গাদা-গাদা বিউটি প্রোডাক্ট ব্যবহার করেও সুফল পাচ্ছেন না? আপনি সঠিক প্রোডাক্টটি কিনছেন তো?

গাদা-গাদা বিউটি প্রোডাক্ট ব্যবহার করেও সুফল পাচ্ছেন না? আপনি সঠিক প্রোডাক্টটি কিনছেন তো?

আমাদের অনেকের কাছেই ত্বকচর্চা ব্যাপারটা এখনও হয় বিজ্ঞাপননির্ভর কিংবা পরামর্শনির্ভর! আর দুটোই সমান ক্ষতিকর এবং আপনাকে ভুল পছে চালিত করার জন্য যথেষ্ট! বিজ্ঞাপননির্ভর, কারণ, ভারতবর্ষে এখনও সিংহভাগ লোক বিজ্ঞাপনী প্রচার দেখেই ক্রিম, লোশন, প্যাক, মাস্ক, স্ক্রাব কেনেন। আর বেশিরভাগ সময়ই সেগুলো হয় ভুল। পরামর্শনির্ভর, কারণ, আমরা 'ও বলেছে অমুক ক্রিমটা ভাল' কিংবা 'তমুকে তো বলল ওই প্যাকটা লাগিয়েই ওর মুখে গ্লো এসেছে' নামক ধারণাগুলি কিনে বিউটি (beauty) প্রোডাক্ট কিনি। তারপর অভিযোগ করি, তা কাজ করছে না! সে তো করবেই না। অবশ্য বিউটি প্রোডাক্ট (products) না আসার পিছনে এগুলো ছাড়াও আরও অনেক কারণ আছে। সেগুলোই এক-এক করে আলোচনা করছি এখানে। আর তারপর রইল আরও কিছু টিপস, সঠিক (right) স্কিনকেয়ার (skin care) প্রোডাক্ট কীভাবে বাছবেন, তার উপর। 

বিউটি প্রোডাক্ট কাজে না আসার কারণ

আমরা অনেকেই ঘন-ঘন বিউটি প্রোডাক্ট বদলাই। আজ যে ক্রিমে আমি সন্তুষ্ট, কাল হয়তো সেটা লাগাতে আর ভাল লাগছে না কিংবা সেটা লাগিয়ে কোনও ভিজিবল এফেক্ট দেখছি না বলে সেটা পাল্টে ফেললাম। কী-কী কারণে কোনও ভাল, নামী বিউটি প্রোডাক্ট আমাদের কাজে আসে না, সেই কারণগুলি এখানে আলোচনা করা হল...

১) একটাই প্রোডাক্ট সকলের জন্য ভাল, এটা ভাবা: বিভিন্ন বয়সের, বিভিন্ন ধরনের স্কিনের প্রয়োজন আলাদা। কাজেই যেটি আপনার মায়ের জন্য সঠিক, সেটি আপনার কাজে না-ও আসতে পারে। আবার কোনও প্রোডাক্ট হয়তো আপনি যখন উনিশ-কুড়ি ছিলেন, তখন আপনার স্কিনে দারুণ সুট করত। তার মানে এই নয় যে, সেটা আপনি যখন চল্লিশের কোঠায়, তখনও আপনার ত্বকে ভেলকি দেখাবে! এই সহজ, সরল, সত্যি কথাটা আপনাকে কোনও বিউটি প্রোডাক্ট বিক্রেতা বলবে না। নিজেকেই বুঝে নিতে হবে। 

২) দিন পাল্টায়, তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে পাল্টায় আপনার ত্বকও: যেমন-যেমন আপনার ত্বকের বয়স বাড়বে, ঠিক তার সঙ্গে বদলাবে তার চাহিদাও। ২০ বছপ বয়সে আপনি ভুগতেন অ্যাকনের সমস্যায়, তিরিশে হয়তো ত্বকের আনইভন টোনের সঙ্গে, চল্লিশে হয়তো আপনার প্রয়োজন অ্যান্টি এজিং প্রোডাক্টের। কাজেই বুঝতে পারছেন নিশ্চয়ই, এসবের সঙ্গে তাল মিলিয়ে নিজের স্কিনকেয়ার প্রোডাক্টগুলো বদলে ফেলারও দরকার আছে, যেটা আপনি করেননি! তা ছাড়া, আবহাওয়া, আপনার লাইফস্টাইল, ওয়ার্কিং আওয়ার্স, খাওয়াদাওয়ার পরিবর্তন, সবকিছুই আমাদের ত্বকের উপর প্রভাব ফেলে। সেই কারণেও পুরনো স্কিনকেয়ার প্রোডাক্ট কাজ করা বন্ধ করে দিতে পারে।  

৩) আপনার বর্তমান স্কিনকেয়ার প্রোডাক্টগুলি বেশি হার্শ নয় তো: অনেকসময় স্কিনকেয়ার প্রোডাক্ট ত্বকের ক্ষয়ক্ষতি সারানোর বদলে ত্বকের আরও ক্ষতি করে দেয়। কারণ, তাতে নানা ধরনের কেমিক্যালস, প্যারাবেন, কিংবা আরও কিছু ক্ষতিকারক উপাদান, যেমন, SLS, SLES ইত্যাদি থাকে। এগুলি ত্বকের কাজে তো আসেই না, উল্টে তার আরও বারোটা বাজিয়ে ছাড়ে!  

স্কিনকেয়ার কিংবা বিউটি প্রোডাক্ট কেনার সময় কী-কী মাথায় রাখবেন

আপনি যতটা মন দিয়ে পোশাকআসাক কেনেন, বিউটি প্রোডাক্ট কেনার সময়েও ঠিক ততটাই মনোযোগ দিন। এক্ষেত্রে কয়েকটি জরুরি বিষয় মাথায় রাখতে হবে। যেমন,

  • আগে নিজের ত্বক সম্বন্ধে সঠিকভাবে জেনে নিন। আপনার ত্বক কোন ধরনের, কোনওরকম স্কিন অ্যালার্জি আপনার আছে কিনা, আপনার লাইফস্টাইল ঠিক কীরকম, আপনি যে শহরে থাকেন সেখানকার আবহাওয়া কীরকম ইত্যাদি বিষয়ের উপর নির্ভর করবে আপনি কোন ধরনের স্কিনকেয়ার প্রোডাক্ট বাছবেন। 
  • সঠিক প্রোডাক্ট কেনার আগে নিজেকে প্রশ্ন করুন যে সেটি আপনার আদৌ প্রয়োজন কিনা। আপনার ডেলি রুটিন যদি ক্লেনজিং, টোনিং, ময়শ্চারাইজিংয়ে সীমাবদ্ধ থাকে, তা হলে সেরকম প্রোডাক্টই কিনুন। যে ধরনের প্রোডাক্ট আপনি কোনওদিন ব্যবহার করেননি, বা আপনার দৈনন্দিন ব্যবহারে লাগে না, সেরকম প্রোডাক্ট না কেনাটাই ভাল।
  • আপনার স্কিনকেয়ার রুটিন নিয়মিত আপডেট করুন প্রয়োজন অনুসারে। বিভিন্ন সময়ে ত্বকের আলাদা-আলাদা সমস্যা হতে পারে। যেমন, গরমকালে ট্যানিং, শীতকালে শুষ্কতা ইত্যাদি। সেই অনুযায়ী আপনিও প্রোডাক্ট পাল্টান। 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এসে গেল #POPxoEverydayBeauty - POPxo-র স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাক্কায়..