পরিবারের সঙ্গে নিজেও বিয়ের খুঁটিনাটি সামলেছেন? শেষ মুহূর্তে এই বিষয়গুলির দিকে নজর রাখুন

পরিবারের সঙ্গে নিজেও বিয়ের খুঁটিনাটি সামলেছেন? শেষ মুহূর্তে এই বিষয়গুলির দিকে নজর রাখুন

আজকাল দিন বদলেছে। এখন আর কেউ শুধুমাত্র বাবা-মায়ের কাঁধে বিয়ের দায়িত্ব ছেড়ে ঝাড়া হাত-পা হয়ে বসে থাকেন না। তাছাড়া দায়িত্ব এড়িয়ে যাবেনই বা কেন! এখন কমবেশি সব মেয়েই তো চাকরি করেন। তাঁরা স্বাবলম্বী, তা হলে অন্যের উপর ভরসা করবেনই বা কেন বলুন তো! তাই তো সিংহভাগ ক্ষেত্রেই বিয়ের শপিং থেকে ক্যাটারার বুকিং, ফোটোগ্রাফারের সঙ্গে দরাদরি করা থেকে ডেকোরেটর ঠিক করা, বিয়ের খুঁটিনাটি অনেক দায়িত্বই মেয়েরা (Bride) সামলে থাকেন। আপনিও কি তাঁদেরই একজন? তা হলে যে গত কয়েক মাসে বেশ ঝক্কি সামলেছেন, তাতে কোনও সন্দেহ নেই! কিন্তু এই যে এত তোড়জোর করলেন, তা যাতে শেষ মুহূর্তে এসে বানচাল হয়ে না যায়, তা তো সুনিশ্চিত করতে হবে। তাই বিয়ের আগের দিন এই বিষয়গুলি নজরে রাখতে ভুলবেন না!

যাঁদের দায়িত্ব দিয়েছেন, তাঁদের সঙ্গে একবার কথা বলে নিন

pixabay

বিয়ের আগের দিন সকালে ক্যাটারার, ডেকোরেটর এবং ফোটোগ্রাফার বা যে-যে লোককে আপনি নিজে ঠিক করেছেন, তাঁদের সঙ্গে শেষ মুহূর্তের আলোচনা সেরে নেওয়াটা জরুরি। আপনি যেভাবে বলেছেন, সেই মতো কাজ এগোচ্ছে কিনা, তা বুঝে নিন। কারণ, এদিন সন্ধেবেলা থেকে আপনি আর কোনও দিকে নজর দিতে পারবেন না। এর পর থেকে কনে হিসেবে আপনি ব্যস্ত থাকবেন। তখন তো আর আপনার পক্ষে সব আয়োজন তদারকি করা সম্ভব নয়। তাই পরিবারের সদস্যদের মধ্যে কে, কোন দায়িত্বটা সামলাবেন, তা আগে থেকে ঠিক করে নিয়ে তাঁদের ফোন নম্বরটা ভেন্ডারদের দিয়ে রাখতে ভুলবেন না! এর ফলে বিয়ের দিন কোনও প্রয়োজন পড়লে তাঁদের পক্ষে উক্ত ব্যক্তিদের সঙ্গে যোগাযোগ করাটা সহজ হয়ে যাবে।

যাঁদের যা টাকা দেওয়ার, তা আগেই দিয়ে দিন

pixabay

বিয়ের আগে থাকতেই ভেন্ডারদের সঙ্গে এই নিয়ে আলোচনা সেরে নেবেন। তাঁরা যদি বিয়ের দিনই পুরো টাকা নিতে চায়, তা হলে বিয়ের আগের রাতে প্রয়োজন মতো টাকা গুছিয়ে রাখুন। বিয়ের দিন সকালে যাকে যা টাকা দেওয়ার তা মিটিয়ে দিন। তাতে অনুষ্ঠান শেষে ক্লান্ত শরীরে আপনাকে আর এদিক-সেদিক ছুটতে হবে না। মনে রাখবেন, বিয়ের দিনের ধকল সামলানোর পরে টাকা-পয়সার হিসেব করতে কিন্তু মন চাইবে না। তাই এই দিকটা আগে থাকতেই একটু নজরে রাখবেন। তা ছাড়া বিয়ের সময় হাতে একটু টাকা আলাদা করে রাখতে ভুলবেন না। হঠাৎ করে যদি কিছুর প্রয়োজন পড়ে, তা হলে আপনার সুবিধেই হবে। আর যদি নিজের কাছে টাকা রাখতে না চান, তা হলে হাজারপাঁচেক টাকা বাবা, নয়তো মায়ের কাছে রেখে দেবেন এবং সকলকে বলে দেবেন, বিয়ের সময় টাকার প্রয়োজন পড়লে তাঁরা যেন আপনার বাবা-মায়ের সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

