এতদিন এই সব প্রয়োজন ছাড়া খরচ করেছেন, লকডাউন পরিস্থিতিতে বুঝলেন কি?

এতদিন এই সব প্রয়োজন ছাড়া খরচ করেছেন, লকডাউন পরিস্থিতিতে বুঝলেন কি?

করোনা (coronavirus) আতঙ্কে লকডাউন (lockdown) চলছে ভারতে। অন্য সকলের মতোই আপনিও গৃহবন্দি। হয়তো বাড়িতে বসে কাজ করছে। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস কিনতে বাইরে বেরতে হচ্ছে। তৈরি হচ্ছে নানা রকম মানসিক চাপ। কখনও ভেবে দেখেছেন, এই কয়েকটা দিন আপনাকে চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে, প্রয়োজন ছাড়া কত খরচ করে ফেলেন আপনি। নিজেই হয়তো অনেকে বুঝতে পারছেন। আমরা একটা তালিকা দেওয়ার চেষ্টা করলাম। আপনার সঙ্গে মিলেও যেতে পারে। 

১) বছরের শুরুতে অনেকেই নতুন রেজোলিউশন নেন। তার মধ্যে সঞ্চয় একটা বড় অংশ। কিন্তু কয়েকটা দিন যেতেই সেই প্ল্যান বানচাল হয়ে যায়। আবার পুরনো রুচিনে ফিরে যাই আমরা। আপনি ভেবে দেখুন, যেভাবে সঞ্চয় করবেন ভেবেছিলেন, তা বছরের প্রথম দুই মাসে প্রায় হয়ে ওঠেনি। কিন্তু মার্চ মাসে অর্থাৎ করোনা আতঙ্ক এবং লকডাউনের মধ্যে আপনারা পুরনো প্ল্যান অনুযায়ী সঞ্চয় হয়েছে অনেকটাই।

২) চাহিদা আর প্রয়োজন। শব্দ দুটোর মানে আমরা প্রত্যেকেই জানি। কিন্তু আদৌ পার্থক্য করতে পারি কি? ভেবে দেখুন, লকডাউন পিরিয়ডে শুধুমাত্র প্রয়োজনের জিনিসের জন্যই ব্যয় করছেন আপনি। কিন্তু পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে চাহিদার কারণে অকারণ ব্যয় হয় অনেকটাই। যেটা ইচ্ছে করলেই আপনি সঞ্চয় করতে পারেন।

 

ছবি ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে।

৩) ভেবে দেখুন, এখন আপনি বাড়িতে বসে অফিসের কাজ করছেন। আবার আপনার সাহায্যকারীদের ছুটি দিতে হয়েছে বলে বাড়ির যাবতীয় কাজ রান্না হোক বা বাসন মাজা সামলাতে হচ্ছে একার হাতেই। হ্যাঁ, এতে কিছুটা কষ্ট হচ্ছে ঠিকই। কিন্তু আপনি পারছেন তো। ফলে সুসময় ফিরলে ভেবে দেখবেন, বাইরের কাজ সামলেও বাড়ির কোন কোন কাজ আপনিই করতে পারবেন, যাতে আপনার সঞ্চয় হবে। অর্থাৎ আগে এই বাবদ কেমন প্রয়োজন ছাড়া খরচ করতেন, তা স্পষ্ট হয়ে যাবে।

৪) মাসিক বাজেটে প্রায় প্রত্যেক সংসারেই বাইরের খাবারের একটা হিসেব ধরা থাকে। কিন্তু লকডাউনে আপনি বাড়িতেই খাচ্ছেন। এটা ঠিক যে, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আবার বাইরের খাওয়া শুরু করবেন আপনি। কিন্তু মাসের মধ্যে যতদিন বাইরে থেকে খাবার আনিয়ে খেতেন, সত্যিই কি সেটা প্রয়োজন? ভেবে দেখবেন একবার। হয়তো এই খাতে আপনি অতিরিক্ত খরচ করতেন, যেটা চাইলে সঞ্চয় করতে পারেন। 

৫) বিভিন্ন রকম নেশা করেন অনেকে। তা তো এক রকমের প্রয়োজন ছাড়া খরচ। লকডাউনের পরিস্থিতিতে নেশার দ্রব্য অপ্রতুল। অনেকেই এই সুযোগে নেশা ছেড়ে দেওয়ার চেষ্টা করছেন। আপনিও সামিল হন। বুঝতে পারবেন কত টাকা প্রয়োজন ছাড়া খরচ করেছেন। 

৬) করোনা আাতঙ্ক কাটলে বিশ্ব জুড়ে বিরাট আর্থিক মন্দা আসতে চলেছে। একথা আপনিও বুঝতে পারছেন। সে কারণে হাতে যতটুকু অর্থ রয়েছে, তা বুঝে খরচ করার কথা ভাবছেন। অথবা সেই অর্থ সঠিক ভাবে সেভিংসের প্ল্যান করছেন। এই ছোট ছোট আত্মত্যাগ বা প্ল্যানিং যদি পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও আপনি বজায় রাখেন, তাহলেই সঞ্চয় হবে অনেকটা। আর প্রয়োজন ছাড়া খরচের প্রবণতা কমবে।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!