স্যাঁতস্যাঁতে শীতের দিনে বাড়িতেই ড্রাই ক্লিন করে ফেলুন পোশাক, কায়দা বলে দিচ্ছি আমরা

স্যাঁতস্যাঁতে শীতের দিনে বাড়িতেই ড্রাই ক্লিন করে ফেলুন পোশাক, কায়দা বলে দিচ্ছি আমরা

আজকাল পোশাক কিনতে যাওয়াটা একটা ঝকমারি। কারণ, বেশিরভাগ পোশাকের ক্ষেত্রেই দেখবেন, ঘাড়ের কাছে ছোট্ট একটা লেবেল সেঁটে দেওয়া হয়েছে, যাতে দেখা আছে 'ড্রাই ক্লিন ওনলি!' নিন, এবার ঠেলা সামলান! অন্তর্বাস থেকে শুরু করে বেনারসি শাড়ি, সবেতেই ড্রাই ক্লিন। এবার আপনি নাচতে-নাচতে লন্ড্রি গিয়ে সব ড্রাই ক্লিন (Dry clean) করতে দিন এবং তারপর দোকানটিকে বড়লোক করুন এবং নিজেকে গরিব! আসলে আমরা নিজেদের যতটা যত্ন করি, জামাকাপড়ের দিকে ততটা খেয়াল রাখি না। তাই নাকি পোশাক নির্মাতারা বাধ্য হয়ে পোশাকের গায়ে এসব ভয় ধরানো লেবেল সেঁটে দেন। নইলে বাড়িতে যেমন-তেমন করে কেচে, সেগুলোর দফা-রফা করে আমরা তো আবার দোকানেই রওনা দেব ঝগড়া করতে! আজকের প্রতিবেদনে তাই বাড়িতে (home) পোশাক কাচার নিয়ম এবং বাড়িতেই সহজে ড্রাই ক্লিন করার পদ্ধতি সম্বন্ধে আপনাদের বিশদে জানাচ্ছি। আশা করি, এর পর পোশাক (clothes) কিনতে গেলে লেবেলে 'ড্রাই ক্লিন ওনলি' লেখা থাকলে চমকে যাবেন না!

১. কাপড় কাচার নিয়মকানুন

Pixabay

১. পোশাক কাচার আগে লেবেলে দেখুন ঠিক কী লেখা আছে, ড্রাই ক্লিন নাকি ড্রাই ক্লিন ওনলি। শুধু ড্রাই ক্লিন লেখা থাকলে সেই পোশাক আপনি অনায়াসে বাড়িতে হাতে কিংবা মেশিনে কাচতে পারেন।

২. পোশাকটির অল্প অংশ আগে হাতে ডিটারজেন্ট দিয়ে ধুয়ে দেখুন। যদি কাপড়টির টেক্সচারে কোনও পরিবর্তন না হয়, তা হলে এটি বাড়িতে কাচতে পারবেন। 

৩. পোশাক অতি অবশ্যই ঠান্ডা জলে এবং মাইল্ড ডিটারজেন্ট ব্যবহার করে কাচবেন। উলেন পোশাক, সিল্ক শাড়ি কিংবা একটু ডেলিকেট পোশাক নিজে হাতে কাচুন কিংবা মেশিনে 'ডেলিকেট ওয়াশ' অথবা 'বেবি ক্লোদস ওয়াশ' মোডে কাচুন।

৪. সরাসরি সূর্যের আলোয় পোশাক শুকোতে দেবেন না। আর দড়িতে মেলবেন না, হ্যাঙ্গারে মেলুন। তাতে পোশাক ভাল থাকে এবং ইউনিফর্মলি শুকোয়।

৫. যদি পোশাকের কোথাও দাগ লাগে, তা হলে আগে সেই দাগ স্পট ক্লিন করুন। তারপর প্রয়োজন হলে পুরো পোশাকটি কাচতে দেবেন।

২. বাড়িতে ড্রাই ক্লিন করার কায়দা

Pixabay

১. এর জন্য আপনার প্রয়োজন একটি ফেব্রিক স্টিমার ক্লিনার এবং লিকুইড ডিটারজেন্ট। যে পোশাকটি কাচবেন, সেটি ভাল করে হ্যাঙ্গারে টানটান করে ঝোলান। শাড়ি হলে মাটিতে লম্বা করে পেতে নিন। এবার স্টিমারে লিকুইড ডিটারজেন্ট ভরে স্টিম করুন সারা পোশাকে। এরপর ওভাবে টানটান করেই শুকিয়ে নিন। ব্যস, ড্রাই ক্লিনিং ডান! 

২. যদি সোয়েটারের হাতা-গলা, দামি শাড়ির পাড় বেশি নোংরা হয়, তা হলে আগে হাতে স্পট ক্লিনিং করুন। তারপর স্টিম ক্লিনিং।

৩. পোশাক তেমন নোংরা হয়নি, কিন্তু অসাবধানতায় কোনও দাগ লেগে গিয়েছে? তা হলে স্টিম ক্লিনিংয়ের আগে অতি অবশ্যই সেই দাগ তুলে ফেলুন। কোনও তেল চিটচিটে দাগ তুলতে জলে ভিনিগার কিংবা সোডা গুলে তা তুলোয় নিয়ে আলতো হাতে দাগের উপর ঘষুন। চা-কফির বেয়াড়া দাগও এভাবে তুলতে পারেন। কাপড়ে কোনও নাছোড়বান্দা দাগ তুলতে ভিনিগান, বেকিং সোডা ও নুনের মিশ্রণ ম্যাজিকের মতো কাজ করে। তেলের দাগ তুললে জায়গাটির উপর সামান্য নুন ফেলেও ঘষে তুলে দিতে পারেন। আবার কর্নফ্লাওয়ারও এক্ষেত্রে ভাল কাজ করে।

 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আমাদের এক্কেবারে নতুন POPxo Zodiac Collection মিস করবেন না যেন! এতে আছে নতুন সব নোটবুক, ফোন কভার এবং কফি মাগ, যেগুলো দারুণ ঝকঝকে তো বটেই, আর একেবারে আপনার কথা ভেবেই তৈরি করা হয়েছে। হুমম...আরও একটা এক্সাইটিং ব্যাপার হল, এখন আপনি পাবেন ২০% বাড়তি ছাড়ও। দেরি কীসের, এখনই POPxo.com/shopzodiac-এ যান আর আপনার এই বছরটা POPup করে ফেলুন!