জানেন কি, চিউয়িং গাম চেবানো আসলে স্বাস্থ্যের পক্ষে ভারী ভাল!

জানেন কি, চিউয়িং গাম চেবানো আসলে স্বাস্থ্যের পক্ষে ভারী ভাল!

চিউয়িং গাম চেবানো স্বাস্থ্যের (health) পক্ষে ভাল! এই লাইনটুকুই মন ভাল করে দেওয়ার পক্ষে যথেষ্ট কিনা বলুন! ছোটবেলা থেকে এটা শুনে বড় হয়েছি যে চিউয়িংগাম খাওয়া মোটেও ভাল না। দাঁতের ক্ষতি হয়, দেখে মনে হয় গোরু জাবর কাটছে ইত্যাদি ইত্যাদি। আর এখন কিনা বিভিন্ন গবেষণায় প্রমাণিত হচ্ছে যে, এসব তো ঠিক নয়ই, উল্টে চিউয়িং গাম (chewing gum) চেবানোর আসলে অনেক উপকারী দিক (benefits) আছে। তবে সব ভালরও যেমন মন্দ আছে, এটির ক্ষেত্রেও সেটা সত্যি। মানে, চিউয়িং গাম খাবেন, কিন্তু অতিরিক্ত খাবেন না। দিনে দু'-তিনটে খেতে পারেন কিন্তু তার বেশি না খাওয়াটাই ভাল। চলুন, দেখে নেওয়া যাক, চিউয়িং গাম চেবালে আপনি কী-কী উপকার পেতে পারেন। 

১. ওরাল হেলথ রক্ষা করতে সাহায্য করে

ওরাল হেলথ, মানে, মুখের ভিতরের স্বাস্থ্যরক্ষায় চিউয়িং গামের জুড়ি মেলা ভার। তবে অবশ্যই সুগার-ফ্রি চিউয়িং গাম খেতে হবে এক্ষেত্রে। দাঁতের ক্যাভিটি হতে দেয় না চিউয়িং গামের ভিতরে থাকা ক্যালসিয়াম, ফলে দাঁতের ক্ষয়ও রোধ হয়। যে-কোনও খাবার খাওয়ার পরে মিনিটকুড়ি সুগার ফ্রি কোনও চিউয়িং গাম নিয়মিত চেবান। চিউয়িং গাম চিবালে মুখে লালা ক্ষরণ বাড়ে। ফলে মুখের ভিতরে জমে থাকা খাবারের টুকরো, খাবারজনিত তৈরি হওয়া অ্যাসিড ধুয়ে যায়। তা ছাড়াও এই লালায় থাকা ফসফেট এবং ক্যালসিয়াম দাঁতের এনামেলের উপর সুরক্ষার কোটিং তৈরি করে। আর xylitol দেওয়া কোনও চিউয়িং গাম যদি খেতে পারেন, তা হলে তা দাঁতের উপর বাড়তি কোটিং তৈরি করে দাঁত ক্ষয়ে যেতে দেবে না।

২. অম্বলে বুক জ্বালা কমিয়ে দেয়

এই সমস্যাটি ভারী অদ্ভুত। পেটে তৈরি হওয়া অ্যাসিড যদি ফুড পাইপ কিংবা ইসোফাগাসে উঠে আসে এবং বুকে কনজেশন তৈরি করে, তাকেই ডাক্তারদের ভাষায় বলা হয় অ্যাসিড রিফ্লাক্স। এর ফলে গলা-বুক জ্বালার একটা অনুভূতি হয়। চিউয়িং গাম চিবোলে এই সমস্যা থেকে অনেকটাই মুক্তি পাওয়া সম্ভব। আসলে চিউয়িং গাম চিবোলে মুখে যে লালা বেরোয়, সেটা আমাদের গিলতেই হয়, এই লালা অ্যাসিডকে নিউট্রালাইজ করে এবং ফুড পাইপ পরিষ্কার করে দেয়। তাই এর পরে অম্বলে গলা-বুক জ্বালা করলে চিউয়িং গাম চিবিয়ে দেখবেন, আরাম পাবেন।

৩. হজমের শক্তি বাড়ায়

Pixabay

এরকম ভাববেন না যে, চিউয়িং গাম খেলে চট করে হজমের শক্তি বেড়ে যাবে। ব্যাপারটা তা নয়। তবে খাওয়ার আগে চিউয়িং গাম চিবোলে মুখে লালার ক্ষরণ বাড়ে, তার ফলে আমাদের পেটেও হজমের উপযোগী অ্যাসিড ক্ষরণ বেড়ে যায়। মানে, আমাদের শরীর আগে থেকেই খাবার হজম করবে বলে তৈরি হয়ে থাকে। ফলে এর পর যখন খাবার খাবেন, তখন তা দ্রুত হজম হতে বাধ্য।

৪. বমি-বমি ভাব কাটিয়ে দেয়

যাঁদের মর্নিং সিকনেস অথবা মোশন সিকনেসের সমস্যা আছে, তাঁরা আদা দেওয়া হার্বাল চিউয়িং গাম চিবোলে অনেকটা আরাম পাবেন। গাড়িতে বেশি দূর ট্রাভেল করার সময় এই ধরনের চিউয়িং গাম মুখে রাখুন। ডাক্তাররা বলেন, এটি চিবোলে নাকি কোনও বমির ওষুধ খাওয়ারও প্রয়োজন নেই!

৫. স্ট্রেস এবং অ্যাংজাইটি কমিয়ে দেয়

মানসিক চাপের সময় আপনি কি দাঁত দিয়ে নখ কাটেন? কিংবা ঘন-ঘন ওয়াশরুমে যান? মাথা ঘোরে, গা বমি-বমি করে? তা হলে চিউয়িং গাম আপনার বেস্ট ফ্রেন্ড হয়ে উঠতে পারে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, চিউয়িং গাম চিবোলে নাকি নার্ভাসনেস কমে, কমে যায় চাপও!

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এসে গেল #POPxoEverydayBeauty - POPxo-র স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাক্কায়...