খিচুড়ি, আলুর দম বা সজনে ফুলের চচ্চড়ি, সরস্বতী পুজো জমে উঠুক সুস্বাদু রেসিপি দিয়ে

খিচুড়ি, আলুর দম বা  সজনে ফুলের চচ্চড়ি, সরস্বতী পুজো জমে উঠুক সুস্বাদু রেসিপি দিয়ে

সে আপনি যা-ই বলুন না কেন, না, না আমি কিচ্ছু শুনব না। ঝগড়া হয়ে যাবে কিন্তু! যতই আপনি বলুন, সরস্বতী পুজো হল বাঙালির ভ্যালেন্টাইনস ডে আর সেই আনন্দে আমরা বসন্ত এসে গেছে বলে চূড়ান্ত আঁতলামো করব, আমি শুনব না। সরস্বতী (saraswati) পুজো (puja) মানেই পরীক্ষার আগে হুমড়ি খেয়ে বইয়ের উপর দড়াম করে পড়ে যাওয়া এবং ভয়ানক ভক্তি দেখিয়ে বীণাপাণির পুজো করা, সেটাও আমি মানব না। সরস্বতী পুজো মানে যে পেট ভরে খিচুড়ি ভোগ, নিরামিষ আলুর দম বা কুলের চাটনি খাওয়া, সেটা ভুলে গেলে চলবে নাকি অ্যাঁ? আমাদের কোনও পুজোই যে পেটপুজো ছাড়া সম্পন্ন হয় না, সেটা ভুলে গেলেন বেমালুম? কী ভাবছেন, সরস্বতী ঠাকুর পড়াশোনায় খুব ভাল বলে খাওয়াদাওয়া করেন না? আমি জানি, আপনি এসব মোটেও ভাবছেন না। এসব উদভুট্টি কথা ভাবতে আপনার বয়েই গেছে। তা এবার মানে-মানে রেসিপির খেরোর খাতা আর পেনসিলটা বের করুন। সরস্বতী স্পেশ্যাল (special) রেসিপি (recipes) বলে কথা, ভাল করে লিখে নিন দেখি। 

আরও পড়ুন: ২০২০ সালের সরস্বতী পুজোর নির্ঘণ্ট, পুজোর দিনক্ষণ, বিধি ও তাৎপর্য, স্তোত্র ও প্রণাম মন্ত্র

স্পেশ্যাল খিচুড়ি ভোগ

Instagram

এটা ছাড়া তো পুজো সম্পন্নই হবে না। তা হলে এটা দিয়েই শুরু করা যাক। প্যান গরম করে তাতে ২০০ গ্রাম মুগের ডাল দিয়ে পাঁচ থেকে ১০ মিনিট নাড়তে থাকুন। এটাকে ড্রাই রোস্ট করে নিতে হবে। ভাজা-ভাজা গন্ধ বেরোলে একটা পাত্রে এই ডাল ঢেলে রাখুন। অন্য কড়াইতে জল গরম করুন। এই জলে ভাজা মুগের ডাল আর একই পরিমাণের গোবিন্দভোগ চাল দিয়ে দিন। চাল আর ডাল ভাল করে মিশিয়ে সেদ্ধ হতে দিন। অন্য পাত্রে ছয় চা চামচ সাদা তেল দিন। তেল গরম হলে, এর মধ্যে দুটো শুকনো লঙ্কা, দুটো তেজপাতা ও এক চা চামচ জিরে দিন। দু' মিনিট এটা নাড়াচাড়া করুন। এর মধ্যে ফুলকপি, গাজর, বিনস, ক্যাপসিকাম, আলু দিন। সব সবজি ১০০ গ্রাম করে দেবেন। সবজি ভাজা-ভাজা হলে মটরশুঁটি আর টোম্যাটো দিন। এর মধ্যে আদা আর কাঁচা লঙ্কার পেস্ট দিয়ে আরও একটু নাড়াচাড়া করুন। এর মধ্যে দুই চা চামচ হলুদ আর জিরে পাউডার দিয়ে নাড়তে থাকুন আর এক চা চামচ নুন দিন। এবার ওই সবজি সেদ্ধ হওয়া চাল ডালের সঙ্গে মিশিয়ে দিন। আন্দাজমতো চিনি দিন। মিনিটদশেক রান্না হোক, নামানোর আগে উপরে খাঁটি ঘি ছড়িয়ে দিন। 

সজনে ফুল পোস্তর নিরামিষ তরকারি

Instagram

খিচুড়ির সঙ্গে চাই একটা নিরামিষ তরকারি। সব সময় আলুর দম কেন খাবেন। তাই একটু অন্য স্বাদের এই রেসিপি আমরা নিয়ে এসেছি। ৩০০ গ্রাম সজনে ফুল, দুটো আলু ডুমো করে কেটে রাখুন। বাকি উপাদানগুলো হল এক চা চামচ চিনি, এক চা চামচ হলুদ, চার চামচ পোস্ত বাটা, দুই চামচ সর্ষের তেল, জিরে গুঁড়ো এক চা চামচ, তেজপাতা একটা, শুকনো লঙ্কা একটা, নুন আন্দাজমতো, সর্ষের তেল দুই চামচ, পাঁচ ফোড়ন এক চা চামচ, কাঁচা লঙ্কা দু'টি আর চিনি এক চা চামচ। তেল গরম হলে তার মধ্যে আলু দিয়ে নুন আর হলুদ দিয়ে নেড়ে নিন। চাইলে কাশ্মীরি রেড চিলি পাউডার দিয়ে দিন। এবার হলুদ আর নুন দিয়ে সজনে ফুল ভেজে নিন হাল্কা করে। এবার আবার তেল গরম করে শুকনো লঙ্কা আর পাঁচ ফোড়ন দিয়ে দিন। তেজপাতাও দেবেন। এবার কাঁচা লঙ্কা, চিনি, তিন চার চামচ পোস্ত বাটা দিন। পোস্ত বাটা আগে তেলে একটু ভেজে নেবেন। টোম্যাটো বাটা দিন। তেল ছেড়ে এলে আলু দিন। জিরে গুঁড়ো দিন। পোস্ত ধোওয়া জল এর মধ্যে দিন স্বাদের জন্য। ঝোল-ঝোল হবে না এই তরকারি। সব শেষে সজনে ফুল দিন। স্বাদ চেখে দেখে নুন কম লাগলে নুন দিয়ে দিন।      

টোপা কুলের চাটনি

Instagram

সরস্বতী পুজোর আগে কুল খেয়ে নিলে মনটা একটু কিন্তু-কিন্তু করে বটে, তবে পুজোর দিন কুলের চাটনি ছাড়া চলে কি? একদম না। তাই শেষ পাতে এই চাটনির রেসিপি দিয়েই আমাদের মহাভোজ শেষ করব আজ। ২৫০ গ্রাম টোপা কুল ধুয়ে পরিষ্কার করে নিন। কুলের খোসাগুলো একটু ছাড়িয়ে নিন, যাতে চাটনির রস ভাল করে ভিতরে ঢুকতে পারে। এবার কড়াইতে এক চামচ সর্ষের তেল দিন। একটু পাঁচ ফোড়ন আর দুটো শুকনো লঙ্কা তেল গরম হলে দিয়ে দিন। এর মধ্যে ধুয়ে রাখা কুলগুলো দিন। এর মধ্যে এক চা চামচ নুন আর এক চামচ হলুদ গুঁড়ো দিন। একটু নেড়ে নিয়ে এর মধ্যে ২০০ গ্রাম চিনি দিন। যদি চান, চিনি না দিয়ে গুড়ও দিতে পারেন। এবার আন্দাজমতো জল দিন। এবার একটু নাড়াচাড়া করুন। এবার ঢাকা দিয়ে কিছুক্ষণ হাল্কা আঁচে রেখে দিন। মিনিটপাঁচেক পর ঢাকনা খুলে দেখবেন, আপনার কুলের চাটনি রেডি। নামানোর আগে মৌরি, মেথি, ধনে, জিরে বেটে একটা মশলা আগে তৈরি করে রাখবেন আর সেটা ছড়িয়ে দেবেন। ব্যস, আপনার সুপার সুস্বাদু কুলের চাটনি রেডি।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আমাদের এক্কেবারে নতুন POPxo Zodiac Collection মিস করবেন না যেন! এতে আছে নতুন সব নোটবুক, ফোন কভার এবং কফি মাগ, যেগুলো দারুণ ঝকঝকে তো বটেই, আর একেবারে আপনার কথা ভেবেই তৈরি করা হয়েছে। হুমম...আরও একটা এক্সাইটিং ব্যাপার হল, এখন আপনি পাবেন ২০% বাড়তি ছাড়ও। দেরি কীসের, এখনই POPxo.com/shopzodiac-এ যান আর আপনার এই বছরটা POPup করে ফেলুন!