দেখতে-দেখতে এসে গেল নতুন বছর! এই বছরটা কেমন যাবে সেটা জেনে নিন ঝটপট...

দেখতে-দেখতে এসে গেল নতুন বছর! এই বছরটা কেমন যাবে সেটা জেনে নিন ঝটপট...

গ্রহ-নক্ষত্রের উপর মিলেনিয়ালদের ভরসা নেই ঠিকই। কিন্তু একথাও অস্বীকার করার উপায় নেই যে আমাদের জীবনের ভাল-মন্দের সঙ্গে রাশিচক্রের যোগ বেজায় নিবিড়। শুধু তাই নয়, নিত্য দিন আমাদের জীবনে খারাপ-ভাল যাই ঘটছে, তার সবটুকুই নাকি গ্রহ-নক্ষত্রের গতিপ্রকৃতির উপর নির্ভর করে। কোন গ্রহ, রাশির কোন ঘরে এসে ঘর বেঁধেছে, তার উপর নাকি চাকরির প্রমোশন থেকে লাভ লাইফ, সব কিছুই নির্ভর করে। তাই তো জ্যোতিষ শাস্ত্রকে উপেক্ষা করা মোটেই বুদ্ধিমানের কাজ নয়। বিশেষ করে নতুন বছরটা (2020 Predictions) কেমন যাবে, সেই নিয়ে একটু ধারণা করে নিতে তো জ্যোতিষ শাস্ত্রের দারস্থ হলে মন্দ হয় না। তাছাড়া আগে থাকতেই আগামী ৩৬৫ দিন কেমন যাবে, সেই নিয়ে একটা আন্দাজ করে নিতে পারলে বিপদ-আপদ এড়ানোও সম্ভব হবে। তাই ঝটপট নিজের রাশিটা (Zodiac Signs) জেনে নিয়ে ২০২০ সালটা কেমন যাবে, সেটা জেনে নিতে দেরি করবেন না যেন!

১. মেষরাশি

pixabay

মোটের উপর এই রাশির জাতক-জাতিকাদের এই বছরটা বেশ ভালই যাবে। কেন এমন দাবি, তাই ভাবছেন? আসলে জ্যোতিষ বিশেষজ্ঞদের মতে ২০২০ সালে এই রাশির নবম ঘরে সূর্য, বুধ, শনি এবং কেতু অবস্থান করবে, যে কারণে ভাগ্য ফিরতে সময় লাগবে না। শুধু তাই নয়, বছরের শুরুতেই দেখবেন খারাপ সময় কেটে যাবে, যে কারণে অর্থনৈতিক উন্নতি তো ঘটবেই, সেই সঙ্গে রোগভোগের আশঙ্কাও কমবে। শুধু তাই নয়, আপনাদের বার্থ চার্টের তৃতীয় ঘরে আগামী নয় মাস রাহু অবস্থান করবে, যে কারণে সাহস বাড়বে। এমনকী, রাহুর আশীর্বাদে বিদেশভ্রমণের সুযোগও এসে যাবে। কর্মক্ষেত্রেও উন্নতির যোগ রয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে মেষরাশির জাতক-জাতিকাদের উপরে শনি দেবের আশীর্বাদ থাকার কারণে চাকরি হোক, কী ব্যবসা, সব ক্ষেত্রেই উন্নতির সুযোগ আসবে। তবে কয়েকটি বিষয়ে নজর রাখা একান্ত প্রয়োজন। যেমন ধরুন গ্রহ-নক্ষত্রের এমন অবস্থানের কারণে বাবার সঙ্গে মনোমালিন্য বাড়তে পারে। তাই এদিকটায় একটু নজর রাখা একান্ত প্রয়োজন। ২৩ সেপ্টেম্বরের পরে রাহুর অবস্থানে পরিবর্তন আসার কারণে কিছু ঝুটঝামেলার সম্মুখীন হতে হবে বই কী। তাই এই সময় মাথা ঠান্ডা রাখাটা একান্ত প্রয়োজন।

