পুজোর সময় স্বামী-স্ত্রী সাজুন সামঞ্জস্য রেখে, রইল পাঁচটি টিপস in Bengali | POPxo

পুজোর টিপস: পুজোর দিনগুলোতে স্বামী-স্ত্রী বা প্রেমিক-প্রেমিকা সাজগোজ করুন সামঞ্জস্য রেখে

পুজোর টিপস: পুজোর দিনগুলোতে স্বামী-স্ত্রী বা প্রেমিক-প্রেমিকা সাজগোজ করুন সামঞ্জস্য রেখে

বেশিদিন বাকি নেই! আর কয়েকদিন পরেই শুরু হতে চলেছে বাঙালির ফ্যাশন কার্নিভাল, যাকে আমরা সোজা বাংলায় দুর্গা পুজো (Durga Puja) বলি! লোকে মোটামুটি রেডি। শাড়ি-ব্লাউজ, সালোয়ার-কামিজ, ড্রেস-টপ-কুর্তি-ডেনিম...সব বাছাবুছি প্রায় শেষ পর্যায়ে। এখন হয়তো শেষ মুহূর্তের রেডিমেড জামাকাপড়, গয়নাগাঁটি নিয়ে টানাহেঁচড়া চলছে।

কিন্তু এসবের মাঝখানে একটা জিনিস আমরা অনেকেই ভুলে যাই! সেটি হচ্ছে, আপনাকে সাজতে হবে আপনার সঙ্গীর সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে! মানে, আপনি লাল পাড় সাদা শাড়িতে সেজে অষ্টমীর অঞ্জলি দিতে গেলেন, আর এদিকে আপনার স্বামী কিংবা প্রেমিকপ্রবরটি পরলেন জিনস এবং টি শার্ট! ছবিতে কতটা বাজে লাগবে, ভেবে দেখেছেন কখনও?

আজকাল এই ভরা সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে এই ধরনের খাপছাড়া সাজগোজ (dress up) আর পায়ে কুড়ুল মারার মধ্যে কোনও তফাত নেই! তাই যদি দু'জনে ভেবেচিন্তে, রং এবং ধরন মিলিয়ে পোশাক না পরেন, আপনাদের যুগলের ছবি আর যেখানেই হোক, ফেসবুক-ইনস্টাগ্রামে অন্তত দেওয়া যাবে না। আর এবার পুজোয় এই দুটো জায়গায় সেলফি পোস্টানো আপনি নিশ্চয়ই মিস করতে চান না? তাই এখানে আমরা কিছু টিপস বলে দিচ্ছি, সেগুলো মাথায় রাখলেই আপনারা মোটামুটি পুজোর সেরা কাপল (couple) কনটেস্ট জেতার দাবিদার হয়ে যেতে পারেন!

স্বামী-স্ত্রীয়ের সাজগোজ হোক সামঞ্জস্য রেখে

  • দু'জনের সব পোশাক একসঙ্গে বের করে খাটের উপরে রাখুন। এবার এক-এক ধরনের পোশাক একদিকে করতে থাকুন। যেমন, শাড়ি-সালোয়ারের সঙ্গে রাখতে পারেন আপনার স্বামীর কুর্তা-পায়জামা-পাঞ্জাবি। মোট কথা, আপনি ভারতীয় পরলে তিনি যেন সিক্স পকেটস পরে না বেরোন! আপনি ড্রেস পরলে তাঁর অঙ্গে যেন ধুতি-পাঞ্জাবি শোভা না পায়! আপনি ভারতীয় হলে তিনি খুব জোর ফিউশন হতে পারেন, কিন্তু খাঁটি পশ্চিমি কেতায় সাজতে পারেন না! একদম না! 
  • এবার এক-একটি দিন করে পোশাক বাছুন। মানে, ষষ্ঠীর সকাল-ষষ্ঠীর রাত ইত্যাদি। তবে খেয়াল রাখবেন, কোন দিনের কী প্ল্যান। যেদিন হোল নাইট ঠাকুর দেখার প্ল্যান, সেদিনের জন্য কাঞ্জিভরম শাড়ি আর ধাক্কা পাড় ধুতি বাছবেন না যেন! এভাবে আপনার আর আপনার বরের প্রতিটি দিনের পোশাক আলাদা করে রাখুন।
  • সাধারণতই ছেলেদের তুলনায় মেয়েদের পোশাকের ভ্যারাইটি ঢের বেশি হয়। তাই আগে থেকেই দেখে নিন, আপনার স্বামীটির ভাণ্ডারে যথেষ্ট ভ্যারাইটির পোশাক আছে কিনা। পুজোর এখনও কয়েকদিন বাকি। দরকার পড়লে এখনও শেষ মুহূর্তের কেনাকাটা হতে পারে। তাই আগে থেকেই বেছে রাখুন। দেখবেন, আপনার ভারতীয় পোশাকের গুনতি আর তাঁর ভারতীয় পোশাকের গুনতি যেন এক রকমের হয়। একই কথা প্রযোজ্য পশ্চিমি পোশাকের ক্ষেত্রেও।
  • কালার কো-অর্ডিনেশন চলবে, কিন্তু রং মিলান্তি খেলতে যাবেন না প্লিজ। সময়টা পুজোর, আপনার বিবাহবার্ষিকীর নয়! তাই আপনি লাল শাড়ি পরলে তাঁকেও লাল ধুতি পরতে হবে, এরকম ধারণা মাথায় থাকলে এখনই তা ঝেড়ে ফেলুন। তবে দু'জনের পোশাকের রং যেন স্ট্রাইকিংলি অপোজিট না হয়, সেদিকে লক্ষ রাখতে পারেন। দুজনেই ওয়র্ম কালার পরুন কিংবা দুজনেই পরুন কুল কালার। আপনি সবুজ আর তিনি কমলা...এই ফ্যাশন হারাকিরির জন্য তো সারা বছর পড়ে রইলই!
  • আপনি নিজের সাজের প্রতি যতটা যত্নবান, সেরকম তাঁর দিকেই নজর রাখুন। পুজোর আগে একটা ভাল হেয়ারকাট, চুলে রংয়ের প্রয়োজন আছে কিনা, দাড়ি-গোঁফের শেপ ঠিক আছে কিনা, এগুলো দেখে নিন। আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ জিনিস হল জুতো। ছেলেরা বেশিরভাগ সময়ই পোশাকের সঙ্গে মানানসই জুতো পরে না। তাই লক্ষ রাখুন সেদিকেও। 

দেখুন, দুর্গা পুজো হচ্ছে পরিবারের সঙ্গে সেজে ফাটিয়ে দেওয়ার সময়! নিজেদের ঝলমলে ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় দিয়ে পড়শির ঈর্ষা, আপনার গর্ব হওয়ার সময়! তাই সাজগোজের দিকে কড়া নজর আপনাকে দিতেই হবে, কিচ্ছু করার নেই। টিপস তো আমরা দিয়েই দিলাম। হাতে-কলমে করে দেখানোর পালা আপনার। এটুকু নিশ্চয়ই পারবেন, তাই না?

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এসে গেল #POPxoEverydayBeauty - POPxo Shop-এর স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাক্কায়...