সম্পর্ক নিয়ে সিরিয়াস? তা হলে এই ছয়টি উপদেশ মেনে চলুন

সম্পর্ক নিয়ে সিরিয়াস? তা হলে এই ছয়টি উপদেশ মেনে চলুন

আজকাল ছেলেমেয়েরা নাকি প্রেম বিষয়টাকে পাত্তাই দেয় না! তারা শুধু হাত ধরে ঘোরাঘুরি করে, চিনে বাদাম খায় ব্যাস তারপর সব ভুলে যায়। আরে না মশাই, পুরো গল্পটা এরকম হলে পৃথিবী আর ঘুরত না, এক জায়গাতেই স্থির হয়ে থাকত। আমরা জানি, আপনারাও সম্পর্ক নিয়ে যথেষ্ট সিরিয়াস, আর সেটাই হওয়া উচিত। তবে সিরিয়াস সম্পর্ক হলে কিন্তু তাঁর দায়িত্বও অনেক বেশি হয়। সুতরাং আপনি যদি সদ্য সম্পর্কে জড়িয়ে থাকেন বা দীর্ঘদিন কোনও সিরিয়াস (serious) সম্পর্কে (relationship) কমিটেড থাকেন, তা হলে আমাদের এই ছয়টি উপদেশ অবশ্যই মেনে চলুন। 

অতীত ভুলে এগিয়ে চলুন

পিক্সাবে

সম্পর্ক নিয়ে সত্যিই সিরিয়াস? তা হলে অতীতটা যে ডিলিট করতে হবে বস! হতে পারে, এর আগে আপনার অন্য কারও সঙ্গে সম্পর্ক ছিল। সে থাকতেই পারে। বা আপনার প্রেমিকেরও অন্য কারও সঙ্গে এর আগে মন দেওয়া নেওয়া হয়েছে। ওসব এবার জাস্ট ভুলে যান। কারণ, যে সময় চলে গেছে তার জন্য খামোখা কান্নাকাটি করে সময় নষ্ট না করাই মঙ্গল। বরং এখন যে সম্পর্কে আছেন, সেটা নিয়ে ভাবুন। বর্তমান মজবুত করুন, তাতে ভবিষ্যৎও উজ্জ্বল হবে। 

মানুষটিকে ভাল করে জেনে নিন

যখন আপনি ক্যাজুয়ালি ডেট করছিলেন, তখন বিষয়টা অন্যরকম ছিল। আপনারা দু'জনেই জানতেন, এই সম্পর্ক বেশি দূর এগোবে না বা আপনারা এগিয়ে নিয়ে যাবেন না। কিন্তু এবার যখন আপনি একটু বেশিই সিরিয়াস হয়েছেন এবং ভবিষ্যৎ নিয়ে অনেক কিছু ভাবছেন, তখন সব কিছুর আগে একটা কাজ করা দরকার। যাঁর সঙ্গে সম্পর্কে আছেন তাঁর বিষয়ে ভাল করে জেনে-বুঝে নেওয়া প্রয়োজন। পরে যাতে হঠাৎ করে এমন কোনও সত্যি আপনার সামনে না আসে, যেটা আপনি আগে থেকে জানতেন না! 

তুলনা করা বন্ধ করুন

"আগের বয়ফ্রেন্ড তো এটা ভালবাসত, তুমি কেন পছন্দ করছ না" বা "আমার অমুক বান্ধবীর প্রেমিক তো এইটা খুব ভাল পারে তুমি কেন পার না?" এরকম কোনও তুলনামূলক আলোচনা করবেন না। এতে জটিলতা বাড়বে বই কমবে না। আর তাঁকেও বলুন আপনি যেমন, সেভাবেই আপনাকে গ্রহণ করতে। আর অন্যদের সঙ্গে খামোখা তুলনা না করে জটিলতা না বাড়াতে। বিশেষ করে অতীতে যাঁদের সঙ্গে সম্পর্কে ছিলেন তাঁদের কথা না তোলাই মঙ্গল।  

মাঝে-মধ্যে ঝগড়া করা ভাল

হ্যাঁ, ঠিক শুনেছেন। কোনও কিছুই অতিরিক্ত ভাল নয়। বেশি মাখামাখি বা বেশি ঢলঢল প্রেমও এক লহমায় ভেঙে যায়। মাঝে-মধ্যে একটু আধটু দুষ্টু মিষ্টি ঝগড়া হলে প্রেম আরও ঘনীভূত হয়। তবে কথায়-কথায় ঝগড়া করবেন না। এতে কিন্তু সম্পর্কের ভিত নড়বড়ে হয়ে যাবে। আপনার যেটা ভাল লাগছে না বা পছন্দ হচ্ছে না, সেটা প্রেমিককে বুঝিয়ে বলার অধিকার আপনারা আছে। 

সম্পর্কে খারাপ সময় আসতেই পারে। ভেঙে পড়বেন না

ভাল থাকলে খারাপও থাকবে। ব্যাড প্যাচ সম্পর্কে আসতেই পারে। তার জন্য মুষড়ে পড়ার কোনও দরকার নেই। বরং কীভাবে সেই সমস্যার সমাধান করা যায় সেটা ভেবে দেখুন। প্রয়োজন হলে ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের সাহায্য নিন। 

অ্যাডজাস্ট করতে শিখুন

ভালবেসেছেন বলে তো আর সব কিছু ভাল লাগতে পারে না তাই না? হতে পারে প্রেমিকের ছোট বোনকে আপনি পছন্দ করেন না। বা প্রেমিকের বেস্টফ্রেন্ডের বেশি বকবক করাটা আপনার বিরক্তিকর লাগে। আবার এমনটাও হতে পারে যে বয়ফ্রেন্ড যে লাল টি শার্টটা দারুণ পছন্দ করে সেটা আপনার চক্ষুশূল। রিল্যাক্স। আমরা সবাই একেকটি একক মানুষ। সুতরাং একটু আধটু অ্যাডজাস্টমেন্ট আপনাকে করতেই হবে। আর এই সম্পর্ক নিয়ে আপনি যদি সত্যিই সিরিয়াস হন, তাহলে আমরা জানি এটা আপনি করবেনও। কী তাই তো? 

 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!


আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!