বাস্তু শাস্ত্র বলছে, ভাগ্যলক্ষ্মীকে নিজের বশে আনতে বাড়িতে এই গাছগুলি রাখতেই হবে!

বাস্তু শাস্ত্র বলছে, ভাগ্যলক্ষ্মীকে নিজের বশে আনতে বাড়িতে এই গাছগুলি রাখতেই হবে!

সাফল্যের স্বাদ পেতে পরিশ্রমের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। কিন্তু শুধু পরিশ্রম করে কি সফল হওয়া সম্ভব? মনে তো হয় না! কারণ, পরিশ্রমের পাশাপাশি ভাগ্যের সঙ্গ পাওয়াটাও জরুরি। তাই তো ভাগ্য পকেটস্থ না হলে হাজার পরিশ্রম করেও মনের মতো ফল পাবেন না। কিন্তু প্রশ্ন হল ভাগ্য নামক চিড়িয়াকে খাঁচা বন্দি করার কোনও উপায় আছে কি? আলবাত রয়েছে! কী উপায়? এই প্রশ্নের উত্তর পেতে হাজার বছর আগে লেখা বাস্তুশাস্ত্রের দিকে নজর ফেরাতে হবে। প্রাচীন এই শাস্ত্র মতে আমাদের বাড়ির অন্দরে যেমন খারাপ শক্তি রয়েছে, তেমনই শুভ শক্তিরও দেখা মেলে। কোনও ভাবে যদি শুভ শক্তির মাত্রা বাড়িয়ে তোলা যায়, তাহলেই খারাপ সময় কেটে যাবে। সঙ্গী হবে সৌভাগ্যও। কিন্তু শুভ শক্তির প্রভাব বাড়বে কীভাবে? বাস্তু বিশেষজ্ঞদের মতে বিশেষ কিছু গাছকে অন্দরমহলে জায়গা করে দিলে ভাগ্য তো ফিরবেই, সঙ্গে শরীর-মনও তরতাজা হয়ে উঠবে। শুধু তাই নয়, শুভ শক্তির প্রভাবে কোনও খারাপ ঘটনা ঘটার আশঙ্কাও আর থাকবে না। তাই তো বলি, অল্প সময়েই সাফল্যের শিখরে ওঠার স্বপ্ন পূরণ করতে হলে এই গাছগুলি (plants) বাড়িতে এনে রাখতে দেরি করবেন না যেন!

Table of Contents

    বাস্তুশাস্ত্রের জন্ম কবে? (Origin of Vastu Shastra)

    বেদের অংশ হল বাস্তুশাস্ত্র। আজ থেকে প্রায় হাজার বছর আগে এই শাস্ত্রের জন্ম হয়েছিল। পুরাণেও বাস্তুশাস্ত্রের উল্লেখ পাওয়া যায়। প্রাচীন এই শাস্ত্রে বাড়ির অবস্থান, স্থাপত্য সহ বাস্তু সম্পর্কিত নানা তথ্যের সন্ধান পাওয়া যায়। এমনকী, দৈনন্দিন জীবনের ভাল-মন্দের সঙ্গেও যে বাস্তুর যোগ রয়েছে, সে কথার উল্লেখও পাওয়া যায় এই শাস্ত্রে। তাই তো সুখে-শান্তিতে থাকতে আজও বাস্তুশাস্ত্র মেনে বাড়ি-ঘর তৈরির পরামর্শ দেওয়া হয়ে থাকে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বাস্তুশাস্ত্রের জন্মের পর থেকে এই শাস্ত্রের জনপ্রিয়তা যে ক্রমাগত বেড়েছে, তার প্রমাণ মেলে বহু যুগ আগে লেখা নানা বইয়ের দিকে দিকে নজর ফেরালেই। রামায়ণ এবং মহাভারতেও যেমন বাস্তুশাস্ত্রের উল্লেখ পাওয়া যায়, তেমনই হরপ্পা এবং মহেঞ্জোদারোর মতো শহরও যে বাস্তুশাস্ত্র মেনে গড়ে উঠেছিল, সে প্রমাণও মেলে। তাই বুঝতেই পারছেন মানব সভ্যতার বিকাশের সঙ্গে সঙ্গে বাস্তুশাস্ত্রের জনপ্রিয়তাও বেড়েছে, যা আজ, এই একুশ শতকে এসে আকাশ ছুঁয়েছে। তাই বাস্তুশাস্ত্রের নিয়মগুলি যতই আজগুবি লাগুক না কেন, এর যে কিছু না কিছু সুফল রয়েছেই, তাতে কোনও সন্দেহ নেই।

    আরও পড়ুন: কোন ফার্নিচার কোথায় রাখা উচিত?

