দাম্পত্য হোক বা প্রেম, সম্পর্ক মজবুত করতে কিছু কথা গোপন রাখতে শিখুন

দাম্পত্য হোক বা প্রেম, সম্পর্ক মজবুত করতে কিছু কথা গোপন রাখতে শিখুন

মেয়েদের পেটে নাকি কোনও কথা সহ্য হয় না। যতক্ষণ না সেই গোপন কথা পাঁচ কান হচ্ছে তাঁদের ভাত হজম হয় না। একদম মিথ্যে কথা। নিজের সংসারের হাঁড়ির খবর ফলাও করে বলায় ছেলেরাও কম যায়না। আপনার কি মনে হয়, ছেলেদের সব আড্ডা শুধু ফুটবল আর রাজনীতি নিয়ে হয়? একদম না। আসলে আমাদের এটা স্বভাব। ছেলে মেয়ে নির্বিশেষে আমরা মনে করি যে সম্পর্কের গোপন জটিল কথাগুলো সবার সঙ্গে আলোচনা করলে বোধহয় সমস্যার সমাধান হয়। মানসিকভাবেও বেশ হাল্কা বোধ করা যায়। আর সোশ্যাল মিডিয়ার কল্যাণে এখন তো এমনিতেই সব কিছু উজাড় করে শেয়ার করার যুগ। সুতরাং… তবে কী জানেন তো, কোথাও একটা রাশ (secret) টানার প্রয়োজন আছে। কারণ সম্পর্ক (relationship) আপনার আর আপনার পার্টনারের মধ্যে। সেটাকে সামলে রাখার দায়ও আপনার। তাই কিছু কথা নিজেদের মধ্যে রাখতে শিখুন। 

ঘনিষ্ঠতার কথা

pixabay

বিয়ের আগে আপনি সঙ্গীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করেছেন কিনা বা বিয়ের পর স্বামীর সঙ্গে আপনি কতবার মিলিত হন, এই নিয়ে সবার সঙ্গে আলোচনা করবেন না। এগুলো একদম আপনাদের দুজনের ব্যক্তিগত ব্যাপার। সম্পর্কের মধ্যে অন্যতম একটি অংশ হল ‘যৌনতা’। যেটা গোপন রাখাই কাম্য। 

ব্যক্তিগত কথা

প্রতিটি সম্পর্কেই কিছু গোপন কথা থাকে। যেগুলো শুধু আপনি আর আপনার পার্টনার জানেন। হতে পারে বিষয়টি খুব তুচ্ছ। কিন্তু তুচ্ছ হলেও সেটা সবাইকে বলতে যাবেন না। আপনার প্রিয় বন্ধু বা বান্ধবী যে হয়তো আপনাদের সম্পর্কের বেশিরভাগ খুঁটিনাটিই জানে, তাঁকেও বলবেন না।

পার্টনারের খুঁত

আমরা কেউই নিখুঁত নই। দোষে গুণেই মানুষ হয়। পার্টনারের মধ্যে যদি কোনও খুঁত থাকে বা দোষ থাকে সেটা সবাইকে ঠাট্টা করে বলতে যাবেন না। কারণ আপনি পিছন ঘুরলেই যাঁদের এগুলো বলেছেন তাঁরা এটা নিয়ে হাসাহাসি করবে। তাঁরা এটাও বলবে আপনি এমন একজনকে বেছে নিয়েছেন যাঁর মধ্যে এই দোষ আছে। এতে আপনাদের দু’জনেরই সম্মানহানি হবে। 

টাকাপয়সা ও আইনি ব্যাপার

pixabay

পার্টনার কত টাকা মাইনে পান বা তাঁর ব্যবসার টার্ন ওভার কত এগুলোও কাউকে বলতে যাবেন না। বিশেষ করে আপনারা কোথায় কত টাকা বিনিয়োগ করছেন এই বিষয়ে মুখ না খোলাই ভাল। এর সঙ্গে মাথায় রাখুন আইনি ব্যাপারও। হতে পারে আপনারা এখন আর একসঙ্গে নেই। আপনাদের সেপারেশান চলছে। অর্থাৎ বিষয়টি এখন আইনের অধীনে। তাই এটা নিয়েও সকলের সঙ্গে কথা না বলাই ভাল। 

ঝগড়া ও পারিবারিক সমস্যা

pixabay

বুঝতেই পারছেন, দুটোই খুব স্পর্শকাতর বিষয়। যে কোনও সম্পর্কেই ঝগড়া বা মনোমালিন্য হতেই পারে। আপনার দোষ না তাঁর দোষ এই নিয়ে অন্যদের সঙ্গে আলোচনা করবেন না। একই কথা প্রযোজ্য পারিবারিক সমস্যা নিয়েও। দুই পরিবারেই যদি কোনও সমস্যা থেকে থাকে, তা হলে সেটা অন্যদের না জানাই ভাল। 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!