পিয়ারসিং করাতে গিয়ে কানে বা নাকে ইনফেকশন হয়ে গেছে? ভরসা রাখুন এই চারটি ঘরোয়া টোটকায়

পিয়ারসিং করাতে গিয়ে কানে বা নাকে ইনফেকশন হয়ে গেছে? ভরসা রাখুন এই চারটি ঘরোয়া টোটকায়

কানে বেশ তিন চারটে দুল, টপ বা স্টাড পরতে ভালবাসেন, কিন্তু কান ফোটাবেন নাকি মনের ইচ্ছে মনেই রেখে দেবেন, সেই বিষয়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারছেন না? গয়নার দোকানে গিয়ে অথবা অনলাইন শপিং করতে করতেই কোনও একটা নাকছাবি বা নথ খুব পছন্দ হয়েছে, কিন্তু নাক ফুটানো (piercing) নেই বলে পছন্দের নাকছাবি বা নথটি কিনতে গিয়েও কিনতে পারলেন না! কারণ? আপনার মনে হয়তো কোথাও একটা ভয় রয়েছে যে, কান বা নাক ফোটালে (piercing) ইনফেকশন (infection) হয়ে যাওয়ার একটা আশঙ্কা থাকলেও থাকতে পারে। 

সত্যি কথা বলতে কী, ভাল পার্লার থেকে এবং সূচ ভাল করে স্টেরিলাইজ করিয়ে নাক বা কান ফোটালে (piercing) ইনফেকশন (infection) হওয়ার আশঙ্কা খুব কম থাকে। তবুও রিস্ক নিয়ে কী লাভ বলুন! তবে যদি আপনার কপাল খারাপ থাকে আর নাক বা কান ফোটাতে (piercing) গিয়ে জীবাণু সংক্রমণ (infection) হয়েই যায়, তা হলে আমাদের বলে দেওয়া ঘরোয়া টোটকাগুলোর (home remedies) উপর ভরসা করে ট্রাই করে দেখতে পারেন। কয়েকদিনের মধ্যেই আরাম পাবেন।  

 

নারকেল তেল

শাটারস্টক

নারকেল তেলে রয়েছে মধ্যমবর্গীয় ফ্যাটি অ্যাসিড যা যে-কোনও জীবাণু নাশ করতে খুবই কার্যকরী। শুধুমাত্র ইনফেকশন (infection) দূর করতেই নয়, জীবাণু সংক্রমণের ফলে যদি ব্যথা হয় বা ফোলাভাব হয় সেক্ষেত্রেও নারকেল তেল খুবই উপকারী। নাক বা কান ফোটানোর (piercing) ফলে হওয়া ইনফেকশন দূর করতেও নারকেল তেল দারুণ এক ঘরোয়া টোটকা (home remedies)। যতটা প্রয়োজন ততটা নারকেল তেল নিয়ে আঙুলের সাহায্যে যেখানে জীবাণুসংক্রমণ হয়েছে সেখানে লাগিয়ে নিন। মাসাজ করার দরকার নেই। সারাদিনে অন্তত চার-পাঁচবার করুন।

আরও পড়ুন: পক্সের দাগ (pox scars) দূর করার ঘরোয়া টোটকা

ঊষ্ণ নুন জল

এক কাপ ঊষ্ণ জলে এক চা চামচ নুন মিশিয়ে নিন। এবারে পরিষ্কার তুলো বা কটন প্যাডের সাহায্যে পিয়ারসিং করার ফলে যেখানে জীবাণু সংক্রমণ (infection) হয়েছে, সেখানে লাগিয়ে নিন। সারাদিনে বেশ অনেকবার করেই সেঁক দিন। নুনের মধ্যে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান রয়েছে, যা খুব তাড়াতাড়ি ইনফেকশন দূর করতে সাহায্য করে।  

হলুদ

শাটারস্টক

হলুদ যে খুব ভাল অ্যান্টিসেপটিক, তা আমরা প্রত্যেকেই জানি। সেজন্যই কোথাও কেটে-ছড়ে গেলে হলুদের প্রলেপ লাগানো হয়, যাতে বাইরে থেকে ধুলো বা ময়লা লেগে জীবাণু সংক্রমণ না হয়ে যায়। আপনারও যদি পিয়ারসিং (infection) করার ফলে ইনফেকশন (infection) হয়, সেক্ষেত্রে সামান্য হলুদ বেটে নিয়ে (গুঁড়ো না লাগানোই ভাল, অনেক সময়ে গুঁড়ো হলুদে ক্ষতিকর রাসায়নিক মেশানো হয়) যেখানে ইনফেকশন হয়েছে সেখানে লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে ঊষ্ণ জলে তোয়ালে ভিজিয়ে সেই ভেজা তোয়ালে দিয়ে পরিষ্কার করে নিন। আপনি চাইলে হলুদের সঙ্গে নিমপাতাও বেটে লাগাতে পারেন, এতে পিয়ারসিং থেকে হওয়া জীবাণুসংক্রমণ থেকে দ্রুত মুক্তি পাবেন।

আরও পড়ুন: মুখের দুর্গন্ধ নিয়ে নাজেহাল? এই সমস্যা দূর করার জন্য রইল অব্যর্থ কিছু ঘরোয়া টোটকা

এসেনশিয়াল অয়েল

নানা ধরনের এসেনশিয়াল অয়েলও ব্যবহার করতে পারেন নাক বা কান ফোটানোর ফলে হওয়া জীবাণুসংক্রমণ দূর করার জন্য। যেমন, দুই-তিন ফোঁটা টি ট্রি অয়েলের সঙ্গে এক চা চামচ নারকেল তেল মিশিয়ে যেখানে ইনফেকশন (infection) হয়েছে সেখানে লাগিয়ে নিন। মিনিটকুড়ি রেখে শুকনো নরম তোয়ালে দিয়ে মুছে নিন। এক্ষেত্রে পিপারমিন্ট অয়েলও ব্যবহার করতে পারেন। সেক্ষেত্রেও আপনাকে এক চা চামচ নারকেল তেলের সঙ্গে কয়েকফোঁটা পিপারমিন্ট এসেনশিয়াল অয়েল মিশিয়ে পিয়ারসিং-এর জায়গায় লাগাতে হবে এবং মিনিট ২০ পর মুছে দিতে হবে। সারাদিনে বেশ কয়েকবার করে এই ঘরোয়া টোটকা (home remedies)  ট্রাই করতে পারেন যাতে দ্রুত আরাম পান।

এখান থেকে কিনতে পারেন টি ট্রি অয়েলপিপারমিন্ট অয়েল

মূল ছবি সৌজন্য: শাটারস্টক 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আমাদের এক্কেবারে নতুন POPxo Zodiac Collection মিস করবেন না যেন! এতে আছে নতুন সব নোটবুক, ফোন কভার এবং কফি মাগ, যেগুলো দারুণ ঝকঝকে তো বটেই, আর একেবারে আপনার কথা ভেবেই তৈরি করা হয়েছে। হুমম...আরও একটা এক্সাইটিং ব্যাপার হল, এখন আপনি পাবেন ২০% বাড়তি ছাড়ও। দেরি কীসের, এখনই POPxo.com/shopzodiac-এ যান আর আপনার এই বছরটা POPup করে ফেলুন!