ওষুধ খাওয়ার সময় এই নিয়মগুলি মেনে চলুন

ওষুধ খাওয়ার সময় এই নিয়মগুলি মেনে চলুন

অসুস্থ শরীরকে সুস্থ করে তুলতে গেলে তো ওষুধ খেতেই হবে। তাছাড়া যে আর কোনও উপায় নেই। তাই তো ওষুধ খাওয়ার সঠিক নিয়মগুলি সম্পর্কে একটু জেনে-বুঝে নেওয়ার প্রয়োজন রয়েছে বই কী! কোন কোন ওষুধ খালি পেটে খেতে হয়, আর কোনগুলি ভরা পেটে, সে সম্পর্কে তো জানা আছে। তাহলে আর কী নিয়ম রয়েছে শুনি? একথা ঠিক যে ওষুধ খাওয়ার সময়টা একটা বড় ফ্যাক্টর, যে সম্পর্কে কম-বেশি সকলেই খোঁজ রাখেন। কিন্তু এছাড়াও আরও বেশ কিছু নিয়ম রয়েছে, যে সম্পর্কে কারও মাথা ব্যথাই নেই। তাই তো drug mistake-এর কারণে প্রতি বছরই বহু সংখ্যক মানুষকে চিকিৎসকের দারস্ত হতে হয়। সেই দলে আপনি নিশ্চয়ই থাকতে চান না?

এক এক করে ওষুধ খাওয়াই বুদ্ধিমানের কাজ

pixabay

খেয়াল করে দেখবেন অনেকেই এক এক করে ওষুধ না খেয়ে একসঙ্গে অনেকগুলি ওষুধ একবারেই খয়ে ফেলেন। এমনটা করা একেবারেই উচিত নয়। বলতেই পারেন, খাওয়ার আগে বা পরে যে ওষুধগুলি খাওয়ার আছে, সেগুলি একসঙ্গে খেলে ক্ষতি কী? দুটো আলাদা গোত্রের ওষুধ একসঙ্গে শরীরে প্রবেশ করে যে বিরূপ কোনও প্রতিক্রিয়া হবে না, সেই গ্যারান্টি কেউ দিতে পারে না। অনেক ক্ষেত্রেই এমন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া কারণে শরীরের মারাত্মক ক্ষতি হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। যেমন ধরুন antidepressants এবং methadone-এর মতো ওষুধ একসঙ্গে খেলে ছোট-বড় নানা সমস্যা মাথা চাড়া দিয়ে উঠতে পারে। তাই এই নিয়ে সাবধান থাকাটাই বুদ্ধিমানের কাজ।

যে কোনও ওষুধ সম্পর্কে সবটুকু জেনে-বুঝে নিন

ডাক্তার কোনও ওষুধ খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া মাত্র সেই ওষুধ সম্পর্কে খুঁটিনাটি সবটুকু জেনে নেওয়া উচিত। প্রথমত সেই ওষুধের ডোজ সম্পর্কে জেনে নিন। এর পর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার পালা। এই ওষুধটি (medication mistakes) খেলে কোনও ধরনের সমস্যা হতে পারে কিনা, সে সম্পর্কে খোঁজ-খবর করে নিন। প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ মতো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া কমাতে কিছু ওষুধ খাওয়ার প্রয়োজন রয়েছে কিনা, সে সম্পর্কেও জেনে নেওয়াটা জরুরি। এক্ষেত্রে আরেকটা নিয়ম মেনে চলতে ভুলবেন না যেন! কী নিয়ম? অনেকেই ছোটখাটো নানা শারীরিক সমস্যার প্রকোপ কমাতে 'ওভার দ্যা কাউন্টার' মেডিসিন কিনে খেয়ে থাকেন। এই অভ্যাস খুবই ক্ষতিকারক। কারণ, তাতে করে নানা রোগের খপ্পরে পড়ার আশঙ্কা থাকে। তাই তো ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া ভুলেও ওষুধ খাবেন না। ডাক্তারের পিছনে দু-পাঁচশো টাকা খরচ হলে হোক না, তাতে কোনও ক্ষতি নেই! জানবেন, শরীরের থেকে বড় ধন আর কিছুই নেই।

