দুই সন্তানের মধ্যে তুলনা করে বিপদ ডেকে আনছেন মায়েরা? জেনে নিন কী করা উচিত

দুই সন্তানের মধ্যে তুলনা করে বিপদ ডেকে আনছেন মায়েরা? জেনে নিন কী করা উচিত

কখনও ইচ্ছাকৃত, কখনও বা অজান্তেই দুই সন্তানের (Siblings) মধ্যে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তুলনা (Comparisons) করে ফেলেন মায়েরা (mom)। যাঁদের দাদা, দিদি বা ভাই, বোন রয়েছে, তাঁরা এই ঘটনার সাক্ষী। এতে আসলে শিশুর মনের উপর প্রবল চাপ পড়ে। একা হয়ে যায় শিশু। কিন্তু সেটা বুঝতে পারেন না, অনেক মা। দুই সন্তানের মধ্যে তুলনা করলে ঠিক কী কী ক্ষতি হতে পারে? মা হিসেবে আপনার ঠিক কী করা উচিত, সে সব নিয়েই আলোচনা করার চেষ্টা করলাম আমরা।

দুই সন্তানের মধ্যে তুলনা করলে কী কী ক্ষতি হতে পারে?

  • সাধারণত দুই সন্তানের মধ্যে তুলনা অনেক সময় অজান্তেই করে ফেলেন মায়েরা। ও তাড়াতাড়ি খেয়ে নেয়। তুই খাস না। ও স্কুলে ভাল রেজাল্ট করে, তুই ওকে দেখে শিখতে পারিস না। অথবা ও সবার সঙ্গে হেসে কথা বলতে পারে। তুই কেন চুপ করে থাকিস? এ হেন তুলনা মায়েরা করেন। কিন্তু তার সাংঘাতিক প্রভাব পড়ে শিশু মনে।
  • প্রথমেই তুলনায় পিছিয়ে থাকা সন্তান ভাবতে শুরু করে, তার সবচেয়ে ভরসা, বিশ্বাস, আদরের জায়গা মা আর তাকে ভালবাসে না। কারণ সবেতেই সে পিছিয়ে। মায়ের পছন্দ মতো কোনও কিছুই সে করতে পারছে না। তাই মা তাকে দিদি, দাদা বা ভাই-বোনের থেকে কম ভালবাসে। এই বোধ থেকেই হীনমন্যতা তৈরি হয়। তৈরি হয় সব জায়গায় হেরে যাওয়ার ভয়।  
  • মায়ের এই আচরণের ফলে তুলনায় পিছিয়ে থাকা শিশুটি প্রথমে তার দাদা বা দিদির মতো হওয়ার চেষ্টা করে। তাদের অনুসরণ নয়, অনুকরণ করার চেষ্টা করে। প্রাথমিক ভাবে দাদা বা দিদিই হয়ে ওঠে তার রোল মডেল। 
  • মনে রাখবেন, প্রতিটি শিশুই আলাদা। প্রত্যেকের কাজের ধরন, ব্যবহার, পারফরম্যান্স লেভেল আলাদা হবে, এটাই তো স্বাভাবিক। তাই প্রথম দিকে দাদা বা দিদিকে অনুসরণ নয়, অনুকরণ করার চেষ্টায় যখন ব্যর্থ হয় তারা তখন নতুন করে মনখারাপ তৈরি হয়। যা কিছুদিনের মধ্যেই শিশু মনে হিংসের জন্ম দেয়। মায়ের করা তুলনার কারণেই শিশু তার দাদা, দিদি বা ভাই, বোনকে হিংসে করতে শুরু করে। সেই পরিস্থিতি কখনও কাম্য নয়। 
     

মা হিসেবে আপনার কী করা উচিত?

দুই সন্তানের মধ্যে দূরত্ব তৈরি করবেন না। ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে।

  • সন্তানকে বুঝতে চেষ্টা করুন। অযথা দুই সন্তানের মধ্যে তুলনা না করে, কে কোন বিষয়ে পারদর্শী সেটা খুঁজে বের করুন।
  • হতে পারে আপনার এক সন্তান পড়াশোনায় দারুণ। আর একজনের ইন্টারেস্ট খেলা, আঁকা বা গানে। তাকে সেই বিষয়ে উৎসাহ দিন। যে কোনও ছোট ছোট সাফল্যে উৎসাহিত করুন দু'জনকেই। সকলকেই একই দিকে পারদর্শী হতেই হবে, এমন তো কোনও নিয়ম নেই।
  • সন্তান আপনার কাছে স্পেশ্যাল, এই বোধটা ওদের মধ্যে তৈরি করুন। আপনার ভালবাসায় যে কোনও ভাগ নেই, হতে পারে না, সেটা বুঝিয়ে দিন আপনার ব্যবহারে।
  • আপনার সামনে দুই সন্তানের মধ্যে কোনও আত্মীয় বা বন্ধু তুলনা টানলে সঙ্গে সঙ্গে তার প্রতিবাদ করুন। 

মূল ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!