বিয়ের পর বিদায় পর্ব একটি বড় অনুষ্ঠান, তবে এর গুরুত্ব জানেন কি? in bengali | POPxo

বিয়ের পর কনের বিদায় পর্ব একটি বড় অনুষ্ঠান, তবে এর আসল গুরুত্ব কোথায়, তা জানেন কি?

বিয়ের পর কনের বিদায় পর্ব একটি বড় অনুষ্ঠান, তবে এর আসল গুরুত্ব কোথায়, তা জানেন কি?

বাঙালি বাড়িতে বিয়ে (wedding) মানেই একটা দারুণ হই-হই ব্যাপার! বাড়িতে প্রচুর আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব; নানা রকমের আচার-অনুষ্ঠান (rituals) – সব মিলিয়ে দারুণ একটা ব্যাপার! বিয়ের কিছুদিন আগে থেকে হবু বর-কনেকে আইবুড়ো ভাত খাওয়ানো থেকে শুরু করে নান্দিমুখ, গায়ে হলুদ, বিয়ের হাজার আচার এবং কনের বিদায়পর্ব (vidaai)– প্রতিটি অনুষ্ঠানই হয় বেশ জাঁকজমক করে। বাঙালি বিয়েতে (wedding) যে শুধু নানারকম আচার অনুষ্ঠান (rituals) হয় তা-ই নয়, অনেক আবেগও জড়িয়ে থাকে প্রতিটি আচারের সঙ্গে। বিশেষ করে যখন কনের বিদায়পর্ব (vidaai) শুরু হয়, সেই মুহূর্তটি কনে এবং তার বাড়ির লোকের কাছে খুবই আবেগঘন একটি মুহূর্ত। একদিকে নতুন সংসারে যাওয়ার আনন্দ, আর অন্যদিকে বাড়ির সকলকে ছেড়ে যাওয়ার কষ্ট – সব মিলিয়ে একটা অদ্ভুত পরিস্থিতি! কিন্তু আপনি কি জানেন, বিয়ের অনুষ্ঠানে ‘বিদায় পর্ব’র গুরুত্বটা ঠিক কতটা?

ঠিক কীভাবে শুরু হয়েছিল?

বিয়ের (wedding) অনুষ্ঠানে (rituals) বিদায় পর্ব (vidaai) ঠিক কীভাবে শুরু হয়েছিল, তা এক অদ্ভুত ব্যাপার। আগেকার দিনে যখন রাজারাজড়ায় যুদ্ধ হত, তখন যে পক্ষ হেরে যেতেন, তাঁরা বিজয়ী পক্ষের সঙ্গে সমঝোতায় আসতেন নিজেদের ঘরের মেয়েকে বিজয়ীর ঘরে উপঢৌকন হিসেবে পাঠিয়ে! নামকাওয়াস্তে বিয়েটা হত বটে, কিন্তু মেয়ের দিক থেকে তা মোটেও খুব সম্মানজনক হত না। কারণ, তাঁকে জিতে, ট্রোফি হিসেবে নিয়ে আসা হয়েছে। আর ট্রোফির তো আর বাপের বাড়ি বলে কিছু থাকে না, তাই সেই রাজকুমারীর পক্ষেও আর জীবনে কোনওদিন পিতৃকুলের মুখোমুখি হওয়া হত না। তাই তাঁকে বিদায় দেওয়া হত চোখের জলে ভেসে...সেই থেকেই বিয়েতে বিদায় পর্বের শুরু।

অন্তর্নিহিত অর্থ

বিয়ের অনুষ্ঠানের একদম অন্তিম অনুষ্ঠান হল বর-কনের বিদায়পর্ব। আদরের ধনকে জামাইয়ের হাতে সঁপে দিচ্ছেন মেয়ের বাবা-মা। মেয়ে-জামাই যেন ভাল থাকে, সুখে থাকে, মেয়ে যেন মানিয়েগুছিয়ে নিতে পারে নতুন ঘরে, নতুন পরিবারে গিয়ে, সেই দোলাচলের মধ্যেই অনুষ্ঠিত হয় হাসি-কান্না মেশানো এই অনুষ্ঠানটি। এটি একদিক থেকে সুখের, কারণ, মেয়ে তার স্বামীগৃহে যাত্রা করল, ছেলের পরিবার বউমা হিসেবে পেলেন নতুন কনেকে, যে সংসারের লক্ষ্মী হয়ে থাকবে সারা জীবন। অন্য দিকে মেয়ের বাবা-মা এতদিন ধরে কোলেপিঠে মানুষ করা মেয়েকে বিদায় করে দিলেন নতুন সংসারে, তাই তাঁদের জন্য এটি অশ্রুঘন মুহূর্তও বটে।

বিদায়পর্বের নানা আচার-অনুষ্ঠান

ইনস্টাগ্রাম
ইনস্টাগ্রাম

বাঙালি বিয়ের (wedding) অনুষ্ঠানে কোনও০কোনও বাড়িতে পরদিন বাসি-বিয়ের নানা আচারের পর বিকেলের দিকে কনের বিদায়পর্ব হয়, আবার কোনও কোনও বাড়িতে সকালেই বিদায়পর্ব সেরে ফেলা হয়। বর-কনের বিদায়পর্বেরও (vidaai) কিন্তু বেশ কয়েকটি ভাগ আছে এবং প্রতিটি ভাগের একটি করে অর্থ বা মাহাত্ম্য রয়েছে।

বিদায়পর্বের শুরুতেই, যখন কনে বাপের বাড়ি থেকে শ্বশুরবাড়ি যাওয়ার জন্য তৈরি হন, বাড়ির গুরুজনদের প্রণাম করে আশীর্বাদস্বরূপ মিষ্টি খাওয়ানোর একটি রীতি (rituals) রয়েছে বাঙালি বিয়েতে। বর-কনের নতুন সাংসারিক জীবন যাতে বাড়ির সকলের আশীর্বাদে মধুর হয়, সেজন্যই মিষ্টি খাওয়ানোর এই নিয়ম।

এরপরে, কনে যখন বাপের বাড়ি থেকে বেরন, তখন কিছুক্ষণের জন্য চৌকাঠের সামনে দরজার দিকে পিছন ফিরে দাঁড়াতে হয়। কনের মা অথবা মাতৃস্থানীয়া কোনও সধবা মহিলা কনের হাতে চাল দেন এবং কনেকে না দেখে, পিছনে না ফিরে সেই চাল ছুড়ে দিতে হয় এবং বলতে হয় যে তিনি মা-বাবার সমস্ত ঋণ শোধ করে দিলেন। একে বলা হয় কনকাঞ্জলি।

এর পর বিদায়পর্বের (vidaai) শেষ অধ্যায়ে বর-কনে গাড়িতে ওঠেন এবং কনের দাদা-ভাই বা বন্ধুরা গাড়ি কিছুটা ঠেলে দেন। এর অর্থ হল, কনেকে তাঁরা তাঁর নতুন জীবনে সৌভাগ্যের সঙ্গে প্রবেশ করতে সাহায্য করলেন।

মূল ছবি সৌজন্যে - ইনস্টাগ্রাম

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এসে গেল #POPxoEverydayBeauty - POPxo Shop-এর স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাপ