লক্ষ্মী পুজোর নিয়মবিধি ও নির্ঘণ্ট, ভক্তি ভরে কোজাগরী পূর্ণিমা পালন করুন

লক্ষ্মী পুজোর নিয়মবিধি ও নির্ঘণ্ট, ভক্তি ভরে কোজাগরী পূর্ণিমা পালন করুন

কোজাগরী পূর্ণিমার বা কোজাগরী লক্ষ্মীপুজোর বাঙালির কাছে বড় প্রিয়! তার আগে পাঁচদিন লক্ষ্মীঠাকুর যখন মা-ভাইবোনদের সঙ্গে বাপের বাড়ি এসে রইলেন, তখন কিন্তু মাকে ছেড়ে আমরা কেউ মেয়ের দিকে তাকিয়েও দেখি না! কিন্তু সব্বাইকে কাঁদিয়ে দুগগাঠাকুর যে-ই না রওনা দিলেন কৈলাসের উদ্দেশ্যে, অমনই লক্ষ্মীঠাকুরুনের কদর যায় বেড়ে! আসলে উৎসবের রেশটুকু এই লক্ষ্মীপুজোর মধ্যে দিয়েই জিইয়ে রাখতে চায় বাঙালি। দুর্গা পুজো যেমন বারোয়ারি, লক্ষ্মীপুজো ঠিক ততটাই ঘরোয়া। মা-কে কৈলাসে পৌঁছে দিয়ে মেয়েটি আবার আসেন মামাবাড়িতে বাড়তি একটু আদরযত্ন পেতে এবং আরও একটু আনন্দ দিতে! তাই তাঁর আরাধনায় যেন কোনও খামতি না থাকে! আর সেই কারণেই এবারের কোজাগরী লক্ষ্মীপুজোর (Kojagiri Lakshmi Puja) বিধি (Vidhi) ও নির্ঘণ্ট (Nirghanta) আমরা তুলে ধরছি আপনাদের সামনে।

আরও পড়ুনঃ কোজাগরী লক্ষ্মী পুজোর আলপনা ডিজাইন

২০১৯ সালে কোজাগরী লক্ষ্মী পুজোর নির্ঘণ্ট

জেনে নেওয়া যাক ১৪২৬ সনের কোজাগরী লক্ষ্মীপূজার নির্ঘণ্ট ও সময়সূচি:

বিশুদ্ধ সিদ্ধান্ত পঞ্জিকা অনুসারে

কোজাগরী পূর্ণিমা শুরু, বাংলা তারিখ ২৫ আশ্বিন ১৪২৬, শনিবার ও ইং তারিখ ১২/১০/২০১৯। সময়: রাত ১২টা ৩৭ মিনিট থেকে।

কোজাগরী পূর্ণিমা শেষ হচ্ছে বাংলা তারিখ ২৬ আশ্বিন ১৪২৬, রবিবার ও ইং তারিখ ১৩/১০/২০১৯। সময়: রাত ২টো ৩৮ মিনিট পর্যন্ত।

কোজাগরী পূর্ণিমার উপবাস হচ্ছে বাংলা তারিখ: ২৬ আশ্বিন ১৪২৬, রবিবার ও ইং তারিখ: ১৩/১০/২০১৯। সময়: রাত ২টো ৩৮ মিনিট পর্যন্ত।

গুপ্তপ্রেস পঞ্জিকা অনুসারে

কোজাগরী পূর্ণিমা শুরু: বাংলা তারিখ ২৪ আশ্বিন ১৪২৬, শনিবার ও ইং তারিখ ১২/১০/২০১৯। সময়: রাত ১২টা ৩ মিনিট থেকে।

কোজাগরী পূর্ণিমা শেষ: বাংলা তারিখ ২৫ আশ্বিন ১৪২৬, রবিবার ও ইং তারিখ ১৩/১০/২০১৯। সময়: রাত ১টা ৫৬ মিনিট পর্যন্ত।

কোজাগরী পূর্ণিমার উপবাস হচ্ছে  বাংলা তারিখ ২৫ আশ্বিন ১৪২৬, রবিবার ও ইং তারিখ ১৩/১০/২০১৯। সময়: রাত ১টা ৫৬ মিনিট পর্যন্ত।

কোজাগরী লক্ষ্মী পুজোর সামগ্রী

Instagram

পুরোহিত ডেকে বাড়িতে পুজো তো অনেকেই করান। সেক্ষেত্রে পুরোহিতের আগে থেকে বলে দেওয়া ফর্দ এবং বাড়ির নিয়মনীতি অনুযায়ী ফল-ভোগ-নৈবেদ্য-ফুল ইত্যাদি সমারোহে পুজো করা হয় এবং পুরোহিতের নির্দেশেই পুষ্পাঞ্জলি দেওয়া হয়, তিনিই আরতি করেন। কিন্তু পুরোহিত ছাড়াও আপনি নিজেও মা লক্ষ্মীর আরাধনা করতে পারেন বিধি মেনেই। তার জন্য লাগবে...