    ভাগ্য ফেরাতে বাড়িতে আনুন এই গাছগুলি (Plants That Bring Good Luck for Your Home)

    বাড়িতে শুভ শক্তির প্রভাব বৃদ্ধির মধ্যে দিয়ে ভাগ্য ফেরাতে বাড়িতে যে যে গাছগুলি এনে রাখতে হবে, সেগুলি হল...

    ১| রাবার গাছ (Rubber Plant)

    এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে বাড়িতে এই গাছটি এনে রাখলে খারাপ সময় কেটে যেতে সময় লাগে না। ফলে কর্মক্ষেত্রে সাফল্য পাওয়ার সাম্ভাবনা যেমন বাড়ে, তেমনই টাকা-পয়সা সংক্রান্ত নানা ঝুট-ঝামেলা মিটে যেতেও সময় লাগে না। যাঁরা ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত, তাঁরা এই গাছটি বাড়িতে এনে রাখা মাত্র নাকি ব্যবসায় উন্নতি ঘঠার সম্ভাবনা বাড়ে। শুধু তাই নয়, রাবার গাছের আরও কিছু উপকারিতাও আছে। বিশেষ করে এই গাছটি পরিবেশে উপস্থিত টক্সিক উপাদানগুলি শোষণ করে নেয়। ফলে শ্বাস-প্রশ্বাসের সঙ্গে নানা ক্ষতিকর উপাদান শরীরে প্রবেশ করে নানা রোগের খপ্পরে পড়ার আশঙ্কা কমে।

    আরও পড়ুনঃ পরিবেশ দূষণ নিয়ে উক্তি

    ২| বাঁশ গাছ (Bamboo Tree)

    Pixabay

    বাস্তুশাস্ত্রে তো বটেই, ফেংশুই শাস্ত্রেও বাড়িতে বাঁশ গাছ রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। বিশেষ করে বাড়িতে যদি lotus bamboo রাখা যায়, তাহলে তো কথাই নেই! সেক্ষেত্রে পরিবারে সুখ-শান্তি বিঘ্নিত হওয়ার আশঙ্কা কমে, সেই সঙ্গে ভাগ্যের সঙ্গও পাওয়ার সম্ভাবনাও বাড়ে। যাঁরা টাকা-পয়সা সংক্রান্ত নানা ঝামেলায় জড়িয়ে পরেছেন, তাঁরাও বাড়িতে এই গাছটি এনে রাখতে পারেন। তাতে যে নান উপকার মিলবে, সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই!

    ৩| অর্কিড (Orchids)

    এক্কেবারে ঠিক শুনেছেন! বাড়ির যে কোনও কোণায় অর্কিড গাছ রাখলে অর্থনৈতিক উন্নতি ঘটার সম্ভাবানা যেমন বাড়ে, তেমনই বৈবাহিক জীবনে কোনও ধরনের অশান্তি মাথা চাড়া দিয়ে ওঠার আশঙ্কাও দূর হয়। শুধু তাই নয়, বাস্তুশাস্ত্রের পাশাপাশি গ্রিক পুরাণেও এমনটা দাবি করা হয়েছে যে বাড়িতে অর্কিড গাছ থাকলে নাকি মা হওয়ার স্বপ্ন পূরণ হতে কোনও সমস্যাই হয় না। তাই কর্মজীবনে সাফল্যের স্বাদ পাওয়ার পাশাপাশি সুখে-শান্তিতে থাকতে হলে বাড়িতে একটা অর্কিড গাছ রেখে দেখতেই পারেন। কে বলতে পারে, হয়তো সত্যি সত্যি আপনার ভাগ্য ফিরে যেতে পারে।

    ৪| তুলসি (Basil Plant)

    Pixabay

    প্রায় প্রতিটি বাঙালি বাড়িতেই তুলসি গাছের খোঁজ মেলে। কারণ, এমন বিশ্বাস রয়েছে যে বাড়িতে তুলসি গাছ থাকলে নাকি নানা আপদ-বিপদ ঘটার আশঙ্কা কমে। কিন্তু ভাগ্য ফেরাতেও যে তুলসি গাছ নানা ভাবে সাহায্য করে থাকে, সে কথা কি জানা ছিল? বাস্তুশাস্ত্র মতে বাড়িতে তলসি গাছ থাকলে খারাপ শক্তির প্রভাব কমতে শুরু করে। ফলে শুভ শক্তির প্রভাবে পারিবারিক সুখ-শান্তি বজায় থাকে। এমনকী, কর্মক্ষেত্রে সাফল্য পাওয়ার সম্ভাবনাও বাড়ে। তবে বাড়িতে তুলসি গাছ থাকলে নিয়মিত জল এবং ধূপ-ধুনো দিতে ভুলবেন না যেন!

    আরও পড়ুন: শরীরকে রোগমুক্ত রাখতে এবং ত্বক-চুলের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে কাজে আসে তুলসি পাতা

    ৫| চাইনিজ ফ্লাওয়ার (Chinese Flowers)

    বাস্তু বিশেষজ্ঞদের মতে বাড়িতে এই গাছটি থাকলে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কারণে-অকারণে মনোমালিন্য মাথা চাড়া দিয়ে ওঠার আশঙ্কা কমে, সেই সঙ্গে টাকা-পয়সা সংক্রান্ত উন্নতি ঘটতেও সময় লাগে না। যাঁরা অল্প সময়েই সাফল্যের শিখরে ওঠার স্বপ্ন দেখেন, তাঁরাও বাড়িতে এই গাছটি এনে রাখতে পারেন। তবে এত সব উপকার পেতে বাড়ির লিভিং রুমে এই গাছটি রাখতে হবে।

    ৬| পদ্ম ফুল (Lotus)

    Pixabay

    বাড়িতে ছোট্ট একটা জলাশয় তৈরি করে সেখানে যদি পদ্ম ফুল রাখতে পারেন, তাহলে যে নানা উপকার পাবেন, সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। বিশেষ করে পারিবারে সুখ-শান্তি বজায় থাকবে। সেই সঙ্গে কোনও ধরনের দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা যেমন কমবে, তেমনই অর্থনৈতিক উন্নতি ঘটতেও সময় লাগবে না। এমনটাও বিশ্বাস করা হয় যে বাড়িতে পদ্ম ফুল থাকলে নাকি নানা রোগের খপ্পরে পড়ার আশঙ্কাও কমে।

    আরও পড়ুন: বাড়ির ছাদেই লাগিয়ে ফেলুন পদ্ম

    ৭| লিলি (Peace Lily)

    জীবনের প্রতিটি মোড়ে ভাগ্য আপনার সঙ্গ দিক, এমনটা যদি চান, তাহলে বাড়িতে লিলি ফুলের গাছ এনে রাখতে দেরি করবেন না যেন! বাস্তু বিশেষজ্ঞদের মতে বাড়িতে এই গাছটি থাকলে সাংসারিক শান্তি বিঘ্নিত হওয়ার আশঙ্কা কমে। বাড়ির চার দেওয়ার মধ্যে শুভ শক্তির প্রভাব বাড়ার কারণে চরম সাফল্যের স্বাদ পওয়ার সম্ভাবনাও যেমন বৃদ্ধি পায়, তেমনই নানা দুশ্চিন্তাও দূর হয়।

    ৮| মানি প্ল্যান্ট (Money Plant/Devil's ivy)

    আশা করি গাছের নামটা থেকেই বুঝতে পারছেন যে বাড়িতে এই গাছটি এনে রাখলে যে কোনও ধরনের অর্থনৈতিক সমস্যা মিটে যেতে সময় লাগে না। কারণ, গাছটি বাড়িতে নিয়ে আসা মাত্র পজেটিভ শক্তির মাত্রা বাড়তে শুরু করে, যার প্রভাবে খারাপ সময় কেটে যেতে সময় লাগে না। তবে এত সব উপকার পেতে বিজোড় সংখ্যায় মানি প্ল্যান্ট রাখতে হবে। অর্থাৎ তিনটে, পাঁচটা অথবা সাতটা মানি প্ল্যান্ট গাছ একসঙ্গে রাখলে সবথেকে বেশি উপকার মিলবে।

    ৯| পাম গাছ (Palm Tree)

