স্তন্যপান করানোর সময়ে মাতৃদুগ্ধের অপচয় বন্ধ করবেন কীভাবে

স্তন্যপান করানোর সময়ে মাতৃদুগ্ধের অপচয় বন্ধ করবেন কীভাবে

শিশুর (child) জন্মের পর মাতৃদুগ্ধই সবচেয়ে বেশি পুষ্টিকর। স্তন্যপান (breastfeeding) শিশুর নৈতিক অধিকার, কিন্তু অনেক সময়ই নতুন মা-দের শিশুকে স্তন্যপান করাতে গিয়ে নানা অদ্ভুত পরিস্থিতির মধ্যে পড়তে হয়। অনেক সময় তাঁদের পাবলিক প্লেসে স্তন্যপান করাতে অনুমতি দেওয়া হয় না, আবার অনেক সময় স্তন্যপান করানোর পরেও মায়ের স্তন থেকে দুগ্ধ (milk) নিঃসৃত (leakage) হয়। আসলে গর্ভাবস্থায়ই মাতৃদুগ্ধ তৈরির হয়ে যায় এবং অনেক সময়ই শিশুর জন্মের আগেও তা নিঃসৃত হতে পারে। সত্যি কথা বলতে কী, মাতৃদুগ্ধ নিঃসৃত হওয়া একটা হেলদি লক্ষণ। এতে বোঝা যায় যে শরীরে কোনও সমস্যা হচ্ছে না এবং গর্ভাবস্থায় এবং শিশুর জন্মের পরেও মায়ের শরীর ঠিক আছে। কিন্তু ওই যে বললাম, কখনও কখনও কিছু অপ্রীতিকর এবং অস্বস্ত্বিকর পরিস্থিতিতে পড়ে যেতে হয়। কীভাবে এমন পরিস্থিতে সামাল দেবেন তা নিয়েই আজ কিছু টিপস দেবো।

গর্ভাবস্থায় এবং শিশুর জন্মের পর যখন তখন ব্রেস্ট লিকিং-এর পরিস্থিতি কীভাবে সামাল দেবেন

১। যখন তখন স্তন থেকে মাতৃদুগ্ধ নিঃসৃত হলে তা কীভাবে বন্ধ করা যায় – এই প্রশ্নটি বোধহয় সব মায়ের মনেই একবার হলেও এসেছে। যেহেতু এটি শরীরের একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া, কাজেই প্রথমদিকে আপনাকে এই পরিস্থিতির সম্মুখীন হতেই হবে। আপনার শরীরকে বুঝতে দিন যে কখন কখন আপনি আপনার শিশুকে স্তন্যপান করাচ্ছেন। ধীরে ধীরে যখন ঘড়ির কাঁটার সঙ্গে আপনার শরীর মানিয়ে নিতে শুরু করবে, তখন আর এই পরিস্থিতি দেখা দেবে না।

২। শিশুকে বারবার স্তন্যপান করান এবং কিছুক্ষণ স্তন্যপান করিয়েই বন্ধ করে দেবেন না। বেশ অনেকক্ষণ ধরে যদি আপনি আপনার সন্তানকে স্তন্যপান করান তাহলে আপনার স্তনে প্রয়োজনের তুলনায় অতিরিক্ত মাতৃদুগ্ধ জমা হবে না এবং তা যখন তখন নিঃসৃত হয়ে আপনাকে অস্বস্ত্বিকর পরিস্থিতিতেও ফেলবে না।

৩। অনেক সময় এমন হতে পারে যে আপনার স্তন থেকে হঠাৎ করে মাতৃদুগ্ধ নিঃসৃত হতে শুরু করল কিন্তু আপনার শিশু আপনার সঙ্গে নেই, কাজেই তাকে তখন আপনি স্তন্যপান করাতে পারবেন না। এহেন পরিস্থিতিতে স্তনবৃন্তে সামান্য চাপ দিন। এতে নিঃসরণ বন্ধ হবে।

৪। আপনি বাইরে বেরলে ব্রেস্ট প্যাড ব্যবহার করতে পারেন। অন্তর্বাসের নীচে ব্রেস্ট প্যাড পরে তার উপরে পোশাক পরুন। ব্রেস্ট প্যাড পরা থাকলে মাতৃদুগ্ধ নিঃসৃত হলেও পোশাকের উপর থেকে তা বোঝা যাবে না। এছাড়াও স্তন শুষ্ক রাখতে এবং মাতৃদুগ্ধ অপচয় হওয়া থেকেও ব্রেস্ট প্যাড রক্ষা করে।

৫। অনেক সময়ই স্তন্যপান করানোর সময়ে যে স্তন থেকে শিশু মাতৃদুগ্ধ পান করছে না সেটি থেকে মাতৃদুগ্ধ নিঃসৃত হয়ে অপচয় হয়। সেক্ষেত্রে ছোট্ট একটি মিল্ক কালেক্টর আপনি স্তনের সঙ্গে লাগিয়ে রাখতে পারেন এবং পরে সেই দুধ শিশুকে পান করাতে পারেন।

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!