জানেন কি, প্রিয়জনের কাছ থেকে নিয়মিত জাদু কী ঝপ্পি কমিয়ে দিতে পারে স্ট্রেস ও টেনশন?

জানেন কি, প্রিয়জনের কাছ থেকে নিয়মিত জাদু কী ঝপ্পি কমিয়ে দিতে পারে স্ট্রেস ও টেনশন?

যাঃ, সত্যিই যদি তাই হত তা হলে মুন্নাভাই হয়ে যেতেন আমেরিকার রাষ্ট্রপতি আর ভারত-পাকিস্তান-বাংলাদেশ এক হয়ে হিন্দি-পাকি ভাই-ভাই বলে চাউমিন খেত আর চিনারাও একটুও রাগ করত না! কেউ কারও বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করত না, কেউ সুইসাইড বম্বার পাঠিয়ে কাউকে মারত না আর অস্ত্র ব্যবসায়ীরা চাযে-বাসে মন দিত! 

না, না, অতটাও এক্সট্রিমে যাওয়ার কথা বলছি না আমরা। আমরা বলছি, ব্যক্তিগত জীবনে একটু-আধটু জাদু কী ঝপ্পি যদি রোজ পাওয়া যায়, তা হলে মন্দ হয় না! বিশেষত, প্রিয়জন, মানে, যাঁদের উপস্থিতি আপনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ, তিনি বাবা-মা, ভাই-বোন, স্বামী-প্রেমিক-বন্ধু, যে-কোনও কেউ হতে পারেন, তিনি যদি দিনে কয়েকবার আপনাকে একটু জড়িয়ে ধরে আদর করে দেন, তা হলেই চাপ, মানসিক অবসাদের মতো কঠিন ব্যাপারগুলি আর আপনাকে কাবু করতে পারবে না! অন্তত বিজ্ঞানীরা সেটাই বলছেন। আরও একটু বুঝিয়ে বলতে গেলে, আপনি যখন কাউকে জাদু কী ঝপ্পি দেবেন বা গোদা বাংলায় বলতে গেলে জড়িয়ে ধরবেন, তখন আপনার মস্তিষ্কে অক্সিটোসিন নামক এমন একটি হরমোন নিঃসৃত হবে, যেটি এক নিমেষে কমিয়ে দিতে পারে মানসিক চাপ, টেনশন, অবসাদের মতো সমস্যা। এই অক্সিটোসিনের কারণেই প্রিম্যাচিওরড শিশুদের মায়েরা তাদের ক্যাঙ্গারু ট্রিটমেন্ট দিয়ে থাকেন। এই ক্যাঙ্গারু কেয়ার আর কিছুই নয়, মায়ের সঙ্গে শিশুর সরাসরি স্কিন কন্ট্যাক্ট আর তার ফলে শিশুর শরীরে অক্সিটোসিন (Oxytocin) বেড়ে যাওয়ায় তার বাড়বাড়ন্তও তাড়াতাড়ি হয়। 

বুঝতেই পারছেন, একটি ছোট্ট শিশুর শরীরে যদি এই কাডল হরমোন (cuddle hormone) এত প্রভাব ফেলতে পারে, তা হলে আমাদের, মানে পূর্ণবয়স্কদের শরীরে কতটা সুদূরপ্রসারী হতে পারে তার প্রভাব। আসুন, দেখে নেওয়া যাক, কীভাবে জাদু কী ঝপ্পির মাধ্যমে নিঃসৃত এই কাডল হরমোন অক্সিটোসিন আমাদের মানসিক অবসাদ ও চাপ কমিয়ে দেয়। 

১. একাকীত্ব কাটিয়ে আবার মূল স্রোতে ফিরিয়ে দেয়

জানেন কি, বিজ্ঞানীদের মতে, অ্যালঝাইমার্স বা স্মৃতিশক্তি কমে যাওয়ার মতো কঠিন ব্যারামের প্রাথমিক কারণ হল একাকীত্ব? আর এই একাকীত্ব হয় অক্সিটোসিনের অনিয়মিত ক্ষরণে! ভেবে দেখুন, এই একাকীত্বই কিন্তু আবার মানসিক অবসাদের ফাঁদে পড়ার প্রথম স্টেপও বটে। তাই আজকাল, একাকীত্ব দূর করতে ডাক্তাররা পরামর্শ দেন নিয়মিত জাদু কী ঝপ্পি দেওয়ার! আপনারও যদি একা-ফাঁকা হওয়ার সমস্যা থাকে, তা হলে নির্দ্বিধায় আপনজনদের বলুন আপনাকে মাঝে-মাঝে একটু জড়িয়ে ধরে 'পাশে আছি' বলতে! ব্যস, একাকীত্ব নিমেষে পালাবে! 

২. অক্সিটোসিন আপনাকে খুশি রাখে

পিক্সাবে

কারণটা আর কিছুই নয়। এই ধরনের হরমোনের নিঃসরণ আবার পিটুইটারি গ্রন্থি থেকে Endorphin নামক একটি হরমোন নিঃসৃত হতে সাহায্য করে। এই হরমোনই আমাদের মনকে খুশি-খুশি রাখে। এই Endorphin আবার Dopamine-এর নিঃসরণ বাড়িয়ে দেয়। এই ডোপামিন আবার আমাদের ছোট-ছোট কাজ নিয়ে খুশি থাকতে সাহায্য করে। ফলে যদি ছোট একটা জাদু কী ঝপ্পি আমাদের খুশি করে দিতে এতটা সাহায্য করতে পারে, তা হলে তা পেতে মন্দ কী!

৩. জাদু কী ঝপ্পি আমাদের মুড ভাল করে দিতে পারে

আসলে মুড ফ্লাকচুয়েশন বা মুডের ওঠানামা নির্ভর করে সেরোটোনিন নামে অন্য একটি হরমোনের ওঠানামার উপর। আর কাডল হরমোন এই সেরোটোনিনের ক্ষরণ নিয়ন্ত্রণ করে। তাই তো কেউ আমাদের জড়িয়ে ধরে একটু আদর করে দিলে আমাদের মুড ভাল হয়ে যায়। অনেকক্ষণ ধরে ঝগড়ার পর মিষ্টি হেসে পার্টনার যদি একটু হাগ করে, তা হলে ভারী ভাল লাগে। আসলে এসবই হচ্ছে কাডল হরমোনের কামাল!

৪. এটি শরীরে প্রদাহের মাত্রা কমিয়ে দেয়

দেখুন, প্রদাহের মাত্রা কমলে শরীর এমনিতেই জুড়িয়ে যাবে। আর যত শরীর ঠান্ডা হবে, তত মাথাও ঠান্ডা হবে। আর মাথা ঠান্ডা থাকলে স্ট্রেস বা অবসাদ আর আপনার জীবনে থাবা বসাতে পারবে না। তা হলে জাদু কী ঝপ্পি ফলদায়ক হল কিনা? 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!