মাইগ্রেন সারানো হোক বা সম্পর্ক দৃঢ় করে তোলা - মর্নিং সেক্সের উপকারিতা অসীম!

মাইগ্রেন সারানো হোক বা সম্পর্ক দৃঢ় করে তোলা - মর্নিং সেক্সের উপকারিতা অসীম!

অরুণিমা ও রজতের বিয়ে হয়েছে কয়েক মাস হল। সোশ্যাল মিডিয়ায় ওঁদের ছবি দেখে যদিও খুবই সুখী দম্পতি বলে মনে হয়, তবে কিছুদিন আগেই অরুণিমার সঙ্গে কথা বলে জানতে পারি যে বাইরে যতটা সুখী বলে মনে হয়, ভিতরে কিন্তু ব্যাপারটা এক্কেবারে উল্টো। জিজ্ঞেস করতে বলল, “কথা বলারই সময় নেই একে অন্যের সঙ্গে”। শুনে আমি বেশ অবাক হলেও পরে ভেবে দেখলাম কথাটা ও কিছু ভুল বলেনি।

এখন এমন এক অদ্ভুত সময়ে আমরা বাস করছি যেখানে দু’দন্ড দাঁড়ানোর সময় নেই কারও। ছুটে চলেছি নিজের নিজের লক্ষ্যের দিকে, আবার কেউ কেউ লক্ষ্যহীনভাবেই ছুটে চলেছেন। এর ফলে যে আমাদের সম্পর্কগুলো মিইয়ে যাচ্ছে, সে ব্যাপারে কি কোনওদিন ভেবে দেখেছেন? স্বামি-স্ত্রীয়ের মধ্যে যখন কথা বলার সময় থাকে না, তখন তাঁদের সেক্স লাইফের যে কতটা খারাপ অবস্থা, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। যে-কোনও রোম্যান্টিক সম্পর্কে ভালবাসা, বিশ্বাস ইত্যাদির সঙ্গে কিন্তু যৌন সুখও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আপনি বলবেন যে সময়টা কোথায়? আর সময় থাকলেও সারাদিনের খাটাখাটনির পর ক্লান্ত শরীরে আর বিছানায় গিয়ে ঘুম ছাড়া অন্য কিছু মাথায়ও আসে না! মেনে নিলাম আপনার কথা। কিন্তু সকালবেলা তো মিলিত হওয়ার সুযোগ আছে। সেই সময়টিকে কাজে লাগান! আর মর্নিং সেক্সের (morning sex) কিন্তু অনেকগুলো অন্য উপকারিতাও রয়েছে।

ঠিক কী কী কারণে ‘মর্নিং সেক্স’ বেস্ট?

১। আপনি যদি ভাবেন সক্কাল সক্কাল কে শারীরিক মিলনে লিপ্ত হয়, তাহলে বলতে বাধ্য হচ্ছি, আপনার ধারণাটি সম্পূর্ণ ভুল। বিশেষজ্ঞদের মতে, মর্নিং সেক্সের উপকারিতা অনেক এবং  ঘুম থেকে উঠেই যদি আপনি আপনার সঙ্গীর সঙ্গে মিলিত হন তাহলে তা ইনস্ট্যান্ট মুড বুস্টারের কাজ করে। অর্থাৎ আপনার মন মেজাজ বেশ ফুরফুরে হয়ে ওঠে এবং সারাদিন কাজের একটা এনার্জি পাওয়া যায়।

২। আচ্ছা একবার ভাবুন তো, কপালে আলতো চুমুতে যদি আপনার ঘুম ভাঙে আর আপনি চোখ খুলে দেখেন আপনার সঙ্গী প্রেমপূর্ণ দৃষ্টিতে আপনার দিকে তাকিয়ে আছেন, আপনার মনটা এমনিতেই কি ভাল হয়ে যাবে না! বিশেষজ্ঞদের মতে, যে সব কাপলরা ঘুম থেকে উঠেই একে অন্যের আলিঙ্গনে থাকেন এবং মিলিত হন, অন্যদের তুলনায় তাঁদের সম্পর্ক অনেক বেশি মজবুত হয়।

৩। আচ্ছা, আপনার বা আপনার সঙ্গীর কি মাইগ্রেনের সমস্যা আছে? তাহলে সকালে একবার সঙ্গীকে চুমু খান এবং মিলিত হন। না, আমি একবারও একথা বলছি না, বলছেন বিশেষজ্ঞরা। সেক্স ন্যাচারাল পেইনকিলারের কাজ করে, সুতরাং সকালের সেক্স আপনার মুডই ঠিক করবে না, মাইগ্রেন বা শরীরের অন্য কোথাও ব্যথা হলেও তা কমাতে সাহায্য করবে।

৪। অনেক কাপল একটা অভিযোগ করেই থাকেন যে তাঁদের সেক্স লাইফ খুব খারাপ! ফলস্বরূপ অনেকেরই সম্পর্কে একটা তিক্ততা চলে আসে। কারণ হিসেবে তারা জানান যে সারাদিন বাড়ির কাজ বা অফিসের কাজ বা দুটোই সামলে রাতে মিলিত হওয়ার আগ্রহ বা ইচ্ছে কোনওটাই থাকে না। তাঁদের ক্ষেত্রে কিন্তু মর্নিং সেক্স বেশ লাভদায়ক হতে পারে, কারণ ঘুম থেকে উঠেই ক্লান্ত হওয়ার কোনও প্রশ্নই থাকে না।

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন।