প্রেগন্যান্সি পিরিয়ডে শরীরের নানা অংশে চুলকানির জ্বালা কমাতে কাজে আসবে এই টিপসগুলি

প্রেগন্যান্সি পিরিয়ডে শরীরের নানা অংশে চুলকানির জ্বালা কমাতে কাজে আসবে এই টিপসগুলি

প্রেগন্যান্সি (pregnancy) পিরিয়ডে শরীরের বিভিন্ন অংশে চুলকানি (itchy) হওয়া খুবই স্বাভাবিক। এর বিভিন্ন বৈজ্ঞানিক কারণ রয়েছে। হালকা চুলকানি স্বাভাবিক বিষয় হলেও যদি তা মাত্রাতিরিক্ত হয়ে যায়, তবে চিন্তার কারণ বই কী। গর্ভাবস্থায় মাত্রাতিরিক্ত চুলকানি আসলে একটা অসুখ বলে মত দিয়েছেন চিকিৎসকদের (doctor) একটা বড় অংশ। চিকিৎসার পরিভাষায় এর নাম ইনট্রাহেপাটিক কোলেস্টাসিস অফ প্রেগন্যান্সি বা আইসিপি। লিভারের সমস্যা থেকেই আইসিপি হতে পারে। আইসিপি-র কারণে গর্ভবতী মহিলার বিশেষ কোনও শারীরিক ক্ষতি না হলেও তাঁর গর্ভের সন্তানের জন্য বড় বিপদের আশঙ্কা থেকে যায়। তাই গর্ভাবস্থায় অতিরিক্ত চুলকানি হলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। কিন্তু বিষয়টা স্বাভাবিক মাত্রায় থাকলে কিছু ঘরোয়া বা প্রাকৃতিক উপায়ে এই সমস্যার সমাধান হতে পারে। 

 

১) ময়শ্চারাইজার মাস্ট

সাধারণ ভাবে যে লোশন বা ময়শ্চারাইজার আপনি ব্যবহার করেন, তা একবার চিকিৎসককে দেখিয়ে নিন। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুয়ায়ী প্রেগন্যান্সি পিরিয়ডে চুলকানির সমস্যার সমাধাম পেতে নিয়মিত মেডিকেটেড ময়শ্চাইজার ব্যবহার করুন। 

২) ঢিলে পোশাক

Instagram

প্রেগন্যান্সি পিরিয়ডে আঁটোসাঁটো পোশাক এড়িয়ে চলুন। যতটা সম্ভব ঢিলে পোশাক আপনাকে হেল্প করবে। যাতে শরীরের সঙ্গে পোশাক ঘষা না লেগে যায়, সেটা খেয়াল রাখুন। ভারতীয় হোক বা পাশ্চাত্য, যে ধরনের পোশাক বেছে নেবেন, তাতে যেন কমফর্ট জোনটা হারিয়ে না যায়। 

৩) পোশাকের ফ্যাব্রিক

প্রেগন্যান্সি পিরিয়ডে পোশাকের ফ্যাব্রিক খুব সাবধানে বেছে নিন। সিন্থেটিক পোশাক এড়িয়ে চলুন। সুতির মতো নরম বা খাদির মতো আরামদায়ক কাপড় দিয়ে আপনার শেপ অনুযায়ী পোশাক তৈরি করিয়ে নিতে পারেন। এতে চুলকানির সমস্যা কিছুটা হলেও মিটবে।  

৪) নিয়মিত স্নান

প্রেগন্যান্সি পিরিয়ডে স্নান এড়িয়ে না চলাই ভাল। নিয়মিত স্নান করুন। এতে শরীর ঠান্ডা হবে। সমাধান মিলতে পারে চুলকানি থেকেও।

৫) ফাস্ট ফুড এড়িয়ে চলুন

প্রেগন্যান্সি পিরিয়ডে এমনিতেই ঘরোয়া স্বাস্থ্যকর খাবারের উপর জোর দেন চিকিৎসকেরা। ফলে ফাস্ট ফুড এড়িয়ে চলেন অনেক হবু মায়েরা। যদি আগে থেকে জানা থাকে, কোন ধরনের খাবারে আপনার অ্যালার্জি, অবশ্যই সেসব এড়িয়ে যাবেন। আর বাইরের খাবারে এমন কোনও উপকরণ থাকতেই পারে, যা অজান্তেই আপনার এবং আপনার শিশুর ক্ষতি করতে পারে। এতে চুলকানির সমস্যা কমতে পারে। 

৬) পরিচ্ছন্ন থাকুন

প্রেগন্যান্সি পিরিয়ডে পরিচ্ছন্ন থাকা জরুরি। কোনও রকম সংক্রমণ যাতে না হয়, সেটা খেয়াল রাখবেন। একই পোশাক প্রতিদিন পরবেন না। অন্তর্বাস প্রতিদিন বদলে ফেলুন। এতেও চুলকানির সমস্যা থেকে দূরে থাকা সম্ভব। 

৭) চিকিৎসকের পরামর্শ

সব শেষে মনে রাখা প্রয়োজন, প্রতিটি প্রেগন্যান্সির ধরন আলাদা। দেহে রক্ত সঞ্চালন বেড়ে যাওয়ায় বেশিরভাগ মহিলারই প্রেগন্যান্সি পিরিয়ডে চুলকানির সমস্যা হয়। বিশেষত পেটে চুলকানির সমস্যা বেশি হয়। শরীরে অনেক হরমোনের পরিবর্তনও হয় এসময়। ফলে কোনও ক্রিম লাগানোর আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। কেন চুলকানি হচ্ছে, তা জেনে নিন স্পষ্ট করে। কোনও ওযুধের প্রভাবে এই সমস্যা হচ্ছে কিনা, জেনে নিন। সর্বোপরি চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া কিছু না করাই ভাল। কারণ এতে জড়িয়ে রয়েছে আপনার এবং আপনার সন্তানের ভবিষ্যত।  

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আমাদের এক্কেবারে নতুন POPxo Zodiac Collection মিস করবেন না যেন! এতে আছে নতুন সব নোটবুক, ফোন কভার এবং কফি মাগ, যেগুলো দারুণ ঝকঝকে তো বটেই, আর একেবারে আপনার কথা ভেবেই তৈরি করা হয়েছে। হুমম...আরও একটা এক্সাইটিং ব্যাপার হল, এখন আপনি পাবেন ২০% বাড়তি ছাড়ও। দেরি কীসের, এখনই POPxo.com/shopzodiac-এ যান আর আপনার এই বছরটা POPup করে ফেলুন!