আরও পড়ুন: গায়ে হলুদ থেকে বিয়ে: হবু কনের জন্য বাছাই করা ব্লাউজের ডিজাইন

লাগেজ গুছিয়ে নেওয়াটাও জরুরি

pixabay

নিজের বাড়িতে বিয়ে হলে কোনও চিন্তা নেই। কিন্তু যদি ভাড়া বাড়িতে বিয়ের আয়োজন করা হয়ে থাকে, তা হলে আগে থাকতেই বিয়ের বেনারসি, গয়না, মেকআপের জিনিসপত্র, জুতো এবং অবশ্যই বরের ধুতি-পাঞ্জাবি একটা সুটকেসে গুছিয়ে রাখবেন। বিয়ের দিন আপনার পরিবারের কেউ যদি বরকে হার বা অন্য কোনও উপহার দিয়ে বরণ করতে চান, তা হলে সেই উপহারটাও সুটকেসে রেখে দেবেন। তাতে করে বাড়িতে কিছু ফেলে যাওয়ার আশঙ্কা আর থাকবে না। বিয়ের (Wedding) পরের দিন তো আপনাকে শ্বশুরবাড়ি যেতে হবে। তাই সেই প্যাকিংটাও আগে থাকতে সেরে ফেলবেন। এই কাজটা যদি শেষ মুহূর্তের জন্য ফেলে রাখেন, তা হলে কিন্তু বিপদ! মনে রাখবেন, ওখানে কিন্তু আপনি চাইলেই হাতের কাছে সব কিছু পেয়ে যাবেন না। তাই হাতে সময় থাকতে-থাকতে নিজের প্রয়োজনীয় জিনিসগুলি গুছিয়ে নেওয়াটাই বুদ্ধিমানের কাজ।

আরও পড়ুন: বিয়ের পর শ্বশুরবাড়ি যাওয়ার জন্য কীভাবে নিজের সুটকেস গোছাবেন হবু কনে

আরও কিছু বিষয় নজরে রখুন

pexels

বিয়ের দিন সকালে দশকর্মার জিনিসপত্রগুলি ঠিক মতো কেনা হয়েছে কিনা, তা একবার লিস্ট মিলিয়ে দেখে নিন। কিছু যদি বাদ যায়, তা হলে তা আনিয়ে নেওয়ার সময় পাবেন। বিয়ের সময় যে-যে বাসনপত্র লাগবে, তাও একবার মিলিয়ে দেখে নেওয়া উচিত। প্রয়োজন হলে সেগুলি একটা ব্যাগে ভরে আগে থাকতেই ভাড়া বাড়িতে রেখে আসতে পারেন। আপনি কি গাড়ি ভাড়া নিয়েছেন? তা হলে একবার ট্রাভেল এজেন্সির সঙ্গে কথা বলে জেনে নিন কোন গাড়ি কখন আসবে। বিশেষ করে বরকে আনতে যে গাড়িটা যাবে, সেটা যেন ঠিক সময়ে সাজিয়ে নিয়ে শ্বশুরবাড়ি পৌঁছে যায়, তা সুনিশ্চিত করার দায়িত্ব আপনার। প্রয়োজনে প্রতিটা গাড়ির ড্রাইভারের ফোন নম্বর লিখে নিয়ে বাড়ির বড় কাউকে দিয়ে দিতে পারেন। আর অনুরোধ করবেন তিনি যেন সময় মতো ফোন করে দেখে নেন, গাড়িগুলি ঠিক-ঠিক জায়গায় পৌঁছেছে কিনা। বিয়ের দিন সকালে একবার রেজিস্টারের সঙ্গে কথা বলে নেবেন। তাঁকে যে সময় আসতে বলা হয়েছে, তিনি সেই সময়ে আসতে পারছেন কিনা এবং গাড়ি পাঠাতে হবে কিনা, তা আরও একবার জেনে নেবেন।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আমাদের এক্কেবারে নতুন POPxo Zodiac Collection মিস করবেন না যেন! এতে আছে নতুন সব নোটবুক, ফোন কভার এবং কফি মাগ, যেগুলো দারুণ ঝকঝকে তো বটেই, আর একেবারে আপনার কথা ভেবেই তৈরি করা হয়েছে। হুমম...আরও একটা এক্সাইটিং ব্যাপার হল, এখন আপনি পাবেন ২০% বাড়তি ছাড়ও। দেরি কীসের, এখনই POPxo.com/shopzodiac-এ যান আর আপনার এই বছরটা POPup করে ফেলুন!