২. বৃষরাশি

pixabay

এই রাশির জাতক-জাতিকাদের কোষ্ঠীর (Horoscope) অষ্টম ঘরে বুধের অবস্থান হওয়ার কারণে বছরের শুরুর দিকটা মন্দ যাবে না। এই সময় কর্মক্ষেত্রে সাফল্য পাবেন। অর্থনৈতিক উন্নতিও ঘটবে। একই সময়ে কোষ্ঠীর সপ্তম ঘরে প্রবেশ ঘটবে মঙ্গলের, যার প্রভাবে বৈবাহিক জীবনে শান্তি ফিরে আসবে। তবে একটা বিষয় রাখা জরুরি। এই বছর শনির প্রভাব আরও জোরদার হওয়ার করণে কিছু বাধা বিপত্তির সম্মুখীন হতে হবে। জানুয়ারির ২৪ তারিখ পর্যন্ত শনির প্রভাব থাকবে। তারপর ধীরে-ধীরে অবস্থার উন্নতি ঘটলেও ১১ মে থেকে আবার শনির প্রবেশ ঘটবে কোষ্ঠীতে। ফলে নানা ধরনের সমস্যা মাথা চাড়া দিয়ে উঠবে। তাই তো এই সময় প্রয়োজন বুঝলে একজন জ্যোতিষীর পরামর্শ নিতেই পারেন। তাতে ঝুট-ঝামেলা থেকে মুক্তি পাওয়ার পথ পেলেও পেতে পারেন। শনির প্রকোপে খারাপ সময় এলেও আপনাদের জন্য সুখবরও রয়েছে। ৩০ মার্চের পরে কোষ্ঠীর নবম ঘরে বৃহস্পতির প্রবেশ ঘটবে, যে কারণে তুমুল সাফল্যের স্বাদ পাবেন। এমনকী, কর্মক্ষেত্রেও উন্নতির সম্ভবনা রয়েছে। তাই বুঝতেই পারছেন এই বছরটা খারপ-ভাল মিশিয়ে মন্দ কাটবে না।

৩. মিথুনরাশি

pixabay

বুধের থেকে সাবধান। কারণ, এই গ্রহের নেতিবাচক প্রভাবে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে সমস্যা হবে। তবে বছর যত এগবে, ততই বুধের প্রভাব কাটতে থাকবে। তখন আর এই ধরনের সমস্যা হবে না। অন্যদিকে কোষ্ঠীর নবম ঘরে চাঁদের প্রবেশ ঘটার কারণে সৌভাগ্য রোজের সঙ্গী হয়ে উঠবে। ফলে কর্মজীবনে তো বটেই, পারিবারিক জীবনেও সুখ-শান্তি ফিরে আসবে। সঙ্গে শরীর-স্বাস্থ্যেরও উন্নতি ঘটবে। তবে মঙ্গলের প্রভাবে মাঝে মধ্যে স্ট্রেস-অ্যাংজাইটি বাড়তে পারে। সে সময় মাথা ঠান্ডা রাখার চেষ্টা করবেন, তাতে করে অকারণ ঝুট-ঝামেলায় জড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা কমবে। একই কারণে এই বছর ভালবাসার সম্পর্কে একটু চড়াই-উতড়াই সইতে হবে। তাই ভেবে-চিন্তে পা ফেলবেন। না হলেই বিপদ। আসলে আপনাদের কোষ্ঠীর সপ্তম ঘরে একই সঙ্গে প্রবেশ ঘটবে সূর্য, বুধ, শনি, বৃহস্পতি এবং কেতুর, যে কারণে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কথায় কথায় মনোমালিন্য মাথা চাড়া দিয়ে ওঠার আশঙ্কা থাকবে। রাহুর কারণে ধৈর্যচ্যুতিও ঘটবে। তাই সাবধান! ২৪ জানুয়ারির পরে অষ্টম ঘরে প্রবেশ করবে শনি, যা মোটের উপর সুখবর। কারণ, এর প্রভাবে খারাপ চিন্তা দূর হবে। সেই সঙ্গে কর্মক্ষেত্রেও উন্নতি ঘটবে। তবে মে মাসের ১১ তারিখ থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত একটু সমলে চলবেন। কারণ, এই সময়টা আপনাদের জন্য় একেবারেই ভাল নয়। যাঁরা এই বছর বিয়ের করার কথা ভাবছেন, তাঁদের জন্য সুখবর। মে মাসের ২৪ তারিখের পরে বিয়ের যোগ প্রবল। এই সময় মনের মতো জীবনসঙ্গী পাওয়ার যোগও রয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ২৩ সেপ্টেম্বর রাহুর অবস্থানে পরিবর্তন আসার কারণে খরচ একটু বাড়তে পারে। তাই এই সময় সঞ্চয়ের দিকে নজর ফেরানোটা জরুরি। তাতে করে বিপদের দিনে টাকার অভাব হবে না।