    ঘরের সৌন্দর্য বাড়াতে পাম গাছের যেমন জুড়ি মেলা ভার, তেমনই এমনটাও বিশ্বাস করা হয় যে বাড়িতে এই গাছটি এনে রাখলে নাকি পজেটিভ এনার্জির মাত্রা বাড়তে শুরু করে। আর যেমনটা আপনাদের সকলেরই জানা আছে যে অন্দরমহলে শুভ শক্তির প্রভাব যত বাড়তে থাকে, ততই কর্মক্ষেত্রে থেকে পারিবারিক জীবন, সব ক্ষেত্রেই সুখ-শান্তি বজায় থাকে। সেই সঙ্গে অর্থনৈতিক উন্নতি ঘটার সম্ভাবনাও বাড়ে বই কী! তাছাড়া আমাদের আশেপাশে শুভ শক্তির মাত্রা বাড়লে ভাগ্যও রোজের সঙ্গী হয়ে ওঠে। তাই ভাগ্য সঙ্গ দেওয়া শুরু করলে জীবনের ক্যানভাস আরও রঙিন হয়ে উঠতে যে সময় লাগে না, তা তো বলাই বাহুল্য!

    ১০| জেড প্ল্যান্ট (Jade Plant)

    বাড়ির লিভিং রুমের প্রতিটি কোণায় এই গাছ রাখলে ঘরের সৌন্দর্য তো বাড়বেই, তার পাশাপাশি সৌভাগ্যও রোজের সঙ্গী হয়ে উঠবে। ফলে চরম সাফল্যের স্বাদ পাওয়ার স্বপ্ন পূরণ হবেই হবে। শুধু তাই নয়, বাস্তুশাস্ত্রে এমনও দাবি করা হয়েছে যে বাড়ির সদর দরজার সামনে যদি জেড প্ল্যান্ট রাখা যায়, তাহলে পারিবারিক সুখ-সমৃদ্ধি যেমন বাজায় থাকে, তেমনই কোনও বিপদ ঘটার আশঙ্কাও কমে।

    ১১| অ্যালো ভেরা গাছ (Aloe Vera Tree)

    Pixabay

    এক্কবারে ঠিক শুনেছেন! যে অ্যালো ভেরা জেলকে কাজে লাগিয়ে ত্বকের যত্ন নেওয়া হয়, সেই একই গাছ ভাগ্য ফেরাতেও নানা ভাবে সাহায্য করে থাকে। শুধু তাই নয়, অ্যালো ভেরা গাছ প্রচুর পরিমাণে কার্বন-ডাই-অক্সাইড শোষণ করে। সেই সঙ্গে অক্সিজেনের যোগানও দেয়। তাই তো এই গাছটি বাড়িতে রাখলে একই সঙ্গে নানা উপকার পাওয়া যায়।

    ১২| কলা গাছ (Banana Tree)

    বাস্তুশাস্ত্র অনুসারে বাড়ির উত্তর-পূর্ব দিকে কলা গাছ পুঁতলে পরিবারের সবার কল্যান হয়। সেই সঙ্গে খারাপ সময় কেটে গিয়ে ভাগ্যের সঙ্গ পেতেও সময় লাগে না। একই উপকার মেলে নিম গাছ লাগালেও। তবে এই গাছটি বাড়ির উত্তর-পশ্চিম দিকে লাগানো উচিত। তবেই নানা উপকার মেলে।

    ভাগ্য ফেরাতে মেনে চলুন এই টিপসগুলি (How To Get Good Luck Fast)

    ভাগ্যের সঙ্গ পেতে কোন ধরনের গাছ, বাড়ির কোথায় রাখতে হবে, সেই সম্পর্কেও বাস্তুশাস্ত্রে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। তাই যাঁরা চটজলদি সাফল্য পেতে আগ্রহী, তাঁরা এই নিয়মগুলি মেনে চলতেও ভুলবেন না যেন!