  • গঙ্গাজল ও গঙ্গামাটি
  • পূজার আসন
  • ফলমূল
  • নৈবেদ্য
  • চন্দন (লাল-সাদা, দুই-ই)
  • শুকনো ভোগ (লুচি-সুজি)
  • অন্ন ভোগ (খিচুড়ি-তরকারি-ভাজা-পায়েস)
  • ফুল ও মালা
  • কোষাকুষি
  • জলপূর্ণ ঘট, বিজোড় সংখ্যার আম্রপল্লব
  • সিঁদুর গোলা
  • কলা, হরিতকী
  • কালো তিল, মধু, ঘি
  • নারকেলের জল (এটিই কোজাগরী পূর্ণিমার লক্ষ্মীপুজোর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপকরণ)
  • ধূপ-পঞ্চপ্রদীপ-চামর/পাখা-ছোট বস্ত্র
  • ধান-দূর্বা-আতপ চাল
  • পান-সুপুরি

কোজাগরী লক্ষ্মীপুজোর বিধি

Instagram

কোজাগরী পূর্ণিমায় স্নান সেরে শুদ্ধ হয়ে পুজোয় বসতে হবে। যদিও শাস্ত্রমতে, প্রদোষ কাল, অর্থাৎ সন্ধেবেলাই কোজাগরী লক্ষ্মীপুজোর জন্য প্রশস্ত সময়, কিন্তু আজকাল পূর্ণিমা শুরু হয়ে গেলেই পুজো করা যেতে পারে। তবে পুজো শুরু আগে কতগুলি ব্যাপার মনে রাখবেন। এক, তিল, আবির ও চন্দনের ছিটে দিন ফুলের উপরে। তবেই তা শুদ্ধ হবে। যা-যা দেবীকে নিবেদন করবেন, তার উপরে ছোট পানের খিলি সেজে দিয়ে রাখবেন। 

  • প্রথমে গঙ্গাজল ছিটিয়ে সব শুদ্ধ করে নিন। এবার লক্ষ্মীর আসনের সামনে বা প্রতিমার সামনে একটু গঙ্গামাটি দিয়ে তার উপর গঙ্গাজলপূর্ণ মঙ্গলঘটটি বসান। ঘটের গায়ে সিঁদুর গোলা দিয়ে স্বস্তিক এঁকে দিতে হবে। ঘটের উপরে দিন বিজোড় সংখ্যার আম্রপল্লব। প্রতিটি আম্রপল্লবের গায়েও সিঁদুরের ফোঁটা দিতে হবে। তার উপরে দিতে হবে একটি কাঁঠালি কলা ও একটি হরিতকী। 
  • এবার পালা ধ্যানমন্ত্রের। ধ্যানমন্ত্র হল...

    ওঁ পাশাক্ষমালিকাম্ভোজ-শৃণিভির্যাম্য-সৌম্যয়োঃ।
    পদ্মাসনস্থাং ধ্যায়েচ্চ শ্রীয়ং ত্রৈলোক্যমাতরম্।।
    গৌরবর্ণাং সুরূপাঞ্চ সর্বালঙ্কার-ভূষিতাম্।
    রৌক্মপদ্ম-ব্যগ্রকরাং বরদাং দক্ষিণেন তু।।

  •  মন্ত্রটি পাঠ করে কিছুক্ষণ হাত জোড় করে মা লক্ষ্মীকে স্মরণ করে তাঁকে আবাহন করুন।

    আবাহন করার মন্ত্রটি হল...

    ওঁ লক্ষ্মীদেবী ইহাগচ্ছ ইহাগচ্ছ
    ইহ তিষ্ঠ ইহ তিষ্ঠ ইহ সন্নিধেহি
    ইহ সন্নিরুদ্ধস্য অত্রাধিষ্ঠান কুরু মম পূজান
    গৃহাণ।

  • মঙ্গলঘটের পাশে মা লক্ষ্মীর পা এঁকে তার পাশে একটু গঙ্গাজল দিন। এটি দেবীর পা ধোওয়ার জল। তিনি গৃহে প্রবেশ করার সময় এই জলে পা ধোবেন।
  • এবার দূর্বা, আতপ চাল ও একটি ফুল দিন ঘটে। এবার মা লক্ষ্মীকে চন্দন পরান। 
  • তারপর করুন আরতি। ধূপ-পঞ্চপ্রদীপ-চামর/পাখা-ছোট বস্ত্র ও ঘণ্টাধ্বনি দিয়ে আরতি করুন। তবে আস্তে করে ঘণ্টা বাজাবেন। মা লক্ষ্মী জোরে ঘণ্টার আওয়াজে ভয় পেয়ে যান!
  • এরপর আসবে পুষ্পাঞ্জলির পালা। পুষ্পাঞ্জলি মন্ত্র খুবই সহজ, এষ সচন্দনপুষ্পাঞ্জলি ওঁ শ্রীঁ লক্ষ্মীদেব্যৈ নমঃ। তিনবার কিংবা পাঁচ বার অঞ্জলি দিতে হবে। 
  • এবার প্রণাম মন্ত্র বলার পালা।

    এই মন্ত্রে প্রণাম করবেন...

    ওঁ বিশ্বরূপস্য ভার্যাসি পদ্মে পদ্মালয়ে শুভে।
    সর্বতঃ পাহি মাং নিত্যং দেবি মহালক্ষ্মী নমোহস্তুতে ।।

  • এর পরে সকলে মিলে লক্ষ্মীর পাঁচালি পাঠ শুনতে হবে।
  • তারপর কিছুক্ষণ দেবীকে একা থাকতে দিয়ে সকলে ঘরের বাইরে বেরিয়ে যান।
  • প্রসাদ খাওয়ার আগে নারকেলের জল খেয়ে উপোস ভাঙবেন।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এসে গেল #POPxoEverydayBeauty - POPxo Shop-এর স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাক্কায়...