স্বাস্থ্যোজ্জ্বল ত্বক পেতে চাইলে রোজ খেতে হবে এক গ্লাস করে এই ফলগুলির রস

স্বাস্থ্যোজ্জ্বল ত্বক পেতে চাইলে রোজ খেতে হবে এক গ্লাস করে এই ফলগুলির রস

ক্ষণিকের জন্য ত্বকের লাবণ্য বাড়াতে নানা প্রসাধনী কাজে আসে ঠিকই। কিন্তু ত্বকের সৌন্দর্য যদি ধরে রাখতে হয়, তাহলে সে কাজ কোনও প্রসাধনীর দ্বারা সম্ভব নয়। সেক্ষেত্রে ত্বককে ভিতর থেকে সুন্দর করে তুলতে হবে, তাহলেই বাইরের সৌন্দর্য বাড়বে চোখে পড়ার মতো। এখন প্রশ্ন হল, ত্বককে ভিতর থেকে সুন্দর করে তোলা যায় কীভাবে? এক্ষেত্রে ভরসা রাখতে হবে কিছু ফলের রসের (Juices) উপরে। তাতে শরীরে কিছু ভিটামিন এবং মিনারেলের মাত্রা বাড়তে শুরু করবে, যে কারণে ত্বকের স্বাস্থ্যের এতটাই উন্নতি ঘটবে যে সৌন্দর্য বাড়বে চোখে পড়ার মতো। তাই তো বলি, চটজলদি যদি সুন্দরী হয়ে উঠতে চান, তা হলে চোখ রাখুন বাকি প্রতিবেদনে।

আরো পড়ুনঃ নিয়মিত আখের রস খাওয়ার উপকারিতা

এই জুসগুলি খেলেই বাড়বে ত্বকের সৌন্দর্য

১. বিটরুট জুস

প্রতিদিন এক গ্লাস করে বিটের জুস খাওয়া শুরু করলে শরীরে অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদানের মাত্রা বাড়তে শুরু করে, সঙ্গে আয়রন, পটাশিয়াম, ভিটামিন এ, সি, কে, কপার, ম্যাগনেসিয়াম, ফলিক অ্যাসিড এবং জিঙ্কের ঘাটতিও দূর হয়, যে কারণে রক্তে মিশে থাকা ক্ষতিকর টক্সিক উপাদানগুলি যেমন শরীর থেকে বেরিয়ে যেতে বাধ্য হয়, তেমনি ত্বকের (Skin) ভিতরে প্রদাহের মাত্রাও কমে। ফলে দাগ-ছোপ দূর হয় নিমেষেই। কমে ব্রণোর প্রকোপও। ফলে ত্বকের সৌন্দর্য বাড়তে সময় লাগে না।

২. গাজরের রস

বলিরেখার কারণে কি ত্বকের লাবণ্য কমছে? তাহলে আজ থেকেই এক গ্লাস করে গাজরের রস খাওয়া শুরু করুন। দেখবেন, ত্বকের হারিয়ে যওয়া সৌন্দর্য ফিরে আসবে। কীভাবে এমনটা সম্ভব হবে, তাই ভাবছেন? এই পানীয়তে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ, সি এবং পটাশিয়াম, যা নিমেষে বলিরেখা কমায়, সেই সঙ্গে ত্বকের ইলাস্টিসিটিও বাড়ে। ফলে ত্বকের বয়স এতটাই কমে যায় যে সৌন্দর্য বাড়ে চোখে পড়ার মতো। গাজরের রসে উপস্থিত ফাইবার, bowel movement-এর উন্নতি ঘটায়, যে কারণেও ত্বক সুন্দর হয়ে ওঠে।

৩. শসার রস

এক্কেবারে ঠিক শুনেছেন! বাস্তবিকই ত্বকের যত্নে শসার রসের জুড়ি মেলা ভার। কারণ, এক গ্লাস শসার রস খাওয়া মাত্র শরীরে জলের ঘাটতি দূর হয়। ফলে ত্বক আর্দ্র থাকে। সেই সঙ্গে শসায় উপস্থিত silica নামক একটি উপাদান ভিতর থেকে ত্বককে সুন্দর করে তোলে। এই সবজিতে উপস্থিত পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ভিটামিন এ, বি১ এবং সি নানাভাবে ত্বকের খেয়াল রেখে থাকে। ফলে অসময়ে ত্বক বুড়িয়ে যাওয়ার আশঙ্কা যেমন কমে, তেমনি অল্প সময়েই ত্বকের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটে।

৪. টোম্যাটোর রস

ত্বকের সৌন্দর্য বাড়াতে টোম্যাটোর রস ম্যাজিকের মতো কাজ করে। কারণ, এত রয়েছে lycopene নামে এক শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা অসময়ে ত্বকের বুড়িয়ে যাওয়া আটকায়। সেই সঙ্গে ব্রণোর প্রকোপ কমাতেও বিশেষ ভূমিকা নেয়। মিলিয়ে যায় দাগ-ছোপও। ফলে ত্বক সুন্দর হয়ে ওঠে। তবে টোম্যাটোর রস আরেকভাবেও ত্বকের যত্নে কাজে আসে। কীভাবে? এই সবজিটি, ভিটামিন সি-এ টাসা, যা নানাবিধ ত্বকের রোগকে যেমন দূরে রাখে, তেমনি স্কিন ক্যান্সারের মতো মারণ রোগকেও ধারে কাছে ঘেঁষতে দেয় না।

৫. মুসাম্বির রস

প্রতিদিন যদি এক গ্লাস করে মুসাম্বি লেবুর রস খেতে পারেন, তা হলে ত্বক নিয়ে আর কোনও চিন্তাই থাকবে না। আসলে লেবুতে রয়েছে ভিটামিন সি, যা ত্বকের ভিতরে জমে থাকা টক্সিক উপাদানদের ঘাড় ধরে বের করে দেয়। ফলে ত্বকের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটতে সময় লাগে না। আর ত্বক যখন ভিতর থেকে সুন্দর হয়ে ওঠে, তখন সৌন্দর্য কমে যাওয়ার আশঙ্কা আর থাকে না বললেই চলে।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!