যৌনতা সংক্রান্ত এই বস্তাপচা মিথগুলি থেকে এবার নিজেকে মুক্তি দিন!

যৌনতা সংক্রান্ত এই বস্তাপচা মিথগুলি থেকে এবার নিজেকে মুক্তি দিন!

Sex! যদিও আমরা একবিংশ শতকে বাস করি, তবুও এই শব্দটি কিন্ত আমরা উচ্চারণ করার আগে বারবার ভাবি। আমরা মানে, মহিলারা। জানেন তো, আমরা না নামেই প্রোগ্রেসিভ, আদতে নই। খেয়াল করে দেখবেন, সিনেমাতেও কখনও 'সেক্স' কথাটি বলা হয় না, বরং বলা হয়, 'আমাদের মধ্যে সেদিন যা হয়েছে'! আরে বাবা, আমরা সকলেই জানি কী হয়েছে! আচ্ছা, বলুন তো, এত ছুঁতমার্গের কী কারণ? চলুন না, যৌনতা (sex) সংক্রান্ত ভ্রান্ত ও বস্তাপচা ধারণাগুলো (myth) এবার ভাঙি!

আরো পড়ুনঃ পর্নোগ্রাফির নেশা থেকে মুক্তির উপায়

সেক্স মিথ ১ – আপনার ‘স্বামী’ আপনাকে জোর করতেই পারেন

হ্যাঁ, এরকমটা নিশ্চয়ই কোনও না-কোনও সময় আমরা প্রতিটি মহিলাই শুনেছি! আর আশ্চর্যের বিষয় হল, কথাটা অন্য কোনও মহিলার থেকেই আমি বা আপনি শুনেছি/শুনেছেন! যদি কখনও আপনি আপনার মায়ের কাছেও বলতে গেছেন যে আপনার স্বামী শারীরিক সম্পর্ক তৈরি করার জন্য আপনাকে জোর করেন, তা হলে অনেক সময়েই তার উত্তরে বলা হয়, তাতে কী হয়েছে? উনি তো আপনার স্বামী, উনি তো করতেই পারেন!

রিয়্যালিটি চেক – না, পারেন না! আপনার শরীর, আপনার মন, আর তার উপরে অধিকার শুধুমাত্র আপনার একার! অন্য কারও নয়। আপনাদের দু’জনের মতে যদি শারীরিক মিলন ঘটে, তা হলে কোনও সমস্যাই নেই। তবে যদি একজনের অমত থাকে, সেক্ষেত্রে কিন্তু অন্যজন শুধুমাত্র ‘স্বামী’ বলে জোর করতে পারেন না! এবার এই ধারণাটি ত্যাগ করুন। 

সেক্স মিথ ২ – মেয়েরা সেক্স নিয়ে আলোচনা করতে পারে না

আমাদের সমাজে পুরুষরা যদি কোনও মহিলার শারীরিক গঠন নিয়ে বা তাঁদের নিজেদের বেডরুমের কথা বন্ধুদের সঙ্গে আলোচনা করেন, তা হলে সেটা খুব ‘কুল’ একটা ব্যাপার! কিন্তু এই এক কাজ যদি কোনও মহিলা করেন, তা হলেই তিনি ‘নোংরা মানসিকতার’! কেন?

রিয়্যালিটি চেক – আচ্ছা, একটা কথা বলুন তো, সেক্সুয়াল ডিজায়ার বা শারীরিক চাহিদা কি শুধুমাত্র পুরুষদের থাকে এবং মহিলাদের থাকে না? নাকি থাকতে নেই? আর যদি বন্ধুদের সঙ্গে বা নিজের সঙ্গীর সঙ্গে মন খুলে কথা বলা না যায়, তা হলে সেই সম্পর্কের আদৌ কি কোনও মানে আছে?

সেক্স মিথ ৩ – মহিলারা পর্ণ দেখেন না

আমাদের সমাজের বেশিভাগ পুরুষ ও মহিলাদের ধারণা যে মহিলাদের পর্ন দেখার দরকার নেই! এটা শুধুমাত্র পুরুষদেরই অধিকার এবং দেখার বিষয়! আরও অদ্ভুত একটি ধারণাও রয়েছে, যে মহিলারা পর্ন দেখেন, তাঁরা ‘দুশ্চরিত্রা’ হন!

রিয়্যালিটি চেক – সত্যি? আপনি যদি এখনও এই ধারণা নিয়ে বসে থাকেন, তা হলে দয়া করে একটু গুগল করে নেবেন। ভারতে পুরুষদের তুলনায় মহিলা পর্ন দর্শক বেশি! সমিক্ষায় জানা গিয়েছে প্রতি তিনজন মহিলার মধ্যে অন্তত একজন সপ্তাহে একবার হলেও পর্ন দেখেন। আপনি হয়তো জানেন না, কিন্তু ‘পর্ন হাব’-এর ডেটা থেকে জানা গিয়েছে, মহিলারা পুরুষদের তুলনায় সেখানে বেশি সময় কাটান!

সেক্স মিথ ৪ – ভার্জিন না হলে কেউ বিয়ে করবে না

ফুলসজ্জার রাতে যদি আপনার স্বামী জানতে পারেন যে, আপনি ভার্জিন বা কুমারী নন, তা হলে কিন্তু আপনার মতো দুশ্চরিত্রের মহিলা গোটা বিশ্বে আর একজনও নেই! কী বলছেন, আপনার স্বামী ভার্জিন কিনা, তা জানতে চান? এত বড় সাহস আপনার? আরে উনি পুরুষমানুষ, আর আপনি একজন মহিলা! আপনি মানুষ হিসেবে কেমন, ভাল না মন্দ, আপনি কাজের দিক থেকে কতটা নিপুণভাবে ঘরকন্না করতে পারেন বা অফিসে কতটা দক্ষতার সঙ্গে সব কাজ সামলাতে পারেন সেগুলো গুরুত্বপূর্ণ নয়, আপনি বিয়ের আগে নিজের কৌমার্য হারালে আপনি ‘পাপী’!

রিয়্যালিটি চেক – দয়া করে এসব বস্তাপচা ধ্যান ধারণা থেকে বেরিয়ে আসুন না! আর যদি আপনার ভার্জিনিটি কারও কাছে আপনার থেকেও বেশি দামি হয়, আমাদের মনে হয় তাকে খুব একটা দাম দেওয়ার প্রয়োজন আপনার নেই!

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!