বর্ষাকালে বিয়ে? জেনে নিন, কীভাবে সেলেব্রিটিদের মতো কনের সাজে সাজবেন

বর্ষাকালে বিয়ে? জেনে নিন, কীভাবে সেলেব্রিটিদের মতো কনের সাজে সাজবেন

আষাঢ় মাস মানেই বিয়ের মরসুম আর বিয়ের দিন যে-কোনও মেয়ের জীবনেই একটি গুরুত্বপূর্ণ দিন। সেদিন প্রতিটি মেয়েই চায় তাকে সবচেয়ে সুন্দর দেখাক এবং অন্য রকমও। বাঙালি বিয়েতে লাল বেনারসি পরে সনাতনী সাজ তো রয়েছেই, সঙ্গে ইদানীং অনেকেই সেলিব্রিটি ব্রাইডাল মেকাপ নিয়ে নানা পরীক্ষা করতেও পিছপা হচ্ছেন না আজকাল। আসলে পর্দায় দেখা নায়িকাদের মতো সুন্দরী হয়ে উঠতে কার না মন চায়! এমনকী, পর্দার নায়িকাদেরও কিন্তু তাঁদের বিয়ের দিন একদম অন্যরকম একটা কনের সাজে দেখা যায়; যেমন, করিনা কপূর তার বিয়ের দিন গর্জিয়াস মেকআপ আর ব্রাইডাল ড্রেসে লক্ষ-লক্ষ মানুষের মন জয় করে নিয়েছিলেন, আবার অন্যদিকে ঐশ্বর্য রাই বচ্চন গোল্ডেন কাঞ্জিভরম আর গোল্ডেন মেকআপ করে তাক লাগিয়ে দিয়েছিলেন। সেভাবে দেখতে গেলে এরা কিন্তু এক-একটা নতুন আইডিয়া দিয়েছেন যে বিয়ের দিন কিভাবে সাজা যায়। আপনি চাইলে আপনার পছন্দ মতো সেলেব্রিটি ব্রাইডাল লুক ট্রাই করতেই পারেন বিয়ের দিন, তবে বর্ষাকালে বিয়ে হলে মেকআপ করার আগে কয়েকটা ছোট্ট টিপস মাথায় রাখবেন যাতে কনের সাজে আসে একটা অন্য মাত্রা!

বর্ষাকালে Bridal Makeup করার কয়েকটি টিপস

ইনস্টাগ্রাম

বিয়ের দিন কনের সাজ করার সময়ে একটু গর্জিয়াস মেকআপ না করলে চলে না কিন্তু যেহেতু এই সময়ে আবহাওয়া খুব বেশি আর্দ্র থাকে কাজেই কয়েকটি বিষয় মাথায় রেখে তবেই মেকআপ করুন এবং মেকআপের সরঞ্জাম বাছুন

  • চকচকে দেখতে লাগে এমন মেকআপ করবেন না, চেষ্টা করুন যাতে মেকআপ ম্যাট ফিনিশ হয়
  • ওয়াটারপ্রুফ মেকআপের সরঞ্জাম দিয়ে মেকআপ করুন
  • প্রাইমার ব্যবহার করার সময়ে দেখে নেবেন তা যেন অয়েল-ফ্রি হয়, কারণ বাতাসে আর্দ্রতা বেশি থাকার জন্য এমনিতেই ত্বক একটু বেশিই তৈলাক্ত হয়ে থাকে
  • চোখের মেকআপ করার সময়ে খেয়াল রাখবেন যেন খুব বেশি গ্লিটারি প্রোডাক্ট ব্যবহার না করেন
  • ফাউন্ডেশন অথবা ব্লাশ লাগানোর সময়ে ক্রিম বেসড না লাগিয়ে পাউডার বেসড প্রোডাক্ট ব্যবহার করুন

