লাঞ্চে বা ডিনারের সময় স্যালাড খাওয়ার অভ্যাস আছে? না থাকলে আজ থেকেই তা খাওয়া শুরু করুন

লাঞ্চে বা ডিনারের সময় স্যালাড খাওয়ার অভ্যাস আছে? না থাকলে আজ থেকেই তা খাওয়া শুরু করুন

কয়েক টুকরো গাজর, টোম্যাটো, বিট আর শসার সঙ্গে পেঁয়াজ, লঙ্কা, পালং শাক সহযোগে তৈরি স্যালাড খেতে মন্দ লাগে না বলুন! আর যদি উপর থেকে কুচো-কুচো ধনেপাতা ছড়িয়ে দেওয়া যায়, তা হলে তো কোনও কথাই নেই! গরম গরম ভাত-ডাল, মাংসের সঙ্গে এমন স্যালাড জুটে গেলে খাওয়ার মজাটাই এক অন্য মাত্রা পায়। সঙ্গে শরীরেরও যে কত উপকার হয়, সে খোঁজ রাখেন ক'জন! যদি বলেন, গুলতানি মারছি, তা হলে কতগুলি স্টাডির প্রসঙ্গ না তুলে উপায় নেই। নানা দেশে হওয়া বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে যে রোজের ডায়েটে স্যালাডের অন্তর্ভুক্তি ঘটলে শরীরে যে রোগ মুক্ত থাকে, তাতে কোনও সন্দেহ নেই। কারণ, স্যালাড (salad) তৈরিতে ব্যবহৃত শসা, গাজর, বিট এবং পালং শাকের মতো সবুজ শাক-সবজিতে মজুত রয়েছে প্রচুর পরিমাণে উপকারী উপাদান, যা নানা ভাবে শরীরের উপকারে লেগে থাকে। এমনকী, ছোট-বড় নানা রোগ-ব্যাধি দূরে রাখতেও বিশেষ ভূমিকা নেয়। তাই চলুন, আর সময় নষ্ট না করে এই নিয়ে একটু খোঁজ-খবর করে নেওয়া যাক!

১. ফাইবারের ঘাটতি মেটে

pixabay

গাজর আর টোম্যাটো ছাড়া স্যালাডের কথা ভাবাই যায় না। অনেকে আবার এতে পালং শাকও দিয়ে থাকেন। এই সব শাক-সবজিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার, যা ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে বিশেষ ভূমিকা নেয়, সঙ্গে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়, শর্করার মাত্রাকে নিয়ন্ত্রণে রাখে এবং হজম ক্ষমতার উন্নতি ঘটায়। তাই বুঝতেই পারছেন, ভাত-রুটির সঙ্গে অল্প করে স্যালাড খাওয়ার অভ্যাস করলে কোনও ক্ষতি, বরং লাভই লাভ!

২. উপকারী ফ্যাটের চাহিদা পূরণ হবে

শরীরকে সচল রাখতে ভিটামিন-মিনারেলের যতটা প্রয়োজন, ততটাই প্রয়োজন উপকারী ফ্যাটেরও, যার চাহিদা পূরণ করতেও স্যালাডের উপর ভরসা রাখতে পারেন। সেক্ষেত্রে স্যালাড তৈরির সময় তাতে অল্প করে কুমড়োর বিচি যোগ করতে পারেন অথবা স্যালাডের উপরে যদি অল্প করে অলিভ অয়েল ছড়িয়ে দেওয়া যায়, তাহলে তো কোনও কথাই নেই! তাতে করে উপকারী ফ্যাটের চাহিদা মিটবে। ফলে হার্টের ক্ষমতা যেমন বাড়বে, তেমনই খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমবে এবং ইনসুলিনের ক্ষমতা বাড়বে, যে কারণে ডায়াবেটিসের মতো রোগ ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারবে না।

৩. হাড়ের ক্ষমতা বাড়বে

শরীরে ভিটামিন কে-এর ঘাটতি হলে হাড়ের রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই তো পালং শাক (spinach) দিয়ে স্যালাড তৈরির পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা। তাতে কী উপকার মিলবে? ভিটামিন কে-এর ঘাটতি মেটাতে পালং শাকের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। তাই তো নিয়ম করে এই সবজি খাওয়াটা আবশ্যিক! প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, শসাতেও ভিটামিন কে রয়েছে, তাই স্যালাড তৈরির সময় এই সবজিটির কথা ভুলে যাবেন না যেন!

৪. হার্টের ক্ষমতা বাড়বে

pixabay

স্যালাড খেলে হার্টের (heart) ক্ষমতা বাড়ে কীভাবে? এমন উপকার পেতে স্যালাড অল্প করে লেটুস পাতা যোগ করতে ভুলবেন না। এই শাকটিতে রয়েছে ফলেট এবং ফাইবার, যা স্ট্রোক এবং যে কোনও ধরনের কার্ডিওভাসকুলার ডিজিজকে দূরে রাখতে বিশেষ ভূমিকা নেয়।

৫. দৃষ্টিশক্তির উন্নতি ঘটবে

এক্কেবারে ঠিক শুনেছেন! নিয়মিত স্যালাড খেলে সত্যিই চোখের ক্ষমতা বাড়ে। তবে এমন উপকার পেতে হলে স্যালাডে পালং শাক এবং লেটুস পাতা রাখতেই হবে। তাতে করে দৃষ্টিশক্তির উন্নতি তো ঘটবেই, সঙ্গে পেশির ক্ষমতাও বাড়বে। আসলে পালং শাকে উপস্থিত নানা উপকারী উপাদানের গুণে কোষের মধ্যে থাকা mitochondria-এর ক্ষমতা বাড়ে, যে কারণে এনার্জির ঘাটতি যেমন দূর হয়, তেমনই পেশির সচলতাও বৃদ্ধি পায়।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এসে গেল #POPxoEverydayBeauty - POPxo-র স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাক্কায়...