পুজো স্পেশ্যাল টিপস: পুজোর আগে মহামায়ার আশীর্বাদ পেতে ঘর সাজান বাস্তু মেনে

পুজো স্পেশ্যাল টিপস: পুজোর আগে মহামায়ার আশীর্বাদ পেতে ঘর সাজান বাস্তু মেনে

পুজো (puja) এলেই বাঙালি দিলদরিয়া হয়ে যায়! যে বাঙালির নুন আনতে পান্তা ফুরোয়, যে বাঙালি ঘণ্টাখানেক দামদর না করে সেফটিপিন পর্যন্ত কেনে না, সেই বাঙালি দরাজ হাতে খরচ করে পুজোর পুরো সময়টা। বাড়ির সবার জন্য কেনাকাটা করা তো আছেই। তার সঙ্গে আছে বাড়ি সাজানোর ধুম। আকাশে পেঁজা তুলোর মতো মেঘ আর শিউলি ফুটলেই বাড়ির দেওয়ালের রংটা কেমন যেন পানসে লাগে, মনে হয় সব পাল্টে ফেলি। মানে আমার নয় আপামর বাঙালির এমনটাই মনে হয়। আরে বাবা বছরে একবার মেয়ে আমাদের সাধ করে বাপের বাড়ি আসে, তাঁকে স্বাগত জানাতে হবে না? নিশ্চয়ই জানাবেন। কিন্তু মা দুর্গার (Durga) আশীর্বাদ পাওয়া কি আর এত সহজ? তাই পুজোর আগে ঘর সাজাতে (decorate) হলে বাস্তুর নিয়ম মেনে করাই ভাল। তাহলে সুখ সমৃদ্ধি হবে আপনার চিরদিনের সঙ্গী।এবারের পুজোয় আপনারও যদি এরকম কোনও প্ল্যান থাকে তা হলে ঘরের ভোল পাল্টে দেওয়ার আগে একবার বাস্তুর (vastu) নিয়মগুলো দেখে নিন। 

instagram

১) দুর্গা পুজোর আগে যদি ঘর রং করান তাহলে উজ্জ্বল রং বেছে নেবেন, কারণ দেবীপক্ষ শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অশুভের নাশ হয়, সব কিছু হয় শুভ। বাস্তুবিদরা বলছেন, দেবীপক্ষ শুরু হওয়ার পর থেকেই আপনি যদি বাড়িতে কিছু নাও পাল্টান তাহলেও একটা কাজ আপনাকে করতেই হবে। ঘর একদম অন্ধকার রাখবেন না। আলো জ্বালিয়ে রাখুন। চাইলে এই সময় সুন্দর ল্যাম্পশেড কিনতে পারেন। সেটা নিজের বেডরুমের পূর্বদিকে রাখুন। 


২) বাড়িতে যদি শোপিস হিসেবে কোনও ঠাকুরের মূর্তি থাকে, তাহলে সেটা ধুলো ঝেড়ে ভাল করে পরিষ্কার করে নিন। কোনও বস্তুর উপর বিশেষ করে কোনও দেব দেবীর মূর্তির উপর যেন ধুলো বা ঝুল না থাকে। যদি পেতলের মূর্তি হয় তাহলে ঘষে পরিষ্কার করে নিন। যেখানে এই মূর্তি আছে সেটা যেন কোনও কোণে অন্ধকারে না থাকে। সেটাকে আলোয় নিয়ে আসার ব্যবস্থা করুন। 

pixabay

৩) বাথরুম যেখানে আছে তার আসেপাসে কোনও মূর্তি রাখবেন না। বিশেষ করে দেব দেবীর মূর্তি একদমই নয়। অন্যকোনও শোপিস রাখতে পারেন কিন্তু সেটা যেন পরিষ্কার থাকে। বাথরুমের দরজা খোলা রাখবেন না। বাথরুমের দরজায় কোনও কাচের আয়না রাখবেন না। 


৪) আপনার ঠাকুরঘরেও পজিটিভ এনার্জির ব্যবস্থা রাখতে হবে। ঠাকুরঘরে কোনও দড়ি টাঙাবেন না। ভিজে কাপড় শুকোতে দেবেন না। যখন ঘর ঝাঁট মোছা করবেন তখন তাড়াতাড়ি ফ্যান চালিয়ে শুকিয়ে নেবেন। ঠাকুরঘর যেন ভেজা ভেজা না থাকে। 


৫) বাস্তুবিদরা বলছেন মার্বেল বস্তুটি পুজোর আগে ব্যবহার না করাই ভাল। এতে পজিটিভ এনার্জি প্রতিফলিত হয়ে বেরিয়ে যায়। তাই ঘরের মেঝেয় যদি মার্বেল বসানোর প্ল্যান থাকে তাহলে সেটা পুজোর পর করবেন। পুজোর আগে বা পুজোর সময় মার্বেলের তৈরি কোনও বস্তু যেমন হোল্ডার বা শোপিস এগুলো কিনবেন না।   

Featured Durga Image: DurgapujaKolkata

 


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!