নানা ধরনের অ্যাকনে কেন হয় এবং তাদের ঘরোয়া সমাধানই বা কী in bengali | POPxo

জেনে নিন, নানা ধরনের অ্যাকনে বা ব্রণ কেন হয় এবং তাদের ঘরোয়া সমাধানই বা কী

জেনে নিন, নানা ধরনের অ্যাকনে বা ব্রণ কেন হয় এবং তাদের ঘরোয়া সমাধানই বা কী

ত্বকের সমস্যার মধ্যে অ্যাকনের সমস্যা হল অন্যতম একটি না-ছোড় সমস্যা। নানা কারণে অ্যাকনে (acne) হতে পারে। ব্রণ-ফুসকুড়ি খুব সাধারণ এক প্রকার অ্যাকনে। অনেকসময়েই কিছু অ্যাকনেতে ব্যথা হয় না, আবার কিছু প্রকারের অ্যাকনে থাকে যেখানে হাত লাগলেই ব্যথা হয়। নানারকমের ঘরোয়া উপাচারে (home remedies) এই সমস্যামুক্তির চেষ্টা আমি, আপনি সবাই একবার হলেও করেছি। কিন্তু সবরকমের অ্যাকনের ঘরোয়া সমাধান কিন্তু এক রকম হবে না, তার কারণ হল, সব ধরনের অ্যাকনে সৃষ্টি হয় নানা আলাদা আলাদা কারণে (reasons)।

অ্যাকনে কত প্রকার হয়

শাটারস্টক
শাটারস্টক

সাধারণত দু’ধরনের অ্যাকনে (acne) হয়। প্রথমগুলি ছোট ছোট এবং ভেতরে কোনও পুঁজ বা রস থাকে না, যেমন ব্ল্যাকহেডস এবং হোয়াইটহেডস; আর দ্বিতীয় প্রকার অ্যাকনেগুলি আকারে বেশ বড় হয় এবং ভেতরে জলীয় পদার্থের মত রস থাকে, যেমন পপিউলজ, পাসচুলস, সিস্ট ইত্যাদি। এক এক রকমের অ্যাকনের কারণ (reasons) এক এক ধরনের হয় এবং তাদের প্রতিটির-ই ভিন্ন সমাধান। তবে, আমাদের মতে, যে অ্যাকনেগুলিতে হাত লেগে গেলে ব্যথা হয় এবং ভিতরে পুঁজ রয়েছে, সেগুলির ঘরোয়া সমাধান (home remedies) না করে ভাল ডারমেটোলজিস্টের পরামর্শ নেওয়াটাই ভাল।  চলুন দেখে নেওয়া যাক কোন ধরনের অ্যাকনের জন্য কেমন ঘরোয়া সমাধান রয়েছে।

পুঁজবিহীন অ্যাকনে

আগেই বলেছি যে পুঁজবিহীন অ্যাকনে (acne) কোনগুলো, এবার বরং জেনে নেওয়া যাক যে ঠিক কী কী কারণে (reasons) এই সমস্যাগুলো হয়ে থাকে, আর ঘরোয়া কোন পদ্ধতিতে (home remedies) এই সমস্যা দূর করা যেতে পারে।

ব্ল্যাকহেডস

শাটারস্টক
শাটারস্টক

ব্ল্যাকহেডস একটি অত্যন্ত সাধারণ সমস্যা যা নারী-পুরুষ উভয়েরই হয়ে থাকে। বেশিরভাগ সময়েই নাকের উপরিভাগে বা পাশে এবং চিবুকের কাছে ব্ল্যাকহেডস দেখা যায়। ছোট্ট ছোট্ট কালো রঙের ফুটকির মত দেখতে হয় এই ব্ল্যাকহেডস।

কারণ – নিয়মিত ত্বক পরিষ্কার না করলে, ত্বকের লোমকূপের ভিতরে ময়লা জমে গিয়ে সাধারণত ব্ল্যাকহেডস তৈরি হয়। আবার অনেকসময়ে যাঁদের ত্বক তৈলাক্ত, তাঁদেরও ব্ল্যাকহেডস দেখা যায় কারণ অতিরিক্ত তেল জমে গিয়ে লোমকূপ বন্ধ হয়ে যায় এবং ময়লা বেরতে পারে না।

ঘরোয়া সমাধান – নিয়মিত স্টিম নিতে পারেন, প্রতিদিন বাইরে থেকে বাড়ি ফেরার পর ভাল করে মুখ ধুতে হবে, সপ্তাহে একবার করে ত্বক এক্সফোলিয়েট করাতে পারেন।

হোয়াইটহেডস

ঠিক ব্ল্যাকহেডস-এর মতোই হয় হোয়াইটহেডস। অতিরিক্ত তৈলাক্ত ত্বকেই এই ধরনের অ্যাকনের (acne) উপদ্রব বেশি দেখা যায়।

কারণ (reasons) – যাঁদের ত্বক খুব বেশি তৈলাক্ত, তাদের তৈলগ্রন্থি থেকে সারাক্ষণ নিঃসৃত হওয়া তেল জমে যায় লোমকূপের ভিতরে। এছাড়া বাইরের দূষণ, ধুলো এবং ধোঁয়াও জমতে শুরু করে। নিয়মিত ত্বক পরিষ্কার না করলে এবং ত্বকের যত্ন না নিলে এই ময়লাগুলোই জমে জমে হোয়াইটহেডস তৈরি হয়।

ঘরোয়া সমাধান – সারা দিনে অন্তত তিন থেকে চার বার নিজের ত্বকের উপযুক্ত ফেসওয়াশ দিয়ে ত্বক পরিষ্কার করুন। এছাড়াও এক চা চামচ বেকিং সোডার সঙ্গে সামান্য জল মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন এবং যেখানে হোয়াইটহেডস রয়েছে সেখানে লাগিয়ে নিন। মিনিট দশেক পর উষ্ণ জলে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে তিনবার এই ঘরোয়া টোটকা (home remedies) ট্রাই করুন।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এসে গেল #POPxoeauty – POPxo-র স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাক্কায়