এই স্বাস্থ্যকর অভ্যেসগুলি করলে ব্রণর সমস্যার কারণে কোনওদিন আর রাতের ঘুম উড়বে না

এই স্বাস্থ্যকর অভ্যেসগুলি করলে ব্রণর সমস্যার কারণে কোনওদিন আর রাতের ঘুম উড়বে না

সব ঠিকই ছিল। হঠাৎ করে কোথা থেকে উড়ে এসে জুড়ে বসলো ছোট্ট একটা ব্রণ। একটা দিয়ে শুরু, তারপর দিনে-দিনে ছড়িয়ে পড়ল সারা মুখে। এমন অবস্থায় সিংহভাগই নানা ফেসপ্যাক-ফেসওয়াশের উপরেই ভরসা রেখে থাকেন। আর সে সবে যদি কাজ না হয়, তা হলে ডার্মাটোলজিস্টের চেম্বারে গিয়ে লাইন দেওয়া ছাড়া আর কোনও গতি থাকে না। কিন্তু ইচ্ছে থাকলেই ব্রণর সমস্যাকে জোড়া গোল দেওয়া সম্ভব। কীভাবে? বিশেষজ্ঞদের মতে, যাঁদের তৈলাক্ত ত্বক (skin), তাঁদেরই মূলত এমন সমস্যা হওয়ার আশঙ্কা থাকে। অনেক সময় মৃত কোষ জমার কারণে এবং ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশনের জন্যও ব্রণ (acne) হয়। তাই কতগুলি অভ্যেস (habits) রপ্ত করতে পারলেই ব্রণর সমস্যা আর পিছু নিতে পারবে না।

১. ভাল করে মুখ ধুতে হবে

দিনে দু'বার cleanser দিয়ে মুখ পরিষ্কার করে নেওয়ার পরে ঈষদুষ্ণ জল দিয়ে ভাল করে মুখ ধুয়ে নিন। এই নিয়মটি মেনে মুখ পরিষ্কার করলে ত্বকের তেলতেলে ভাব কমবে। সেই সঙ্গে বন্ধ হয়ে যাওয়া লোমকূপগুলিও খুলে যাবে, যে কারণে ব্রণর খপ্পরে পড়ার আশঙ্কা আর থাকবে না। কিন্তু তাই বলে বারে-বারে মুখ ধোওয়া চলবে না। কারণ, এমনটা করলে ত্বক শুষ্ক হয়ে যাবে। ফলে নানা ধরনের ত্বকের রোগ মাথা চাড়া দিয়ে ওঠার আশঙ্কা বাড়বে।

২. বালিশ, মেকআপ ব্রাশ এবং মোবাইল ফোন পরিষ্কার রাখতে হবে

এমনটা কেন করতে হবে? অনেক সময় বেশ কিছু ব্যাকটেরিয়ার কারণেও ব্রণর প্রকোপ বাড়ার আশঙ্কা থাকে। আর এই সব ব্যাকটেরিয়ারগুলি মাথার বালিশ, মেকআপ ব্রাশ এবং মোবাইল স্ক্রিনের উপরে প্রতি সেকেন্ডে জমতে থাকে, যা কোনও না-কোনও ভাবে ত্বক পর্যন্ত পৌঁছে গেলেই আর রক্ষে নেই। এমন পরিস্থিতিতে যে শুধু ব্রণর প্রকোপ বাড়ে, তা নয়। সেই সঙ্গে ত্বকের সংক্রমণের মতো রোগও হতে পারে। তাই তো নিয়ম করে এই জিনিসগুলি পরিষ্কার করতে হবে। এমনকী, মুখ ধোওয়ার আগে দু'হাত ভাল করে পরিষ্কার করে নিতেও ভুলবেন না যেন! কারণ, আমাদের হাতেও কিন্তু হাজার রকমের ব্যাকটেরিয়া মজুত থাকে।

৩. স্ক্রাব ব্যবহার করা চলবে না

বিশেষজ্ঞদের মতে, যাঁদের কথায়-কথায় ব্রণ হয়, তাঁদের ভুলেও স্ক্রাব ব্যবহার করা উচিত নয়। কারণ, তাতে ব্রণর প্রকোপ আরও বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

৪. সপ্তাহে বারদুয়েক শ্যাম্পু করতে হবে

যাঁদের ত্বক খুব তেলতেলে, তাঁদের সপ্তাহে দু'বার শ্যাম্পু করা মাস্ট। কিন্তু শ্যাম্পু করার সঙ্গে ব্রণর কী সম্পর্ক? ত্বক তেলতেলে হলে তো স্ক্যাল্পেরও একই হাল হবে। তাই তো নিয়মিত শ্যাম্পু করলে তেলের উৎপাদন নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই বারে-বারে ব্রণ হওয়ার আশঙ্কা কমবে।

৫. অয়েল ফ্রি সানস্ক্রিন ব্যবহার করা মাস্ট

সূর্যের অতি বেগুনি রশ্মির কারণেও কিন্তু ত্বকের মারাত্মক ক্ষতি হয়, যে কারণেও ব্রণর সমস্যা হতে পারে। তাই তো বাড়ির বাইরে বেরনোর আগে মুখে অয়েল ফ্রি সানস্ক্রিন লাগাতে ভুলবেন না যেন! এই নিয়মটি মানলে দুটো উপকার মিলবে। এক তো 'ইউ ভি' রশ্মির কারণে ত্বকের কোনও ধরনের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা আর থাকবে না। দ্বিতীয়ত, ত্বকের তেলতেলে ভাবও কমবে। ফলে ব্রণর সমস্যা ধারেকাছেও ঘেঁষতে পারবে না।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এসে গেল #POPxoEverydayBeauty - POPxo-র স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাক্কায়...