ফেস ওয়াশ ব্যবহার করেন তো! তা কোন ধরনের ফেস ওয়াশ আপনার ত্বকের জন্য আদর্শ তা জানেন কি?

ফেস ওয়াশ ব্যবহার করেন তো! তা কোন ধরনের ফেস ওয়াশ আপনার ত্বকের জন্য আদর্শ তা জানেন কি?

বাড়ির বাইরে বেরনো মাত্রাই ধুলোবালি আর দূষণের কারণে ত্বকের বারোটা বাজতে সময় লাগে না। তাই তো দিনের শেষে নিয়ম করে ফেস ওয়াশ জেল দিয়ে মুখ পরিষ্কার করার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা। তাতে করে ত্বকের ভিতরে জমে থাকা ময়লা এবং ক্ষতিকর উপাদানগুলি ধুয়ে যাওয়ার সুযোগ পায়, যে কারণে 'সিবাম' বা প্রাকৃতিক তেল সহজেই ত্বকের উপরিঅংশে পৌঁছে গিয়ে আর্দ্রতা যেমন বজায় রাখে, তেমনই ব্রণ এবং অন্যান্য ত্বকের রোগের খপ্পরে পড়ার আশঙ্কাও আর থাকে না। তাই নিয়ম করে ফেস ওয়াশ জেলের ব্যবহার যে আদতে সুঅভ্য়াস, তাতে কোনও সন্দেহ নেই। কিন্তু প্রশ্ন হল, কেমন ধরনের ফেস ওয়াশ ব্যবহার করা উচিত সে সম্পর্কে জানা আছে কি? আমাদের প্রত্যেকেরই ত্বকের ধরন আলাদা আলাদা হয়। সেই মতো ক্লিনজার ব্যবহার না করলে তেমন কোনও উপকারই মেলে না। উল্টে ত্বকের (skin) ক্ষতি হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই তো এমন ধরনের প্রসাধনী কেনার আগে এই বিষয়গুলি নজরে রাখা জরুরি।

১. ত্বকের ধরন বুঝে কিনুন

pixabay

প্রথমেই নিজের ত্বকের ধরন সম্পর্কে একটা ধারণা করে নিতে হবে। বুঝে নিতে হবে আপনার ত্বক তৈলাক্ত নাকি শুষ্ক। এর আদৌ কোনও প্রয়োজন আছে কি? আলবাত রয়েছে! ত্বকের চরিত্র বুঝে cleanser ব্যবহার না করলে ত্বকের আর্দ্রতা কমে গিয়ে নানা ধরনের ত্বকের রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা যেমন থাকে, তেমনই সৌন্দর্য কমে যাওয়ার মতো ঘটনাও ঘটে। তাই এমন ধরনের প্রসাধনী কেনার আগে সব দিকে বুঝে-শুনে নেওয়াই বুদ্ধিমানের কাজ। আপনার ত্বক যদি এমনিতেই খুব শুষ্ক হয়, তাহলে এমন ফেস ওয়াশ জেল কিনবেন যাতে ময়েশ্চারাইজার রয়েছে। অন্যদিকে তৈলাক্ত ত্বকের সমস্যায় যাঁরা ভুগছেন, তাঁদের এমন ধরনের ক্লিনজার কেনা উচিত, যাতে ত্বকে জমে থাকা অতিরিক্ত তেল ধুয়ে যায়। combination skin-এর ক্ষেত্রে প্রায় যে কোনও ধরনের ফেস ওয়াশ জেলই ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে প্রয়োজন মনে করলে একবার ডার্মাটোলজিস্টের পরামর্শ নিতে পারেন। এখন প্রশ্ন হল, কোন ক্লিনজার কেমন, তা বুঝবেন কীভাবে? এক্ষেত্রে কন্টেনারের গায়ে যে তথ্যগুলি দেওয়া রয়েছে, তা একবার পড়ে নিন। প্রয়োজনে দোকানীর থেকেও জেনে নিতে পারেন। কিন্তু ভুলেও এবার থেকে অন্ধের মতো ক্লিনজার কিনবেন না যেন!

২. ক্লিনজারের ধরন সম্পর্কেও জ্ঞান থাকা জরুরি

pixabay

আজকাল বাজারে অনেক ধরনের ফেস ওয়াশ বিক্রি হয়। যার মধ্যে কোনওটা ক্রিমি টেক্সচারের, তো কোনওটা আবার জেল। সব ধরনের ক্লিনজার কিন্তু সবার ব্যবহারের জন্য নয়। যাঁদের ড্রাই স্কিন, তাঁরা ক্রিমি টেক্সচারের ক্লিনজার ব্যবহার করলে কোনও ক্ষতি নেই। অন্যদিকে জেল এবং ফোমি ক্লিনজার তৈলাক্ত ত্বকের জন্য আদর্শ। তাই বুঝতেই পারছেন, ফেস ওয়াশ কেনার আগে ত্বকের ধরন সম্পর্কে ধরণা না থাকলে কিন্তু বিপদ!

আরও পড়ুন: ত্বক তুলতুলে রাখতে ঘরেই তৈরি করে ফেলুন চকোলেট ফেসপ্যাক

৩. অ্যালকালাইন রয়েছে এমন প্রসাধনী ব্যবহার করা উচিত নয়

pixabay

যে সব ক্লিনজারে এই উপাদানটি রয়েছে, সেগুলি ভুলেও কিনবেন না। অ্যালকালাইন নিমেষে ত্বকের তৈলাক্ত ভাব দূর করে ঠিকই। কিন্তু একই সঙ্গে ত্বককে খুব শুষ্ক করে দেয়। ফলে ত্বকের সৌন্দর্য কমতে সময় লাগে না। তাছাড়া দীর্ঘদিন ধরে এমন ধরনের ক্লিনজার ব্যবহার করলে নাকি ত্বকের ক্ষতি হওয়ারও আশঙ্কা থাকে। সাই সাবধান!

৪. exfoliating উপাদান রয়েছে এমন ক্লিনজার কেনা উচিত

pexels

এমন ক্লিনজার কিনুন, যা ত্বকের উপরে জমে থাকা মৃত কোষের আবরণকে সরিয়ে দিয়ে ত্বকের সৌন্দর্য বাড়াবে। তাবে নিয়মিত এমন ধরনের ক্লিনজার ব্যবহার করবেন না যেন! তাতে করে ত্বকের উপকারের থেকে ক্ষতি হবে বেশি। তাহলে কী করণীয়? সাধারণ ফেস ওয়াশ জেলের ব্যবহার চালিয়ে যান। আর সপ্তাহে বার দুয়েকের এই বিশেষ ধরনের ক্লিনজারটি দিয়ে মুখে পরিষ্কার করুন। দেখবেন, তাতেই উফকার মিলবে।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আমাদের এক্কেবারে নতুন POPxo Zodiac Collection মিস করবেন না যেন! এতে আছে নতুন সব নোটবুক, ফোন কভার এবং কফি মাগ, যেগুলো দারুণ ঝকঝকে তো বটেই, আর একেবারে আপনার কথা ভেবেই তৈরি করা হয়েছে। হুমম...আরও একটা এক্সাইটিং ব্যাপার হল, এখন আপনি পাবেন ২০% বাড়তি ছাড়ও। দেরি কীসের, এখনই POPxo.com/shopzodiac-এ যান আর আপনার এই বছরটা POPup করে ফেলুন!