ত্বক তুলতুলে করতে, ওজন কমাতে ও এনার্জির ঘাটতি মেটাতে রোজ রুটি খান!

ত্বক তুলতুলে করতে, ওজন কমাতে ও এনার্জির ঘাটতি মেটাতে রোজ রুটি খান!

একধিক স্টাডি অনুসারে নিয়মিত রুটি খাওয়া শুরু করলে শরীরে ভিটামিন বি ১, বি ২, বি ৩, বি ৬ এবং বি ৯-এর প্রবেশ ঘটে। সেই সঙ্গে আয়রন, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, ম্যাগনেসিয়াম, পটাশিয়াম এবং ফাইবারের ঘাটতি মেটে, যে কারণ একাধিক ছোট-বড় রোগ ধারে কাছেও ঘেঁষতে পরে না। বিশেষ করে, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে, খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমে, কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো রোগের প্রকোপ কমে এবং হজম ক্ষমতার উন্নতি ঘটে চোখে পড়ার মতো। তবে এখানেই শেষ নয়, রোজের ডায়েটে রুটিকে জায়গা করে দিলে আরও অনেক উপকার পাওয়া যায়। কী-কী উপকার মেলে জানা আছে? জানা না থাকলে জেনে নিন আমাদের কাছ থেকে।

রুটির উপকারিতা

১. এনার্জির ঘাটতি মেটে

নিয়মিত রুটি (roti) খেলে কার্বোহাইড্রেটের ঘাটতি মেটে, যে কারণে কথায়-কথায় ক্লান্ত হয়ে পড়ার মতো সমস্যা নিমেষে দূরে পালায়। এমনকী, মন-মেজাজও চাঙ্গা হয়ে ওঠে।

২. ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে

রুটিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার, যা বহুক্ষণ পেট ভরিয়ে রাখে। ফলে খিদে কমে যায়। আর কম পরিমাণে খাওয়ার কারণে স্বাভাবিকভাবেই শরীরে অপ্রয়োজনীয় ক্যালরির মাত্রা বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কাও আর থাকে না। ফলে ওজন থাকে নিয়ন্ত্রণে। রুটি আরেকভাবেও ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। কীভাবে? রুটিতে উপস্থিত ফাইবার, হজম ক্ষমতার উন্নতিতে বিশেষ ভূমিকা নেয়, যে কারণে শরীরের ইতি-উতি মেদ জমার আশঙ্কা আর থাকে না।

৩. ত্বকের জেল্লা বাড়ে

একেবারেই ঠিক শুনেছেন! নিয়মিত গমের রুটি খাওয়া শুরু করলে সত্যিই ত্বকের জেল্লা বাড়ে। কিন্তু কীভাবে এমনটা সম্ভব হয়? বেশ কিছু স্টাডি অনুসারে রুটিতে উপস্থিত জিঙ্ক এক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। তাই ত্বকের সৌন্দর্য বাড়াতে নিয়মিত খানতিনেক রুটি খেতে ভুলবেন না যেন!

৪. ডায়াবেটিসের মতো রোগ দূরে থাকতে বাধ্য হয়

গত কয়েক বছরে আমাদের দেশে ডায়াবেটিস রোগের প্রকোপ যে হারে বেড়েছে, তাতে আট থেকে আশি, সকলেরই নিয়মিত রুটি খাওয়া উচিত। কারণ গমে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম, যা শরীরে প্রবেশ করা মাত্র তিনশো রকমের উপকারী এনজাইমের ক্ষরণ বেড়ে যায়, যে কারণে রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণের বাইরে যাওয়ার সুযোগই পায় না। ফলে ডায়াবেটিসের মতো মারণ রোগ ধারে-কাছেও ঘেঁষতে পারে না।

৫. হার্টকে চাঙ্গা রাখে

একথা নিশ্চয় সকলেরই জানা আছে যে বহু দিন ধরে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের বাইরে থাকলে হার্টের মারাত্মক ক্ষতি হয়। তাই ব্লাড প্রেশার যাতে কখনই নিয়ন্ত্রণের বাইরে না যায়, সেদিকে নজর রাখতে হবে। আর ঠিক এই কারণেই নিয়মিত রুটি খাওয়ার প্রয়োজন রয়েছে। কারণ, এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ডায়াটারি ফাইবার, যা রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণে রাখে। ফলে হার্টের কোনও ধরনের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা আর থাকে না।

৬. দৃষ্টিশক্তির উন্নতি ঘটে

গমের রুটিতে মজুত রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ই, নিয়াসিন এবং জিঙ্কের মতো উপকারী উপাদান, যা macular degeneration-এর মতো সমস্যাকে যেমন দূরে রাখে, তেমনই অল্প বয়সেই চোখে ছানি পড়ার আশঙ্কাও আর থাকে না। সেই সঙ্গে দৃষ্টিশক্তির উন্নতি ঘটে চোখে পড়ার মতো।

 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!