আয়কর রিটার্ন ফাইল করার আগে এই বিষয়গুলি মাথায় রাখুন

আয়কর রিটার্ন ফাইল করার আগে এই বিষয়গুলি মাথায় রাখুন

মার্চ মাস পড়ে গেল, আর কিছুদিনের মধ্যেই আমাদের মধ্যে একটা হইচই পড়ে যাবে। আমাদের মানে যারা চাকরিজীবী এবং ব্যবসায়ী, তাঁদের কথা বলছি। আচ্ছা, ভাবছেন ঠিক কী কারণে হইচই পড়ে যাবে! বলছি বলছি। আরে বাবা, দেশে থাকছেন, খাচ্ছেন, বসবাস করছেন, আর আয়কর দেবেন না? আয়কর রিটার্ন (income tax return) ফাইল (file) করতে হবে তো কিছুদিন পর। ভাবছেন যে অনেক সময় আছে, কিন্তু দেখতে দেখতে কিন্তু আয়কর রিটার্ন (income tax return) ফাইল (file) জমা দেওয়ার শেষ তারিখ এসে যাবে, আর আপনি প্যানিক করে ভুলভাল করবেন। আমরা কী করে তা হতে দিই বলুন! যাতে ঠান্ডা মাথায়, সঠিকভাবে আপনিও আপনার আয়কর রিটার্ন ফাইল জমা দিতে পারেন, সে জন্যই আজ কয়েকটি ছোট্ট ছোট্ট অথচ ভীষণ জরুরি টিপস নিয়ে চলে এসেছি।

আয়কর রিটার্ন জমা দেওয়ার আগে যে ভুলগুলো ভুলেও করবেন না

১। ইনকাম ট্যাক্স রিটার্ন (income tax return) ফাইল (file) করতে গেলে প্রথমেই যে কাজটি করতে হয় তা হল একটি ফর্ম (form) ফিল আপ করা। সবার জন্য কিন্তু এক ফর্ম থাকে না। এক এক জন আয়কর প্রদানকারীর এক এক রকমের ফর্ম (form) হয়। আপনার যেমন আয় অথবা যে সোর্স থেকে আয় অর্থাৎ আপনি চাকরি করেন নাকি ব্যবসা করেন – এই বিষয়গুলোর উপরে নির্ভর করে আয়কর রিটার্ন (income tax return) ফাইল (file) করার ফর্ম (form)। আপনার জন্য যে ফর্মটি সঠিক, সেই ফর্মটিই ফিল আপ করুন। যদি বুঝতে না পারেন, সেক্ষেত্রে কোনও পারদর্শীর সাহায্য নিন। এছাড়াও বিষদে জানতে ভারত সরকারের ওয়েবসাইট দেখতে পারেন। 

২। আপনি কোন বছরের জন্য ইনকাম ট্যাক্স ফাইল করছেন তা জানা খুব জরুরি। আমাদের ক্যালেন্ডার ইয়ার শুরু হয় জানুয়ারি থেকে এবং শেষ হয় ডিসেম্বরে, কিন্তু ফিনানশিয়াল ইয়ার শুরু হয় এপ্রিল থেকে এবং শেষ হয় মার্চে। সুতরাং আপনি যদি এবছর অর্থাৎ ২০২০ তে আয়কর রিটার্নের (income tax return) ফাইল (file) জমা দেন, আসলে আপনি ট্যাক্স জমা দিচ্ছেন গত বছরের।

আয়কর জমা দেওয়ার আগে সব হিসেব ভাল করে কষে নিন (ছবি সৌজন্য - শাটারস্টক)

৩। যখন আয়কর রিটার্নের (income tax return) ফর্ম (form) ফিল আপ করবেন তখন খুব ভাল করে পড়ে তবেই লিখবেন। সব তথ্য সঠিকভাবে লিখতে ভুলবেন না। আপনার নাম (সমস্ত ডকুমেন্টে যে বানান রয়েছে সেই বানানই লিখুন), ঠিকানা (যদি দুটি ঠিকানা থাকে অর্থাৎ আপনার বর্তমান ঠিকানা এবং আপনার স্থায়ী ঠিকানা যদি আলাদা হয় তাহলে দুটি ঠিকানাই উল্লেখ করুন), ফোন নম্বর, আধার কার্ড নম্বর, প্যান কার্ড নম্বর, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নম্বর – ইত্যাদি প্রতিটি তথ্যই সঠিক লিখবেন।

৪। আপনি চাকরি করুন অথবা ব্যবসা, শুধুমাত্র সেইটুকু আয়ের বিষয়েই তথ্য দেবেন এমন যেন না হয়। যদি আপনি কোথাও বিনিয়োগ করেন এবং সেখান থেকে আপনি সূদ পান, সেই টাকাও কিন্তু আপনার আয়ের মধ্যে পড়ে। অথবা যদি আপনার বাড়ি বা দোকান থাকে এবং সেটি আপনি ভাড়া দেন এবং সেখান থেকে একটা টাকা প্রতি মাসে আপনার ব্যাঙ্কে জমা হয়, তাও আপনার আয়ের মধ্যে পড়ে। সুতরাং সমস্ত আয়ের টাকার অঙ্কই উল্লেখ করবেন। তা না হলে পরে সমস্যায় পড়তে পারেন।

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

২০২০ শুরু করুন আমাদের দারুণ দারুণ প্ল্যানার আর স্টেটমেন্ট সোয়েটশার্ট দিয়ে। এগুলো সবকটাই আপনারই মতো একশ শতাংশ মজার এবং অসাধারণ! ওহ হ্যাঁ, শুধুমাত্র আপনার জন্য রয়েছে ২০ শতাংশ ছাড়ের ব্যবস্থাও। দেরি কিসের আর, এখনই POPxo.com/shop থেকে কেনাকাটা সেরে ফেলুন আর নিজেকে আরেকটু পপ আপ করে ফেলুন!