সম্পর্কে কোনও কমিটমেন্ট করতে ভয় পান? রইল কমিটমেন্ট ফোবিয়া কাটিয়ে তোলার টিপস

সম্পর্কে কোনও কমিটমেন্ট  করতে ভয় পান? রইল কমিটমেন্ট ফোবিয়া কাটিয়ে তোলার টিপস

কমিটমেন্ট (commitment) ফোবিয়া (phobia) ! দুটো ছোট্ট শব্দ। যদিও এই জোড়া শব্দের প্রভাব কিন্তু বেশ গভীর। আপনি কোনও একটা সম্পর্কে (relationship) আছেন। বেশ মসৃণ সম্পর্ক। দিব্যি গরগরিয়ে চলছে। কিন্তু যেই সারাজীবন একসঙ্গে থাকার কথা উঠল বা বিয়ের প্রসঙ্গ উত্থাপন করা হল, আপনি উল্টো দিকে হাঁটা লাগালেন! এসব শুনেই বুক ঢিবঢিব শুরু হয়ে গেল। মনে হল আমি কি পারব? না, আমি বোধ হয় পারব না। এটাই হল কমিটমেন্ট ফোবিয়া। এক সময় একচেটিয়া শুধু পুরুষদেরই এটা হত। কিন্তু এখন দিনকাল পাল্টেছে। মেয়েরা কেউ তিরিশের আগে আজকাল বিয়ে করেন না। তাঁদেরও নিজস্ব স্পেস আছে, স্বপ্ন আছে, কেরিয়ার আছে। কমিটমেন্ট ফোবিয়া তাঁদেরও হয়। অর্থাৎ এটি ছেলেমেয়ে নির্বিশেষে একটি সমস্যা। তবে এটা এমন কোনও সাঙ্ঘাতিক কঠিন সমস্যা নয়, যার কোনও সমাধান হয় না। বরং আমরা কিছু সহজ টিপস দেব, যাতে আপনি এই ফোবিয়া (phobia) কাটিয়ে উঠতে পারেন। 


১) সম্পর্কের গভীরতা কতটা, নিজেকেই প্রশ্ন করুন


commitment 1


যে সম্পর্কেই থাকুন না কেন, সেটা জাস্ট ক্যাজুয়াল নাকি খুব গভীর, সেটা একমাত্র আপনিই বুঝতে পারবেন। যদি সত্যি বন্ধন মজবুত হয়, তা হলে কেন আপনি কমিট করতে পিছিয়ে যাচ্ছেন, সেটা বুঝতে হবে। অনেকে আছেন, যাঁরা কোনও বিষয়েই কোনও কমিটমেন্ট করেন না বা করতে চান না। অর্থাৎ যে-কোনও রকমের দায়িত্ব নেওয়ার নাম শুনলেই তাঁদের হৃদকম্প হয়। আপনি কি সেই শ্রেণিতে পড়েন? তা হলে এটা আপনার জন্মগত সমস্যা। আর যদি সেটা না হয়, তা হলে তলিয়ে দেখতে হবে যে, এই সম্পর্ককে এগিয়ে নিয়ে যেতে আপনার এত অনীহা কেন? ঠান্ডা মাথায় ভাবুন তো! 


২) সময়সীমা বেঁধে দিন 


time din


দিব্যি তো চলছে, এভাবেই চলুক না গোছের হাবভাব করে চালিয়ে যাচ্ছেন সেটা ভাল কথা। কিন্তু উল্টো দিকের মানুষটার কথাও ভাবুন। হনিমুন ফেজ অনন্ত কাল ধরে চলতে পারে না। আপনারা দু'জনেই যদি এরকমটা চান, তা হলে আলাদা কথা। কিন্তু শুধু আপনিই কি এটা চাইছেন? উঁহু! তা হলে একটা টাইম লিমিট সেট করুন নিজের জন্য। সেই সময়সীমা পেরিয়ে গেলেও যদি মনে হয় যে, আপনার পক্ষে সম্পর্কের দায়িত্ব নেওয়া সম্ভব নয়, তা হলে প্লিজ বেরিয়ে আসুন এই সম্পর্ক থেকে। 


৩) তাড়াহুড়ো একদম নয়, সময় নিন


commitment 2


আপনার বদনাম আছে যে, আপনি কমিটমেন্ট ফোবিক। অর্থাৎ দায়িত্ব নিতে আপনি ভয় পান! সুতরাং সেই বদনাম আপনাকে ঘোচাতেই হবে এরকম মনে করে কোনও সিদ্ধান্ত নেবেন না। সম্পর্কের ক্ষেত্রে তো একেবারেই নয়। বরং একটু সময় নিন। দরকার হলে কোনও রিলেশনশিপ বিশেষজ্ঞের সঙ্গে কথা বলুন। আমাদের প্রত্যেকের মনেই কিছু না কিছু নিয়ে ভয় আছে। আর সেগুলো কাটিয়েও তোলা যায়। ভুল সিদ্ধান্ত নেওয়ার চেয়ে সময় নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া অনেক বেশি বুদ্ধিমানের কাজ। 


৪) অতীত কি বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে? 


past


অনেক সময় দেখা যায় যে আগের কোনও সম্পর্ক কোনও কারণে ভেঙে গেলে মনের মধ্যে এক ধরনের ট্রমা কাজ করে। অতীতের সেই ভয় থেকেই অনেকে এগিয়ে আসতে চান না। তাঁরা ভাবেন এবারও যদি সম্পর্ক ভেঙে যায়, তা হলে সেই আঘাত তাঁরা সহ্য করতে পারবেন না। একবার ভেবে দেখুন তো আপনার ক্ষেত্রেও তাই হচ্ছে কিনা? যদি উত্তর হ্যাঁ হয়, তা হলে নিজের পার্টনারের সঙ্গে খোলাখুলি কথা বলুন। একবার ভেঙে গেছে বলে এবারও ভাঙবে, তার কোনও মানে নেই। বরং এবারে আপনি আগের ভুল রিপিট করবেন না, এটা ভেবেই এগিয়ে চলুন। 


সবশেষে একটা কথা বলি। জীবনে কোনও না-কোনও সময় আমাদের কিছু না-কিছু দায়িত্ব নিতে হয়। প্রথমবারেই অনেকে সফল হয় না। সুতরাং কারও সঙ্গে মানসিকভাবে জড়িয়ে পড়লেও কিছু দায়িত্ব নিতে হয় বই কী। বারবার যদি ভবিষ্যতে খারাপ কিছু হবে এই ভেবে পিছিয়ে আসেন, তা হলে দেরি না করে একজন মনস্তত্ত্ববিদের সঙ্গে কথা বলুন। আর এতে লজ্জার কিছু নেই। আপনি সব দ্বিধা দ্বন্দ্ব কাটিয়ে উঠুন এটাই আমরা চাই। 


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!



আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!