কীভাবে সেলেব্রিটিদের মতো কনের সাজে সাজবেন

ইনস্টাগ্রাম

প্রথমেই প্রাইমার লাগিয়ে নিন। যদি প্রাইমার না থাকে তা হলে কোনও ওয়াটার বেসড ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করতে পারেন। প্রাইমার আপনার ত্বকে একটা স্মুদনেস নিয়ে আসে ফলে মেকআপ করার পর খুব ভালভাবে মেকআপ বসে।

এরপর আপনার ত্বকের কমপ্লেকশন অনুযায়ী পাউডার ফাউন্ডেশন বাছুন এবং আঙুলের ডগার সাহায্যে অথবা মেকআপ ব্লেন্ডারের সাহায্যে মুখে গলায়, কানের লতিতে এবং ঘাড়ে ফাউন্ডেশন লাগিয়ে নিন। ফাউন্ডেশন লাগানোর পর কনসিলার লাগাবেন, তা না হলে দুটি প্রোডাক্ট ভালভাবে মিশবে না। মুখে যেখানে যেখানে দাগ-ছোপ আছে, চোখের চারপাশে যদি কালচে ভাব থাকে, তা হলে সেখানে কনসিলার ব্লেন্ড করে নিন।

যদি আপনার মুখের ফিচারগুলো ভালভাবে ফুটিয়ে তুলতে চান তাহলে কন্টোরিং করতে পারেন। কন্টোরিং করার অর্থ হল মুখের ফিচার গুলোকে রি-ডিফাইন, রি-শেপ আর হাইলাইট করা। আপনার চিকবোন, চিবুক, চোয়াল এবং নাকের দু’দিকে কন্টোরিং করতে পারেন যাতে একটা ডায়মেনশন তৈরি হয়। কিন্তু মনে রাখবেন, কন্টোরিং কিন্তু বেশি করবেন না। তাতে কিন্তু আপনার মুখের গড়নই বদলে যেতে পারে!

এরপর লাগান পাউডার ব্লাশ। মনে রাখবেন ব্লাশ কিন্তু দু’রকমের হয় – ওয়ার্ম টোন এবং কুল টোন। যেহেতু কনের সাজটা বর্ষাকালের জন্য কাজেই কুল টোন ব্যবহার করুন। চেষ্টা করুন পীচ বা লাইট ব্রাউনের কোনও শেড ব্যবহার করার।

এবার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজ করে ফেলতে হবে আর তা হল চোখের মেকআপ। যেহেতু বর্ষাকাল কাজেই গ্লিটারি আই মেকআপ একদম চলবে না। প্রথমেই আপনার শাড়ির সঙ্গে ম্যাচ বা কনট্রাস্ট করে আইশ্যাডো লাগিয়ে নিন। যদি আপনি লাল বেনারসি পরেন তা হলে লাল আইশ্যাডো না লাগিয়ে একটু গোল্ডেন ঘেঁষা কোনও শেড দিয়ে চোখের ইনার কর্নার ভরান এবং ধীরে-ধীরে বাইরের দিকে আসার সময়ে গাঢ় শেড ব্যবহার করুন, ঠিক ছবিতে যেমন দেখা যাচ্ছে। এবারে চোখের উপরের পাতায় ঘন করে আইলাইনার লাগিয়ে নিন এবং নীচের পাতায় ডার্ক ব্রাউন শেডের আইশ্যাডো দিয়ে কাজলের মতো করে লাগিয়ে নিন। ভরাট করে মাস্কারা লাগাবেন। ইচ্ছে করলে নকল আইল্যাশও পরতে পারেন।

ম্যাচিং করে লিপস্টিক লাগান। তবে তা যেন গ্লসি না হয় সেটা খেয়াল রাখবেন।

মুখের গড়নের সঙ্গে মানানসই করে চন্দন পরাতে বলুন মেকআপ আর্টিস্টকে। সবশেষে চুল বেঁধে গয়না পরুন এবং মাথায় ওড়না নিয়ে নিন। ব্যস!

 

মূল ছবি সৌজন্য: ইনস্টাগ্রাম 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!