আজ খেলেন, কাল খেলেন না- এমন করলেই বিপদ!

pixabay

প্রত্যেকটা ওষুধেরই একটা কোর্স রয়েছে। সেই সময়সীমা পর্যন্ত নিয়ম মেনে মেডিসিন খেয়ে যেতে হবে। কিন্তু অনেকেই এই নিয়ম মানেন না। খেয়াল করে দেখবেন কষ্ট কমে যাওয়া মাত্র অনেকেই ওষুধ খাওয়া বন্ধ করে দেন। কোর্স শেষ হল কিনা সেদিকে খেয়ালই রাখেন না। আবার অনেকে অনিয়মিত ওষুধ খান। এমন সব অভ্যাস শরীরের জন্য ভাল নয়। বিশেষ করে Antidepressants, স্টেরয়েড এবং blood-thinning ওষুধ নিয়ম মেনে না খেলে মহা বিপদ!

একই ধরনের সমস্যা হলেও অন্যের ওষুধ ভুলেও খাবেন না

চিকিৎসক ওষুধ দেন রোগীর ফিটনেস লেভেল, বয়স এবং অন্যান্য নানা ফ্যাক্টর মাথায় রেখে। তাই তো একই ধরনের সমস্যাতেও প্রত্যেককেই আলাদা আলাদা রকমের ওষুধ দেওয়ার চল রয়েছে। তাই তো অন্যের ওষুধ খাওয়া মোটেই বুদ্ধিমানের কাজ নয়। বরং যতই সাধারণ সমস্যা হোক না কেন, ডাক্তার দেখিয়ে ওষুধ খান। কারণ, একই সমস্যায় রাম যে ওষুধ খাচ্ছে, সেই একই ওষুধ যে শ্যামকেও দেওয়া হবে, এমন নয় কিন্তু!

আরও কতগুলি বিষয় মাথায় রাখা জরুরি

pixabay

১. নিজের ইচ্ছা মতো ওষুধ খাওয়ার ভুল কাজটা করবেন না। কারণ, অনেক সময়ই লক্ষণ দেখে রোগ বুঝে ওঠা সম্ভব হয় না। তাই নিজের উপর ডাক্তারি করার অভ্যাসটা বেজায় ক্ষতিকারক!

২. নিয়ম মেনে ওষুধ খান। যে ওষুধ খালি পেটে খাওয়া উচিত, সেটা খালি পেটেই খান। ভরা পেটে খাওয়ার ওষুধ খালি পেটে খেলে বা উল্টোটা করলেও শরীরের মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে। তাই নিজের ইচ্ছা মতো ওষুধ খাওয়াটা এবার বন্ধ করুন।

৩. ডাক্তার যে মাত্রায় ওষুধ খেতে বলেছেন। ঠিক সেই মাত্রাতেই খাওয়া উচিত। যদি মনে করেন, বেশি মাত্রায় ওষুধ খেলে শরীর তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে উঠবে, তাহলে ভুল ভাবছেন! প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, অনেকেই অতিরিক্ত সুফল পাওয়ার লোভে মুঠো মুঠো ভিটামিন ট্যাবলেট খেয়ে থাকেন। এমনটা করা এবার থেকে বন্ধ করুন। না হলে কিন্তু শরীরের কোনও গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গের ভীষণ রকমের ক্ষতি হয়ে যাবে।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এই দশকটি আমরা শেষ করতে চলেছি #POPxoLucky2020-র মাধ্যমে। যেখানে আপনারা প্রতিদিন পাবেন নতুন-নতুন সারপ্রাইজ। আমাদের এক্কেবারে নতুন POPxo Zodiac Collection মিস করবেন না যেন! এতে আছে নতুন সব নোটবুক, ফোন কভার এবং কফি মাগ, যেগুলো দারুণ ঝকঝকে তো বটেই, আর একেবারে আপনার কথা ভেবেই তৈরি করা হয়েছে। হুমম...আরও একটা এক্সাইটিং ব্যাপার হল, এখন আপনি পাবেন ২০% বাড়তি ছাড়ও। দেরি কীসের, এখনই POPxo.com/shopzodiac-এ যান আর আপনার আগামী বছরটা POPup করে ফেলুন!