শীতের মরসুমে খুশকির প্রকোপ কমাতে কাজে লাগান ঘরে তৈরি পাঁচটি হেয়ার মাস্ক

শীতের মরসুমে খুশকির প্রকোপ কমাতে কাজে লাগান ঘরে তৈরি পাঁচটি হেয়ার মাস্ক

পারদ একটু নীচের দিকে নামলেই ত্বক আর্দ্রতা হারাতে শুরু করে। একই হাল হয় স্ক্যাল্পেরও। ফলে খুশকির প্রকোপ বাড়ার আশঙ্কা থাকে। এক্ষেত্রে গাঁটের কড়ি খরচ করে নানা দেশি-বিদেশি প্রসাধনী ব্যবহার করতেই পারেন। কিন্তু তাতে যে একশো শতাংশ উপকার পাবেনই, সে গ্যারান্টি কিন্তু নেই! এক্ষেত্রে বেশ কিছু প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে তৈরি নানা ঘরোয়া হেয়ার মাস্ক এর উপর ভরসা রাখতেই পারেন, তাতে খুশকির (Dandruff) প্রকোপ তো কমবেই, সঙ্গে চুলের (hair) সৌন্দর্যও বাড়বে। দেখবেন, হেয়ার ফল কমতেও সময় লাগবে না। একসঙ্গে এত সব উপকার পেতে চাইলে ঝটপট হেয়ার মাস্ক তৈরির শর্টকাট ফর্মুলা গুলি জেনে নিন।

১. দই, মধু এবং লেবুর রস

বাটিতে হাফ কাপ দই নিয়ে তার সঙ্গে এক চামচ পাতিলেবুর রস এবং সম পরিমাণ মধু মিশিয়ে ভাল করে ফেটিয়ে নিন। যখন দেখবেন প্রতিটি উপাদান একে অপরের সঙ্গে ঠিক মতো মিশে গেছে, তখন সেই মিশ্রণটি চুলে এবং স্ক্যাল্পে লাগিয়ে মিনিটকুড়ি অপেক্ষা করুন। সময় হলে সালফেট ফ্রি শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। সপ্তাহে বারদু'য়েক এই হেয়ার মাস্কটি চুলে লাগালে স্ক্যাল্পের ভিতরে pH ব্যালেন্স ঠিক থাকবে। সেই সঙ্গে হারিয়ে যাওয়া আর্দ্রতাও ফিরে আসবে, যে কারণে খুশকির সমস্যা কমতে সময় লাগবে না।

২. গ্রিন টি এবং পুদিনা এসেনশিয়াল তেল

খুশকির কারণে কি চিন্তায় রয়েছেন? তা হলে আর সময় নষ্ট না করে ঝটপট এক কাপ গ্রিন টি তৈরি করে ফেলুন। তার সঙ্গে দু'-তিন ড্রপ পুদিনা এসেনশিয়াল তেল এবং এক চামচ সাদা ভিনিগার মিশিয়ে রেখে দিন। স্নান করার পরে এই মিশ্রণটি দিয়ে ভাল করে চুল ধুয়ে নিয়ে মিনিটপাঁচেক অপেক্ষা করে সালফেট ফ্রি শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে একবার এভাবে চুলের যত্ন নিলেই উপকার পাবেন।

৩. জবা পাতা এবং মেথি

শুনে অবাক হলেন নিশ্চয়ই? কিন্তু একথা ঠিক যে খুশকি দূর করতে জবা পাতা এবং মেথির কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। এক্ষেত্রে এক গ্লাস জলে এক চামচ মেথি ভিজিয়ে সারা রাত রেখে দিতে হবে। পরদিন সকালে মেথি বীজগুলি ছেঁকে নিয়ে তার সঙ্গে ১০টি জবা পাতা এবং হাফ কাপ দই মিশিয়ে ভাল করে চটকে নিয়ে সেই পেস্ট চুলে লাগিয়ে কম করে মিনিটকুড়ি অপেক্ষা করতে হবে।পরে শ্যাম্পু দিয়ে ভাল করে চুল ধুয়ে নিতে ভুলবেন না যেন! সপ্তাহে দিনতিনেক এই হেয়ার মাস্কটি (Hair Masks) চুলে লাগালেই সমস্যা দূর হবে।

৪. কলা, মধু এবং লেবুর রস

চারটে কলা ভাল করে চটকে নিয়ে তার সঙ্গে এক চামচ মধু, চামচ দুয়েক অলিভ অয়েল এবং এক চামচ পাতিলেবুর রস মিশিয়ে সেই পেস্ট চুলের গোড়ায় এবং স্ক্যাল্পে লাগিয়ে মিনিটপনেরো অপেক্ষা করে চুল ধুয়ে নিন। সপ্তাহ মাত্র একবার এই পেস্টটি চুলে লাগাতে হবে, তাহলেই স্ক্যাল্প আর্দ্র থাকবে এবং পাতিলেবুর রসের গুণে খুশকির প্রকোপও কমবে।

৫. দই এবং ডিম

খুশকির চিকিৎসায় দইয়ের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। আর যদি দইয়ের সঙ্গে ডিমের কুসুম মিশিয়ে চুলে লাগাতে পারেন, তা হলে তো কোনও কথাই নেই! এই হেয়ার মাস্কটি তৈরি করতে প্রয়োজন পড়বে একটা কাঁচা ডিম, চামচ দুয়েক অলিভ অয়েল, এক কাপ দই এবং এক চামচ লেবুর রসের। একটা বাটিতে পরিমাণ মতো দই নিয়ে তার সঙ্গে ডিমের কুসুম, অলিভ অয়েল এবং পাতিলেবুর রস মিশিয়ে তৈরি মিশ্রণ চুলে লাগিয়ে মিনিটপনেরো অপেক্ষা করতে হবে। সময় হওয়া মাত্র সালফেট ফ্রি শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নিয়ে হবে। এই সময় ভুলেও গরম জল ব্যবহার করা চলবে না। সপ্তাহে মাত্র একবার এই হেয়ার মাস্কটি চুলে লাগাতে হবে, তাহলেই খুশকির প্রকোপ কমে যাবে।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এসে গেল #POPxoEverydayBeauty - POPxo-র স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাক্কায়...