চটপট ওজন কমিয়ে ফেলতে চান? তা হলে এই খাবারগুলি একসঙ্গে খান!

চটপট ওজন কমিয়ে ফেলতে চান? তা হলে এই খাবারগুলি একসঙ্গে খান!

দেখুন, রোগা হতে আমরা সকলেই চাই! আর সেটাও পেটপুরে খেয়ে, এক্সারসাইজ না করে, সকাল আটটা পর্যন্ত ঘুমিয়ে! কিন্তু সেটা তো আর পুরোপুরি সম্ভব নয়! আবার এক্কেবারে অসম্ভবও নয়! দিনে আধঘণ্টা হাঁটুন, নিজের কাজ নিজে করুন আর স্মার্টলি ডায়েট করুন। তা হলেই রোগা হওয়া সম্ভব। এই স্মার্টলি ডায়েট ব্যাপারটাই হচ্ছে আসল! দেখুন, বিশেষজ্ঞরা একবাক্যে স্বীকার করেছেন যে, ওজন কমানোর পিছনে এক্সারসাইজের ভূমিকা আসলে ২০ শতাংশ। আসল কাজ আমাদের ডায়েটের, মানে, খাবারদাবারের। আসলে উল্টোপাল্টা খেয়ে আমরা এতটাই ক্যালরি বাড়িয়ে ফেলি যে, তারপর সেই বাড়তি ক্যালরিজনিত ওজন কমাতে আমাদের নাভিশ্বাস ওঠে। এখানে আমরা এমন কিছু খাবারের কম্বিনেশনের (food combinations) কথা বলে দিচ্ছি, যেগুলো খেতে বেশ, কিন্তু একসঙ্গে খেলে তা আমাদের শরীরে ইতিউতি জমে থাকা মেদ ঝরাতে (weight loss) অনেকটাই সাহায্য করবে। আর ৮০ শতাংশ যদি অ্যাচিভ করে ফেলেন, তা হলে বাকি ২০ শতাংশ করতেও উৎসাহ পাবেন!

১. দই এবং কাঠবাদাম কিংবা গাজর-ব্রকোলি-কড়াইশুঁটির স্যালাড

জানেন কি, ফ্যাটের সঙ্গে মিশলে ভিটামিন আরও বেশি কাজ করে? তাই এমন কিছু খাবারের কম্বিনেশন, যেগুলোতে এঅ দুটি উপাদান আছে, সেগুলো একসঙ্গে খেলে তা আপনার মেটাবলিজমকে সক্রিয় করতে সাহায্য করবে। ফলে ওজনও অনেক তাড়াতাড়ি কমে যাবে। যেমন ধরুন, টক দই আর আমন্ড বা কাঠবাদাম। রোজ ব্রেকফাস্টে দুধ দিয়ে নয়, টক দই আর আমন্ড দিয়ে এক বাটি কর্নফ্লেক্স খান। উপকার পাবেনই। তেমনই একসঙ্গে খেতে পারেন গাজর, ব্রকোলি আর কড়াইশুঁটির স্যালাড, উপর থেকে ছড়িয়ে দিন অলিভ অয়েল ও গোলমরিচের ড্রেসিং। খেতেও ভাল লাগবে, স্বাস্থ্যও ভাল থাকবে, ওজনও কমবে!  

২. কড়াইশুঁটির পোলাও

খুশি-খুশি লাগছে তো? লাঞ্চে আপনার মেনুতে থাকুক কড়াইশুঁটির পোলাও। কারণ, চাল আর কড়াইশুঁটি একসঙ্গে মিশে যে পরিবেশটা তৈরি করে আপনার শরীরে, তাতে লিন মাসলগুলি চাঙ্গা হয়ে ওঠে। আর এই লিন মাসল আবার মেটাবলিজম সক্রিয় করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। বয়স বাড়ার সঙ্গে-সঙ্গে এই মাসলগুলি শিথিল হয়ে যায়। তাই আগে যা একগাদা খেয়ে একটুও গায়ে গত্তি লাগত না, বয়স হলে সেই খাবার অল্প খেলেও মেদ জমে শরীরে! তবে তা বলে এক থালা পোলাও নিয়ে বসবেন না। এর সঙ্গে খেতে পারেন মুরগির মাংস কিংবা মাছ, অল্প নুন-গোলমরিচ ছড়িয়ে ভেজে নিন। বেশ একটা সাহেবি মেনু কিন্তু!

৩. পালং শাক আর অ্যাভোকাডো অয়েল

এই আমাজন-গ্রফার্স-বিগ বাস্কেটের যুগে যদি বলেন যে অ্যাভোকাডো অয়েল আপনার পাড়ার দোকানে পাওয়া যায় না, তা হলে কিছু বলার নেই। তবে বিকেলের স্ন্য়াক্সে যদি হালকা করে সেদ্ধ করে পালং শাক অ্যাভোকাডো অয়েলের ড্রেসিং ছড়িয়ে খান, তা হলে ওজন কমাতে সুবিধে হবে। আমাদের চেহারায় ফুলোভাব দূর করতে পারে একমাত্র পটাশিয়াম। আর এই দুটি খাবারেই তা ভরপুর আছে। বর্ষাকালে শাকপাতা খেতে ইচ্ছে না করলে হোলগ্রেনের ব্রেডের টোস্টের উপর অ্যাভোকা়ো অয়েল ছড়িয়ে খান, ভাল লাগবে। পেটও ভরবে, আয়নার সামনে নিজেকে দেখতেও ভাল লাগবে!

এখান থেকে কিনতে পারেন অ্যাভোকাডো অয়েল

৪. কাবলি ছোলা আর সালসা

এক কাপ কাবলি ছোলা সেদ্ধ করুন, তার সঙ্গে মেশান স্প্যানিশ সালসা। এটা একরকমের স্প্যানিশ চাটনিবিশেষ, টোম্যোটো, অরিগানো, লাল লঙ্কার গুঁড়ো, গোলমরিচ দিয়ে বাড়িতেও তৈরি করে নিতে পারেন আবার অনলাইনেও কিনতে পারেন। মোট কথা, এই দুটো একসঙ্গে খেতে পারলে ভারী উপকার পাবেন। কারণ, এটি প্রোটিনে ভরপুর এবং অল্পেই পেট ভরিয়ে দেয়! বেশি খেতে হয় না, ফলে ওজনও বাড়ে না!

এখান থেকে কিনতে পারেন সালসা

৫. মুরগির মাংস ও কেয়ান পেপার

এই কায়েন পেপার হল একরকমের বিদেশি লঙ্কার গুঁড়ো! দামে বেশি নয়, কিন্তু কাজে খাসা। ডিনারের মেনুটা বলে দেওয়া যাক তা হলে! মুরগির মাংল গ্রিল করে নিন, উপর থেকে ছড়ান কেয়ান পেপার, অলিভ অয়েলে মিশিয়ে। এবার অল্প সবজি সেদ্ধর সঙ্গে খেয়ে ফেলুন! এই কেয়ান পেপার আসলে ফ্যাট বার্নিং প্রসেসটির গতিবেগ বাড়িয়ে দেয়। আপনি মাছ হালকা ভেজে কিংবা ডিম-সবজির স্যালাডের সঙ্গেও কেয়ান পেপার মিশিয়ে খেতে পারেন। 

এখান থেকে কিনতে পারেন কেয়ান পেপার

 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!