PAP Smear Test, কী, তা কেন করাবেন, কখন করাবেন, কোথা থেকেই বা করাবেন

PAP Smear Test, কী, তা কেন করাবেন, কখন করাবেন, কোথা থেকেই বা করাবেন

পুরুষদের তুলনায় মহিলারা যে ক্যান্সার বা কর্কট রোগে বেশি আক্রান্ত হন, সে সম্বন্ধে আমরা কমবেশি সকলেই জানি। অনেক গবেষণায় জানা গিয়েছে যে, সারা পৃথিবীতে প্রতি বছর প্রায় লাখদেড়েক মহিলা জরায়ুর ক্যান্সারে মারা যান যার মধ্যে ভারতীয় মহিলাদের সংখ্যা প্রায় ৭৪ হাজার। সমীক্ষা অনুযায়ী, প্রতি তিনজন মহিলার মধ্যে একজন মহিলা জরায়ুর ক্যান্সারে আক্রান্ত। কাজেই বুঝতেই পারছেন যে, কর্কট রোগ প্রতিরোধ করার ব্যবস্থা না করলে সামনেই সমূহ বিপদ! ডাক্তারদের মতে, ৩০ বছর বয়স হয়ে গেলে প্রতিটি মহিলারই উচিত প্যাপ স্মেয়ার (PAP Smear Test) টেস্ট করিয়ে নেওয়া। ঠিক সময়ে যদি এই পরীক্ষা করিয়ে নেওয়া যায় তাহলে জরায়ুর ক্যান্সার থেকে কিন্তু অনেক মহিলাই রক্ষা পেতে পারেন। কিন্তু কি প্যাপ স্মেয়ার (PAP Smear Test) টেস্ট, কীভাবে করানো যায়, কোথায় করানো যায় – এসব প্রশ্নই তো মাথায় ঘুরছে? আর কষ্ট করে খুঁজতে হবে না, এখানেই সব প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন।

কেন করাবেন প্যাপ স্মেয়ার (PAP Smear Test) টেস্ট

আগেই যেমন বললাম, জরায়ুর ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে এই পরীক্ষাটি আমাদের সাহায্য করে। বাইরে থেকে যেহেতু বোঝা সম্ভব হয় না যে, আমাদের শরীরের বিশেষ করে গর্ভাশয়ে বা যোনিপথে কর্কট রোগ বাসা বেঁধেছে কিনা। তবে এই পরীক্ষার মাধ্যমে তা খুব ভালভাবেই বোঝা যায় এবং সময়মতো চিকিৎসাও করিয়ে নেওয়া যায়।

কখন এবং কীভাবে করানো যেতে পারে এই পরীক্ষা

কখন এই পরীক্ষা করাবেন যদি জিজ্ঞেস করেন, তা হলে বলব, আপনার বয়স যদি ৩০ বছর বা তার বেশি হয়, তা হলে আপনি যে-কোনও সময়েই প্যাপ স্মেয়ার (PAP Smear Test) টেস্ট করিয়ে নিতে পারেন। যদি আপনার শরীরে নিম্নলিখিত লক্ষণগুলি দেখা যায়, তা হলে তো দেরি না করে অবশ্যই করাবেন এই টেস্ট!

  • আপনি যদি নিয়মিত শারীরিক মিলনে লিপ্ত থাকেন এবং মিলনের সময় যদি আপনার যোনিপথে ব্যথা লাগে
  • যদি আপনার পিঠে ব্যথা হয়
  • যদি খিদে কমে যায় হঠাৎ করে
  • যদি এক পায়ে ব্যথা হয় এবং ফুলে যায়
  • যদি প্রস্রাবের সময় জ্বালা করে

একটি গোল স্প্যাচুলা আপনার জরায়ুর বাইরের অংশে খানিক ঘষে তার থেকে যে কোষ পাওয়া যায় তা পরীক্ষা করার পরেই বোঝা যায় যে আপনার আদৌ ভয় পাওয়ার কোনও কারণ আছে কিনা।  

প্যাপ স্মেয়ার (PAP Smear Test) টেস্ট করানোর জন্য কলকাতার সেরা তিনটি জায়গা

১। নাইটিঙ্গল হসপিটাল

ঠিকানা – ১১, শেকসপিয়ার সরণি, কলকাতা – ৭০০০৭১

ফোন – ০৩৩ – ২২৮২৭৯৭০

আনুমানিক খরচ – ৬৫০ টাকা মতো

২। সুরক্ষা ডায়গনস্টিক সেন্টার

ঠিকানা – ৮৩/১০, অনিমা অ্যাপার্টমেন্ট, যশোর রোড, বারাসাত, কলকাতা – ৭০০১২৪

ফোন – ০৩৩ – ৬৬০৫৯৮৫০/৯৮৫৩

আনুমানিক খরচ – ১০০০ টাকা মতো

৩। থিজম পলিক্লিনিক

ঠিকানা – ৩এ/৬, বটকৃষ্ট পাল লেন, দমদম জংশন, ঘুঘুডাঙ্গা, কলকাতা – ৭০০০৩০

ফোন – ০৩৩ – ২৫৫৮৪৯৫০/২৪৮৯/২৪৯১  

আনুমানিক খরচ – ৬০০ টাকা মতো

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!