    ১| বড় গাছ পুঁততে হবে বাড়ির পিছন দিকে। আর যদি সে সুযোগ না থাকে, তাহলে দক্ষিণ-পশ্চিম দিকেও পুঁততে পারেন, তাতে পারিবারিক সুখ-শান্তি যেমন বজায় থাকবে, তেমনই কর্মক্ষেত্রে উন্নতি লাভের সম্ভাবনাও বাড়বে।

    ২| বাড়িতে ভুলেও তেঁতুল এবং বট গাছ লাগানো চলবে না। কারণ, বাস্তুশাস্ত্র মতে এমন গাছ বাড়িতে থাকলে পরিবারের সদস্যদের নানা ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

    ৩| নারকেল এবং লেবু গাছ বাড়িতে থাকলে নাকি রোগভোগের আশঙ্কা কমে।

    ৪| তুলসি গাছ রাখতে হবে পূর্ব অথবা উত্তর-পূর্ব দিকে। তবেই নানা উপকার মিলবে।

    ৫| গাছের পাতা শুকিয়ে গেলে সঙ্গে সঙ্গে ছিঁড়ে ফেলে দেবেন। কারণ, বাস্তুশাস্ত্র মতে গাছে শুকনো পাতা থাকাটা অশুভ লক্ষণ।

    ৬| তিন ফুট বা তার থেকে ছোট উচ্চতার গাছ রাখতে হবে বাড়ির পূর্ব অথবা উত্তর-পূর্ব দিকে।

    ৭| ক্যাকটাসের মতো কাঁটা জাতীয় গাছ ভুলেও বাড়িতে রাখা চলবে না। তবে গোলাপ ফুলের গাছ বাড়িতে রাখতেই পারেন, তাতে কোনও ক্ষতি নেই।

    ৮| পূর্ব দিকে বাঁশ গাছ রাখলে কোনও শারীরিক ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা কমে। আর যদি দক্ষিণ-পূর্ব দিকে রাখেন, তাহলে অর্থনৈতিক উন্নতি ঘটতে সময় লাগবে না, সেই সঙ্গে পরিবারে সুখ-শান্তিও বজায় থাকবে।

    ৯| স্ট্রেস-অ্যাংজাইটির কারণে কি রাতের ঘুম উড়েছে? তাহলে বাড়িতে জুঁই ফুলের গাছ এনে রাখতে পারেন। জুঁই ফুলের গন্ধে দেখবেন স্ট্রেসের প্রকোপ কমতে সময় লাগবে না।

    ১০| বাস্তুশাস্ত্র অনুসারে বাড়ির দক্ষিণ-পূর্ব দিকে মানি প্ল্যান্ট গাছ রাখলে বেশি মাত্রায় উপকার মিলবে।

    এই নিয়ে সাধারণ কিছু প্রশ্নের উত্তর (FAQs)

    ১| প্রশ্নঃ বাড়িতে Snake Plant রাখলেও নাকি নানা উপকার পাওয়া যায়?

    উত্তরঃ এই গাছটি Natural Air Purifier হিসেবে কাজ করে। অর্থাৎ পরিবেশে উপস্থিত টক্সিক উপাদানগুলিকে শোষণ করে নেয়। তাই তো বাড়িতে এই গাছটি রাখলে বায়ু দূষণের কারণে নানা রোগের খপ্পরে পড়ার আশঙ্কা আর থাকে না। বাস্তু বিশেষজ্ঞদের মতে বাড়িতে স্নেক প্ল্যান্ট রাখলে নাকি খারাপ শক্তির প্রভাব কমতে শুরু করে, যে কারণে ভাগ্যের সঙ্গ পাওয়ার সম্ভাবনা বাড়ে।

    ২| প্রশ্নঃ বাড়িতে কি বনসাই গাছ রাখা যেতে পারে?

    উত্তরঃ লিভিং বা বেড রুমে বনসাই গাছ রাখলে দেখতে মন্দ লাগে না ঠিকই। কিন্তু বাস্তুশাস্ত্র মতে বাড়িতে এই ধরনের গাছ রাখা নাকি উচিত নয়। কারণ, এমন গাছ অন্দরমহলে থাকলে খারাপ শক্তির প্রভাব বাড়তে শুরু করে, যে কারণে নানা ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা বাড়ে।

    ৩| প্রশ্নঃ ফুল গাছ কোথায় রাখতে হবে?

    উত্তরঃ যে কোনও ধরনের ফুল গাছই রাখতে হবে উত্তর-পূর্ব দিকে, তবেই নানা উপকার মিলবে। বিশেষ করে নানা ধরনের অর্থনৈতিক ঝামেলার খপ্পর থেকে নিস্তার পেতে যেমন সময় লাগবে না, তেমনই খারাপ সময়ও কেটে যাবে।

    POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

    এগুলোও আপনি পড়তে পারেন

    বাথরুম-সজ্জায় রাখতে পারেন এই গাছগুলো

    এসে গেল #POPxoEverydayBeauty - POPxo Shop-এর স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাক্কায়...