৪. কর্কটরাশি

pixabay

বার্থ চার্টের ষষ্ঠ ঘরে একসঙ্গে বুধ, সূর্য, শনি এবং কেতুর প্রবেশ ঘটার কারণে কর্মক্ষেত্রে সাফল্য আসবে। সেই সঙ্গে পারিবারিক জীবনেও সুখের সন্ধান পাবেন। এমনকী, বিদেশ যাওয়ার সম্ভাবনাও রয়েছে। ৩০ মার্চের পরে বৃহস্পতি গ্রহের আবস্থান পরিবর্তন হওয়ার কারণে বিয়ের যোগ আরও দৃঢ় হবে। মনের মতো জীবনসঙ্গীর সন্ধান পাবেন। তবে ১১ মে থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত শনির প্রভাব থাকবে, যে কারণে নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে। কর্মক্ষেত্রেও নানা বাঁধা আসবে। তবে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত মাথা ঠান্ডা রেখে এগিয়ে যান। এই সময়ের পরেই মানসিক অশান্তি কিছুটা হলেও কমবে। ৩০ জুনের পরে শরীরের দিকে একটু বাড়তি নজর ফেরাবেন। কেন এমন উপদেশ, তাই ভাবছেন? আসলে এই সময় বৃহস্পতি গ্রহের প্রভাবে নানা ধরনের শারীরিক সমস্যার খপ্পরে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। বিশেষ করে পেটের রোগ এবং হজমের সমস্যা মাথা চাড়া দিয়ে উঠতে পারে। তাই সাবধান!

৫. সিংহরাশি

pixabay

আপনার নতুন বছরের শুরুটা বেশ ফাটাফাটিই হবে। কারণ, এক তারিখ পেরতে না পেরতেই পঞ্চম ঘরে প্রবেশ করবে সূর্য। তাতে কী হবে? এই কারণে কর্মক্ষেত্রে একের পর এক সুযোগ আসতে শুরু করবে। বৈবাহিক জীবনেও সুখ-শান্তি বজায় থাকবে। এদিকে চাঁদের প্রভাবে বিয়ের যোগও দৃঢ় হবে। নতুন বাড়ি কেনার কথা ভাবছেন নাকি? তাহলে এই বছরে সেই স্বপ্ন পূরণ হল বলে। এমন দাবীর পিছনে কারণও রয়েছে। কী কারণ? কোষ্ঠীর চতুর্থ ঘরে মঙ্গলের প্রবেশ করবে, যে কারণে নতুন বাড়ি কেনার সুযোগ যেমন আসবে, তেমনই গাড়ি কেনার সম্ভাবনাও রয়েছে। তবে এই বছর আপনাদের একটু আধটু কষ্টও সইতে হতে পারে। আসলে শুক্রগ্রহ অবস্থান করবে দশম ঘরে, যে কারণে ভাগ্য একটু ইউ টার্ন নেওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এছাড়াও আরেকটা বিষয় মাথায় রাখা জরুরি। তা হল ২৪ জানুয়ারির পরে শনি গ্রহ ষষ্ঠ ঘরে প্রবেশ করার কারণে প্রতিপক্ষের সংখ্যা বাড়তেই থাকবে। তাই মনের জোর হারালে চলবে না। দেখবেন, ধৈর্য ধরলে ফল পাবেনই। কারণ, বছরের মাঝামাঝি সময়ে বৃহস্পতি গ্রহের প্রভাব বাড়ার কারণে সাফল্য আসবেই আসবে। কর্মক্ষেত্রেও উন্নতির সুযোগ আসবে।

