গৃহবন্দি অবস্থায় ট্রাই করার জন্য নিজের বিউটি সিক্রেট শেয়ার করলেন প্রিয়ঙ্কা চোপড়া!

গৃহবন্দি অবস্থায় ট্রাই করার জন্য নিজের বিউটি সিক্রেট শেয়ার করলেন প্রিয়ঙ্কা চোপড়া!

করোনা আতঙ্ক বিশ্বজুড়ে। লকডাউন চলছে ভারতে। বিশ্বের বেশ কিছু দেশও লকডাউনের পন্থা অবলম্বন করেছে। অনেকেই বাড়ির বাইরে রয়েছেন। এই তালিকায় রয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়ঙ্কা (priyanka) চোপড়াও। তাঁর মা মধু চোপড়া রয়েছেন মুম্বইতে। আর তিনি নিক জোনাসের সঙ্গে লস এঞ্জেলসে রয়েছেন। প্রতি মুহূর্তে প্রিয়জনদের জন্য চিন্তা হচ্ছে। কিন্তু সে সবের মধ্যেও মন ভাল রাখতে হবে। পজিটিভ থাকতে হবে। সে কারণেই নিজের একটি বিউটি (beauty) সিক্রেট শেয়ার করলেন পিগি চপস।

নিক জোনাসকে বিয়ের পর বেশিরভাগ সময়ই দেশের বাইরে থাকেন প্রিয়ঙ্কা। তাঁর কর্মক্ষেত্রও এখন বেশিরভাগ সময় হলিউড। কিন্তু নিজের শিকড় ভুলে যেতে চান না নায়িকা। ভারতীয় খাবার হোক বা পোশাক সব সময়ই তাঁর পছন্দের তালিকায়। ঠিক তেমনই মায়ের শেখানো বিউটি সিক্রেট আজও তাঁর সঙ্গী। সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও শেয়ার করে মায়ের শেখানো সেই বিউটি সিক্রেট শেয়ার করেছেন প্রিয়ঙ্কা। তাঁর মনে হয়েছে কোয়ারেন্টাইনে থাকার সময় উপকরণ মজুত থাকলে সকলেই এটা ট্রাই করতে পারবেন।

ইয়োগার্টের সঙ্গে এক চা চামচ মধু এবং একটা ডিম মিশিয়ে নিতে বলেছেন প্রিয়ঙ্কা। খুব সাধারণ এই সব উপকরণ অনেকের বাড়িতেই থাকে। আর এই সব উপকরণ একসঙ্গে স্ক্যাল্পের স্বাস্থ্য ভাল করতে নাকি ম্যাজিকের মতো কাজ করে। ইয়োগার্টের মধ্যে থাকা ল্যাকটিক অ্যাসিড স্ক্যাল্প পরিষ্কার করতে কাজ করে। একই সঙ্গে মরা কোষ তুলে ফেলে। যদি কারও চুল রুক্ষ্ম এবং শুষ্ক হয়, সেক্ষেত্রে মধু ময়শ্চারাইজিংয়ের কাজ করে। ডিমের মধ্যে থাকা প্রোটিন, ভিটামিন, বায়োটিন চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। এই প্যাকটা লাগালে চুল ভেঙে যাওয়া বা চুল পড়ে যাওয়ার সমস্যাও দূর হবে বলে জানিয়েছেন প্রিয়ঙ্কা। 

 

প্রিয়ঙ্কা পরামর্শ দিয়েছেন, ৩০ মিনিট এই হেয়ার মাস্ক লাগিয়ে রাখার পর হালকা গরম জলে চুল ধুয়ে ফেলতে হবে। মজা করে বলেছেন, এই হেয়ার মাস্কের একটা অদ্ভুত গন্ধ রয়েছে। সেই গন্ধ দূর করতে এবং সব ইয়োগার্ট ধুয়ে ফেলতে দুবার শ্যাম্পু করার প্রয়োজন হতে পারে। শ্যাম্পুর পর অবশ্যই কন্ডিশনার লাগিয়ে নিতে হবে।

মায়ের শিখিয়ে দেওয়া এই বিউটি সিক্রেট প্রিয়ঙ্কা নিজে ফলো করেন। তার ফল যে ভালই পেয়েছেন, তা তো আর বলার অপেক্ষা রাখে না। যেহেতু এই হেয়ার মাস্ক তৈরি করতে সাধারণ কিছু উপকরণের প্রয়োজন, প্রিয়ঙ্কার মনে হয়েছে কোয়ারেন্টাইনেও এ সব অনেকের বাড়িতেই রয়েছে। আর লকডাউনের ফলে অনেকের হাতেই এখন অনেকটা সময় রয়েছে। সেই সময়টাতে যদি রূপচর্চা করতে চান, তাহলে এই হেয়ার মাস্কের রেসিপিটা আপনাদের কাজে লাগতে পারে। তাহলে আর দেরি কেন? প্রিয়ঙ্কার সাজেশন আপনার কতটা কাজে লাগল, জানাতে পারেন আমাদের। 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!