারদিকের দূষণ এবং সারাদিনের ধকলের ফলে ত্বকের জেল্লা হারিয়ে যায়। প্রতিদিন যদি rice water দিয়ে মুখ ধুতে পারেন কয়েকদিনের মধ্যেই দেখবেন হারানো জেল্লা ফিরে এসছে।

৩। সানস্ক্রিনের কাজও করে

একদম ঠিক পড়েছেন! চাল ধোওয়া জল ন্যাচারাল সানস্ক্রিনের কাজ করে। সূর্যের ক্ষতিকর ইউ ভি রশ্মি থেকে আমাদের ত্বককে রক্ষা করে। এছাড়াও যাঁদের সানবার্নের সমস্যা আছে তারাও rice water ব্যবহার করতে পারেন।

শাটারস্টক

৪। সংবেদনশীল ত্বকের জন্য খুবই উপকারী

যাঁদের ত্বক সংবেদনশীল, তাঁরা সব ধরনের প্রোডাক্ট ব্যবহার করতে পারেন না। কিন্তু চাল ধোওয়া জল দিয়ে যদি তাঁরা নিয়মিত মুখ ধুতে পারেন, তা হলে উপকার পাবেন। এছাড়া ফেসপ্যাকের উপকরণ হিসেবেও rice water ব্যবহার করতে পারেন।

৫। ধকল দূর করতে দারুণ কাজ দেয়

সারাদিন কাজের পর ক্লান্ত? স্নানের জলে কিছুটা চাল ধোওয়া জল এবং আপনার পছন্দের এসেনশিয়াল অয়েল কয়েকফোঁটা ফেলে কিছুক্ষণ শরীর ডুবিয়ে বসে থাকুন। দেখবেন কত তরতাজা লাগে!

চাল ধোওয়া জল দিয়ে কীভাবে চুলের যত্ন নেবেন

শাটারস্টক

নানা দামি প্রোডাক্ট ব্যবহার করেও সেই চুল পড়ছে বা চুলের সমস্যাগুলোর সমাধান হচ্ছে না? তা হলে কিন্তু চাল ধোওয়া জল ব্যবহার করে দেখতে পারেন...

১। ন্যাচারাল হেয়ার স্মুদনার

Hair smoothening করাবেন ভাবছেন কিন্তু চুলের যে ক্ষতি হবে সেটা ভেবে আবার পিছিয়ে আসছেন? চিন্তা নেই, প্রতিদিন চাল ধোওয়া জল দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। Rice water ন্যাচারাল হেয়ার স্মুদনারের কাজ করে। কিছুদিনের মধ্যেই দেখবেন চুলের টেক্সচার কত নরম হয়ে গেছে!

২। স্ক্যাল্প পরিষ্কার করতে দারুণ কাজ দেয়

স্ক্যাল্প যদি পরিষ্কার না থাকে তা হলে আপনি যতই দামি-দামি hair প্রোডাক্ট ব্যবহার করুন না কেন, চুলের সমস্যা দূর হবে না। সপ্তাহে অন্তত দুবার চাল ধোওয়া জল দিয়ে স্ক্যাল্প পরিষ্কার করুন।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এগুলোও আপনি পড়তে পারেন

জলের অপচয় বন্ধ করার কিছু ঘরোয়া টিপস

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!