লকডাউনের অনলাইন ক্লাসে মা হিসেবে সন্তানকে কীভাবে সাহায্য করবেন?

লকডাউনের অনলাইন ক্লাসে মা হিসেবে সন্তানকে কীভাবে সাহায্য করবেন?

করোনা (coronavirus) আতঙ্কে গৃহবন্দি (lockdown) দশায় অন্য সব কিছুর মতোই বদলে গিয়েছে পড়াশোনার পরিবেশ। আপনার সন্তান এতদিন স্কুলে গিয়ে ক্লাস করত। দিনের বেশ কিছুটা সময় সেখানে শিক্ষক-শিক্ষিকা বা বন্ধুদের সঙ্গে কাটাত। কখনও বা প্রাইভেট টিউশনে ব্যস্ত থাকত। সে সব আপাতত বন্ধ। বরং বেশ কিছু স্কুল অনলাইন ক্লাস শুরু করেছে। কেউই এই পদ্ধতিতে অভ্যস্ত নয়। ফলে প্রাথমিক ভাবে অসুবিধে হবেই। সে সব ক্ষেত্রে আপনি কীভাবে সন্তানকে সাহায্য করবেন? শুধু স্কুলের অনলাইন ক্লাস নয়। অন্য ভাবেও অনলাইন মিডিয়াম যে ব্যবহার করা যায়, তারও পাঠ এখনই দিতে পারেন আপনার সন্তানকে।

১) এখন সাধারণত বেশিরভাগ শিশুই ইন্টারনেট ফ্রেন্ডলি। হয়তো অনলাইন (online) ক্লাসের অভিজ্ঞতা তার ছিল না। তবে অনলাইন বিষয়টা সম্পর্কে বেশিরভাগ শিশুই জানে। ফলে নির্দিষ্ট সময়ে আপনার সন্তান যাতে অনলাইন ক্লাস করে, সেদিকে প্রাথমিক ভাবে লক্ষ্য রাখুন।

২) অনলাইন ক্লাসে শিক্ষক, শিক্ষিকাদের সঙ্গে কানেক্ট করতে, তাঁদের কথা বুঝতে বা নোট নিতে যদি কোনও সমস্যা হয়, সেখানে সন্তানকে হেল্প করুন।

৩) শুধু পড়াশোনা নয়। তার বাইরেও অনলাইনে একটা বিশাল জগৎ রয়েছে। সেটা সন্তানকে চিনতে শেখান। ধরুন, খুব সাধারণ কোনও বিষয়ে আপনার সন্তানের মধ্যে কোনও প্রশ্ন বা কৌতূহল তৈরি হল, সেটার উত্তর নিজেকেই অনলাইন সার্চ করে খুঁজে বের করতে উৎসাহ দিন।

৪) হাতে নিয়ে বই পড়ার আলাদা আনন্দ রয়েছে ঠিকই। কিন্তু অনলাইন বই পড়ার অভ্যেসও ভাল। এই সময়ে আপনার সন্তানকে অনলাইন বই পড়তে উৎসাহ দিন।

৫) নিজের চারপাশের খবর সম্পর্কে আপডেট থাকা যে কোনও বয়সে জরুরি। হয়তো এই মুহূর্তে আপনার বাড়িতে খবরের কাগজ পৌঁছচ্ছে না। সেক্ষেত্রে আপনার সন্তানকে অনলাইন খবর পড়তে শেখান।

৬) স্কুলের কোনও প্রজেক্টের ডিজাইন যদি আপনার সন্তান অনলাইন করতে চায়, সেখানে হেল্প করুন।

৭) গান, নাচ, আঁকা, আবৃত্তির মতো বিভিন্ন বিষয়ে বিশ্বজুড়ে অনলাইন ক্লাসের ব্যবস্থা থাকে। পড়াশোনার পাশাপাশি যে কোনও রকম অনলাইন ক্লাস করাতে সন্তানকে উৎসাহ দিতে পারেন।

৮) এডিট হোক বা ক্যামেরা, এই ধরনের টেকনিক্যাল ফিল্ডে প্রচুর অনলাইন কোর্স রয়েছে। আপনার সন্তানের সে সবে উৎসাহ থাকলে এই সময়টাকে কাজে লাগিয়ে কোনও অনলাইন কোর্স করাতে পারেন। 

এই মুহূর্তে গৃহবন্দি অবস্থায় আপনি তো বটেই, আপনার সন্তানকেও পজিটিভ ভাবতে শেখান। ইন্টারনেটকে ব্যবহার করে কতটা সমৃদ্ধ হওয়া যায়, সেেই পথগুলোর সন্ধান দিতে পারেন। তার মধ্যে যদি কিছুটা সময় অনলাইন গেমে আপনার সন্তান ব্যয় করতে চায়, তাতে বাধা দেবেন না। সব মিলিয়ে ব্যস্ত থাকতে বলুন। তার মধ্যেই খুঁজে নেওয়া যাবে ভাল থাকার চাবিকাঠি।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!