সব দিক যাচাই করে সম্পর্কের কথা সোশ্যাল মিডিয়ায় পাবলিক করুন। in bengali | POPxo

জেনে নিন, সোশ্যাল মিডিয়ায় ঠিক কখন নিজেদের রিলেশনশিপ স্টেটাস শেয়ার করা উচিত?

জেনে নিন, সোশ্যাল মিডিয়ায় ঠিক কখন নিজেদের রিলেশনশিপ স্টেটাস শেয়ার করা উচিত?

মিলেনিয়ালদের ধৈর্য বড় কম। একটু চোখাচোখি হল কী হল না, ঝপ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ইমোশনাল পোস্ট ছেড়ে দেয়। আর একবার সম্পর্ক শুরু হয়ে গেলে তো কথাই নেই! একের পর এক ছবিতে ইনস্টাগ্রাম-ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ভরে টইটম্বুর। কিন্তু প্রশ্ন হল, সম্পর্কের প্রথম ধাপেই এমন ঢাকঢোল পিটিয়ে লোক জড়ো করা করা কি আদৌ উচিত? বলতেই পারেন, ভুল তো কিছুই করছি না, তা হলে লুকোচুরির প্রয়োজন কি? কোনও ভুল করছেন না ঠিকই! তবে বেশ কিছু উটকো ঝামেলার রাস্তা যে চওড়া করছেন, সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই! জানবেন, যত লোক, তত মত। লোক জানাজানি হলে হাজার লোকের কাছ থেকে হাজার রকমের মতামত শুনতে হবে। তখন কিন্তু পাগল-পাগল লাগবেই। তা ছাড়া এত জনের যুক্তি শুনে মাথা-মন গুলিয়ে গিয়ে পার্টনারের সঙ্গে ঝগড়া-অশান্তিও লাগতে পারে! এবার বলুন, এমন বাড়তি অশান্তি নিতে প্রস্তুত তো? উত্তর যদি 'না' হয়, তা হলে এই টিপসগুলো মাথায় রাখুন।

সম্পর্কটা একটু জমতে দিন, তবে না লোককে জানাবেন

সম্পর্ক অফিশিয়াল করার আগে ভেবে-চিন্তে সিদ্ধান্ত নিন
Pixabay

শুরুর মাসদু'য়েকের মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেদের ঘনিষ্ঠ ছবি দেওয়া চলবে না। আসলে এই সময় ভালবাসার (relationship) ভিতটা খুব নরম হয়। একে অপরের মধ্যে সেভাবে বিশ্বাসও তৈরি হয় না। তাই তো একটু চাপ পড়লেই ভেঙে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। এই কারণেই তো লোক জানাজানির প্রয়োজন নেই। বরং এই সময়ে একটু সাবধান হওয়াটাই বুদ্ধিমানের কাজ। আর কী করণীয়? প্রথম-প্রথম নিজেদের চেনার চেষ্টা করাটাই আসল কাজ। প্রথম দেখাতেই প্রেমে পড়ে যাওয়াটা গর্বের কথা নয়। বরং সেই সম্পর্ককে বছরের পর বছর টিকিয়ে রাখাটাই আসল কাজ। আর তার জন্য বিশ্বাসের ভিতটা শক্ত করাটা একান্ত প্রয়োজন। এই কারণেই সুযোগ পেলেই একে অপরের সঙ্গে সময় কাটানো উচিত। জীবনের ছোটখাটো ঘটনা, দুঃখ-কষ্ট ভাগাভাগি করে নেওয়া উচিত। এমন চেষ্টা চালালেই তো সম্পর্ক তার গভীরতা খুঁজে পায়। যখন বুঝবেন, আপনাদের সম্পর্কের সেই নড়বড়ে সময়টা কাটিয়ে উঠতে পেরেছেন, তখন নিজেদের গল্প social media official করতে দেরি করবেন না যেন!

ভিড়ের অংশ হলেই ঠকতে হবে

চুপ থাকাটাই বুদ্ধিমানের কাজ
Pixabay

ভালবাসা কোনও কম্পিটিশন নয় যে তাতে জিততেই হবে। তাই বন্ধু-বান্ধবরা তাঁদের সম্পর্কের কথা ফলাও করে সোশ্যাল মিডিয়ায় দিচ্ছে বলেই আপনাকেও তাই করতে হবে, তেমন কোনও কথা নেই! মনে রাখবেন, প্রেমের সম্পর্ক খুবই স্পর্শকাতর হয়। তাই ভালবাসাকে আগলে রাখাটা আপনার প্রথম কর্তব্য। বেশি চিৎকার-চেঁচামেচি করলেই বিপদ! এটা ঠিক যে অনেকের দেখাদেখি নিজের সম্পর্কের কথাও লোককে জানাতে ইচ্ছে করে। কিন্তু এটাও মনে রাখতে হবে যে, যাঁরা আপনাদের বিষয়ে জানতে চলেছেন, তাঁদের মধ্যে বেশিরভাগই আপনাদের ভাল চায় না। তাই মাথা ঠান্ডা করে সিদ্ধান্ত নিন। ভিড়ের অংশ হয়ে কিন্তু কেউ কখনও বাজি জিততে পারেনি। তাই অন্যের দেখে কাজ করবেন না। তা হলে কী করণীয়? আপনাদের সম্পর্কের কথা বাড়িতে জানানোর পরে সব যখন ঠিকঠাক হয়ে যাবে, তখন মাঝেমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেদের ছবি দিতেই পারেন। কিন্তু তাই বলে ভুরি-ভুরি স্টেটাস আপডেট দেওয়া চলবে না!

একে অন্যের মতামত নিতে ভুলবেন না!

একে অপরের মতামত জরুরি
Pixabay

নিজেদের সম্পর্ক সংক্রান্ত যে-কোনও সিদ্ধান্ত দুই মাথা এক করে নেবেন। নিজের মতো করে সিদ্ধান্ত নিলে কিন্তু মুশকিল! ভুলে যাবেন না, দু'জনে মিলে সম্পর্ক তৈরি হয়। তাই এই নিয়ে যে-কোনও সিদ্ধান্তই দু'জনে মিলে নেওয়া উচিত। বিশেষ করে আপনাদের সম্পর্কের কথা সমাজকে জানানোর আগে এই নিয়ে একবার আলোচনা করে নেওয়া উচিত। দু'জনেরই যদি মত থাকে, তা হলে ছবি দিন না, তাতে কোনও ক্ষতি নেই! কিন্তু একমত না হলে নৈব নৈব চ!

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আমাদের এক্কেবারে নতুন POPxo Zodiac Collection মিস করবেন না যেন! এতে আছে নতুন সব নোটবুক, ফোন কভার এবং কফি মাগ, যেগুলো দারুণ ঝকঝকে তো বটেই, আর একেবারে আপনার কথা ভেবেই তৈরি করা হয়েছে। হুমম...আরও একটা এক্সাইটিং ব্যাপার হল, এখন আপনি পাবেন ২০% বাড়তি ছাড়ও। দেরি কীসের, এখনই POPxo.com/shopzodiac-এ যান আর আপনার এই বছরটা POPup করে ফেলুন!