৬. কন্যারাশি

pixabay

বছরের শুরুর দিন থেকেই বৃহস্পতি, কেতু, সূর্য এবং শনির সঙ্গ পাবেন আপনারা। তাই তো ভাল-মন্দ মিলিয়ে মন্দ কাটবে না সারা বছরটা। সূর্যের প্রভাবে সামাজিক সম্মানও বাড়াবে। অর্থনৈতিক উন্নতির স্বাদও পাবেন। কর্মক্ষেত্রেও একের পর এক সুযোগ আসার সম্ভাবনা রয়েছে। শুধু তাই নয়, বৈবাহিক জীবনেও সুখ-শান্তি বজায় থাকবে। তবে এত সুখের মাঝে একটু ঝুট-ঝামেলাও সইতে হবে। আসলে বার্থ চার্টের দশম ঘরে রাহুর প্রবেশ ঘটবে, যে কারণে কর্মক্ষেত্রে একটু বাঁধার সম্মুখিন হতে হবে। যদিও এই নিয়ে চিন্তার কোনও কারণ নেই। কারণ, অল্প দিনেই খারাপ সময় কেটে যাবে।

৭. তুলারাশি

pixabay

কোষ্ঠীর চতুর্থ ঘরে শুক্রের প্রভাব বাড়ার কারণে আপনাদের সব দিক থেকে সুফল মিলবে। সুখ-সমৃদ্ধির ছোঁয়া লাগবে জীবনে। এমনকী, বাড়ি-গাড়ি কেনার সুযোগও আসবে। তবে এখানেই শেষ নয়, শুক্রের ইতিবাচক প্রভাবে মনের মতো জীবনসঙ্গীর খোঁজও পাবেন। তাছাড়া বৈবাহিক জীবনও বেশ আনন্দেই কাটবে। এদিকে দ্বিতীয় ঘরে মঙ্গলের প্রবেশ ঘঠার কারণে অর্থনৈতিক উন্নতির পথ প্রশস্ত হবে। আবার শনি গ্রহের প্রভাবে আরও বেশ কিছু সুফল মিলবে। তবে ১১ মে-এর পর থেকে শনি গ্রহ নিজের জায়গা বদল করার কারণে কর্মক্ষেত্রে বেশ কিছু ঝামেলা সইতে হতে পারে। তবে সেই নিয়ে বেশি চিন্তা করবেন না। কারণ, খারাপ সময় এলেও তা বেশি দিন স্থায়ী হবে না। বিশেষজ্ঞদের মতে ২৯ সেপ্টেম্বরের পর থেকে শনির অবস্থানে পরিবর্তন আসবে। ফলে এর পর থেকেই খারাপ সময় কেটে যাবে।

৮. বৃশ্চিকরাশি

pixabay

বার্থ চার্টের দ্বিতীয় ঘরে মঙ্গল এবং নবম ঘরে চাঁদের প্রবেশ ঘঠার কারণে যে নানা সুফল পাবেন, তাতে কোনও সন্দেহ নেই। বিশেষ করে কর্মক্ষেত্রে উন্নতির যোগ তো রয়েছেই। এমনকী, পারিবারিক জীবনেও সুখ-শান্তির পরিবেশ বজায় থাকবে। তবে শনির প্রভাবে মাঝে মধ্যেই একটু-আধটু ধৈর্যচ্যুতি ঘটবে, যে কারণে নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন। তাই এই বিষয়ে একটু সাবধান থাকাই বুদ্ধিমানের কাজ। যদিও মার্চের তিরিশ তারিখের পর থেকে পরিস্থিতির পরিবর্তন হতে শুরু করবে। এই সময় বৃহস্পতি এবং শনির ইতিবাচক প্রভাবে সব বাঁধা কেটে যাবে। মোট কথা সারা বছর জুড়েই শনির প্রভাবে সুফল যেমন পাবেন, তেমনই কোনও কোনও সময় খারাপ পরিস্থিতির সম্মুখীনও হতে হবে। কিন্তু তাই বলে ধৈর্য হারালে চলবে না।

৯. ধনুরাশি

pixabay

এই রাশির জাতক-জাতিকাদের বছরের প্রথম দিন থেকেই আনন্দে কাটবে। এর পিছনে মূল কারণ হল বৃহস্পতির অবস্থান। এক তারিক থেকে বৃহস্পতির প্রভাব বাড়বে, যে কারণে শরীরের ক্ষমতা তো বাড়বেই, সঙ্গে অর্থনৈতিক উন্নতির পথও খুলে যাবে। শুধু তাই নয়, এত দিন যে সব বাঁধার কারণে কর্মক্ষেত্রে এগতে অসুবিধা হচ্ছিল, সেই সব বাঁধাও এক এক করে মিটে যাবে। কর্মক্ষেত্রে নতুন নতুন সুযোগ আসতেও শুরু করবে। এদিকে শুক্রের প্রভাবে টাকাপয়সা সংক্রান্ত সব ঝামেলা মিটে যেতেও সময় লাগবে না। তাই বুঝতেই পারছেন, এই বছরটা আপনাদের বেশ ভালই কাটবে। তবে রাহুর থেকে সাবধান! সপ্তম ঘরে এর প্রবেশের কারণে বৈবাহিক জীবনে নানা ঝামেলা মাথা চাড়া দিয়ে উঠতে পারে। এমন পরিস্থিতিতে মাথা ঠান্ডা করে সব সিদ্ধান নেবেন, তাহলে আর পরিস্থিতি হাতের বাইরে যাবে না।

১০. মকররাশি

pixabay

শনির দোষে এই বছরের প্রথম থেকেই অর্থনৈতিক সমস্যা আপনাদের পিছু ছাড়বে না। তবে মঙ্গলের আশীর্বাদে এই সব ঝামেলার সঙ্গে লড়াই করার মানসিক শক্তিও পেয়ে যাবেন। এই সময়টা যদি ধৈর্য ধরে থাকতে পারেন, তাহলেই সুফল মিলবে। কারণ, বছরের মাঝামাঝি সময়ে শনির প্রভাব কিছুটা হলেও কমবে। সেই সময় নানা সুফল পাবেন। বিশেষ করে যাঁরা ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত, তাঁদের কিছুটা হলেও উন্নতির যোগ রয়েছে। মার্চের তিরিশের পর থেকে পরিস্থিতির পরিবর্তন হতে শুরু করবে। বছরের শেষে গিয়ে অবস্থার আরও পরিবর্তন হবে। তবে সব মিলিয়ে ২০২০ সালটা আপনাদের খুব একটা ভাল যাবে না। তাই প্রথম থেকেই মানসিকভাবে তৈরি থাকুন।

১১. কুম্ভরাশি

pixabay

টাকাপয়সা নিয়ে আপনাদের আর কোনও চিন্তাই নেই। কারণ, শুরুর দিন থেকেই শুক্র গ্রহ অবস্থান করবে দ্বাদশ ঘরে, যে কারণে অর্থনৈতিক সমস্যার প্রকোপ কমতে সময় লাগবে না। শুধু তাই নয় শুক্রের আশীর্বাদে কর্মক্ষেত্রেও উন্নতি ঘটবে। সেই সঙ্গে পারিবারিক জীবনে সুখ-সমৃদ্ধির ছোঁয়া লাগবে। অন্যদিকে বুধের kকপ্রভাবে আপনাদের বৈবাহিক জীবন বেশ সুখেই কাটবে। তাই বুঝতেই পারছেন ২০২০ সালটা আপনাদের যে আনন্দেই কাটবে, তাতে কোনও সন্দেহ নেই।

১২. মীনরাশি

pixabay

বুধ, বৃহস্পতি, সূর্য এবং শনির প্রভাবে চরম সাফল্যের স্বাদ পাবেন। কর্মক্ষেত্রে একের পর এক সুযোগ আসতে থাকতে। সঙ্গে অর্থনৈতিক উন্নতির রাস্তাও প্রশস্ত হবে। বিশেষ করে যাঁরা ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত, তাঁদের উন্নতি কেউ আটকাতে পারবে না। বার্থ চার্টের নবম ঘরে মঙ্গল গ্রহ অবস্থান করার কারণে সব কাজেই পজেটিভ ফল পাবেন। আচ্ছা, বৈবাহিক জীবন কেমন যাবে? বুধ এবং সূর্যের প্রভাবে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সম্পর্কের উন্নতি ঘটবে। অবিবাহিতদের জন্যও সুখবর। কারণ, এই বছরে মনের মতো জীবনসঙ্গী পাওয়ার যোগ তুঙ্গে। তবে মে মাসের ১১ তারিখের পর থেকে একটু সাবধান হতে হবে। কারণ, এই সময়ে শনির প্রভাবে রোজগার যেমন কমবে, তেমনই শারীরিক সমস্যা বাড়ার আশঙ্কাও রয়েছে। এছাড়া বাকি বছরটা মোটের উপর এই জাতক-জাতিকাদর বেশ ভালই কাটবে।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এসে গেল #POPxoBeauty - POPxo-র স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাক্কায়...